logo
  • ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

নিষেধাজ্ঞার শৃঙ্খল ভাঙতে জার্মানিতে প্রকাশ পেলো ইরানি সংগীতশিল্পীদের অ্যালবাম

Iranian musicians launch album in Germany
সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক রাজনীতির কারণে ইরান অনেকটাই আলাদা হয়ে পড়লেও ইরানি সংগীত শিল্পীদের বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করতে এগিয়ে এসেছে জার্মানি।

এ বছরের শুরুতে ৩০এম রেকর্ড প্রতিষ্ঠা করেন ম্যাথিয়াস কোচ। হামবুর্গ ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ২০ নভেম্বর তাদের প্রথম গানের অ্যালবাম প্রকাশ করেছে। অ্যালবামটিতে গান করেছেন দুজন ইরানি গায়ক। প্রচলিত ইরানি সংগীতের সঙ্গে আধুনিকতা ছোঁয়া দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে এই অ্যালবামে।

৪৯ বছর বয়সী কোচ আল জাজিরাকে বলেন, ইরানের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও ইতিহাসের প্রতি আমার গভীর আকর্ষণ আছে। আমি কামঞ্চে, তার, সেতার এবং দফের মতো ঐতিহ্যবাহী বাদ্যযন্ত্র পছন্দ করি।

২০১৬ সালে তেহরান ও বিশ্বশক্তির মধ্যে একটি পরমাণু চুক্তি কার্যকর হওয়ার কিছুদিন পর তিনি প্রথমবারের মতো ইরান যান। এই চুক্তির আওতায় ইরানের উপর বহুপক্ষীয় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবং  বিশ্বের কাছে উন্মুক্ত হওয়ার পথ তৈরি হয়।

ফলে ইরানি শিল্পী ও শ্রোতাদের জন্য সম্ভাবনার দুয়ার খুলে যায়। তেহরান ও অন্যান্য কয়েকটি শহরে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শিল্পীদের বেশ কয়েকটি কনসার্টের আয়োজন করা হয়। পরে অভূতপূর্ব চাহিদার কারণে পারফরম্যান্সের সময় আরও বাড়ানো হয়।

জার্মান ইলেকট্রনিক ব্যান্ড শিলার, ইতালিয়ান পিয়ানোবাদক এবং সুরকার লুডোভিকো আইনাউডি এবং ইকুয়েডরের সংগীতশিল্পী লিও রোজাসের মতো শিল্পীরা মিলাদ টাওয়ারসহ তেহরানের বেশ কয়েকটি আইকনিক ভেন্যুতে শো করেছিলেন।

বামদাদ আফশার ও ওটাগ ব্যান্ড

২০১৭ সালে জার্মান সুরকার মার্টিন কোহলস্টেডট এবং আইসল্যান্ডের মাল্টি-ইন্সট্রুমেন্টালিস্ট ওলাফুর আর্নাল্ডসের পারফরম্যান্সের আয়োজকদের একজন ছিলেন কোচ। কিন্তু ২০১৮ সালের মে মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এককভাবে ওই পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে বের করে আনেন। এসময় তিনি ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপেরও প্রতিশ্রুতি দেন।

এই ঘোষণার কিছুদিন পর গ্র্যামিজয়ী জাপানি শিল্পী কিতারোর বহু প্রত্যাশিত সিরিজ পারফরম্যান্স বাতিল করা হয়। কারণে তার ব্যান্ড সদস্যদের মধ্যে আমেরিকানও রয়েছে। এরপর ট্রাম্প প্রশাসন ইরানের উপর কঠোর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ; বিশেষত দেশটির পুরো আর্থিক খাতকে কালোতালিকাভুক্ত করে।

পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র মূলত মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলো টার্গেট করে যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দেয় তাতে ইরান, ইরাক, সুদান বা সিরিয়ার নাগরিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এমনকি যারা ইরান ভ্রমণ করতে ইচ্ছুক ছিলেন তারাও প্রভাবিত হন।

কোচ বলেন যে, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা তার ৩০এম রেকর্ড প্রতিষ্ঠার অন্যতম একটি কারণ ছিল। তিনি বলেন, আমি ইরানি সংগীতশিল্পীদের জন্য বিশেষ করে মার্কিন অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার এই সময়ে তাদের সংগীত প্রকাশ এবং তাদের আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্কে তাদের প্রবেশাধিকার দিতে চেয়েছি।

হুশিয়ার খায়াম (বামে)

আমি মনে করি ইরানের সংগীত মনোমুগ্ধকর, যা বিশ্বব্যাপী দর্শক প্রিয়তা পাওয়ার দাবিদার বলেন কোচ। তিনি বলেন, এই মুহূর্তে ইরানি শিল্পীরা যদি বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করতে চায় তাহলে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে বেশি ফি দেয়ার মতো প্রতিকূল পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে পারে।

কোচ বলেন, সুতরাং আমি তাদের ন্যায্য চুক্তি, ভাল মূল্য এবং ইউরোপ এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশে কনসার্ট এজেন্সি, প্রকাশক এবং মিডিয়ার সঙ্গে সহযোগিতার জন্য ব্যাপক পরামর্শের প্রস্তাব দিতে চাই। ৩০এম রেকর্ডসের প্রথম প্রজেক্ট ‘রাজ’ ফার্সি ভাষায় ‘সিক্রেট’ ২০ নভেম্বর প্রকাশ পেয়েছে।

অ্যালবাম প্রকাশের আগে আন্তর্জাতিক বড় দুটি প্লাটফর্ম স্পটিফাই ও ফিজিক্যাল ভিনাইলে দুটি গান প্রকাশ করা হয়। খুব শিগগিরই সিডি এডিশন বের হবে। কোচ বলছেন, যোগ্যতা অনুযায়ী প্রাপ্য সম্মান পাবে এই সংগীত।

পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী দক্ষিণাঞ্চলীয় ইরানের বড় একটি প্রদেশ সিস্তান ও বেলুচিস্তানের ধারার সংগীতই মূলত এই অ্যালবামে ফোকাস পেয়েছে। এছাড়া ইরানের ‘হিলিং মিউজিক’ গোয়াটিও অ্যালবামে স্থান পেয়েছে, যা দুজন পুরুষ ও একজন নারীর কণ্ঠে আধুনিক ইলেকট্রনিক মিউজিকের সাহায্যে নতুনত্ব পেয়েছে।

এই অ্যালবামটি মূলত সুরকার ও পিয়ানোবাদক হুশিয়ার খায়াম এবং সংগীতশিল্পী ও পুরস্কারপ্রাপ্ত সিনেমা ও থিয়েটার সংগীত সুরকার বমাদাদ আফশারের মধ্যে কোলাবোরেশন।

বামদাদ আফশার

২০১৫ সালে তেহরানে ওটাগ ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা আফশার বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করার একটি উল্লেখযোগ্য সুবিধা হলো এটি আন্তর্জাতিক পিয়ারদের সঙ্গে যোগাযোগ করা এবং কাজ প্রকাশের রাস্তাকে উন্মুক্ত করে।

তিনি বলেন, নিষেধাজ্ঞা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। আমরা যদি কোনও আন্তর্জাতিক গ্রুপ হতে চাই, তাহলে বাইরের কোনও লিঙ্ক না থাকলে কাজের জন্য সুযোগ হওয়াটা কঠিন। আফশার বলেন, অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা এবং কোভিড-১৯ মহামারি দ্বৈত আঘাত তার পেশাগত জীবনের সবদিককে আরও চ্যালেঞ্জিং করে তুলেছে।

তিনি বলেন, দুই বছর আগের চেয়ে ব্যয় বেড়েছে আট গুণ। আমার বেশ কিছু ট্রিপ ও পারফরম্যান্স বাতিল হয়ে গেছে। ‘রাজ’ নিয়ে আমি খায়ামের প্রস্তাবের প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছিলাম কারণ আমার আগের একক এবং ওটাগের জন্য কাজগুলো মূলত ইরানের ঐতিহ্যবাহী সংগীতকে কেন্দ্র করে ছিল।

চলতি বছর ফজর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা সংগীতের জন্য পুরস্কার পায় ইরানি চলচ্চিত্র ‘স্কিন’। সেখানে শামান স্টাইলের তুর্কমেন এবং মঙ্গোল সংগীতের সঙ্গে বৈদ্যুতিক ট্রান্স সংগীতের মিশ্রণ ঘটিয়েছিলেন আফশার। তিনি এবং ওটাগ তাদের সবশেষ অ্যালবামে দক্ষিণ বুশেহেরের সংগীতও ব্যবহার করেছেন, যা শিগগিরই প্রকাশ পাবে।

জার্মান প্রতিষ্ঠান ‘৩০এম’ ‘সিমর্গ’ নামের সংক্ষিপ্ত। ফার্সি ভাষায় ৩০ এর উচ্চারণ ‘সি’ এবং ‘মর্গ’ শব্দের অর্থ পাখি অর্থাৎ সিমর্গ হচ্ছে পৌরাণিক একটি পার্সিয়ান পাখি। ১২ শতাব্দীর সুপরিচিত ফার্সি কবি এবং সুফি আত্তার অব নিশারপুরের একটি কবিতা কনফারেন্সেস অব দ্য বার্ডস’র গল্প থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে এই নাম রাখা হয়েছে।

ম্যাথিয়াস কোচ

পৌরাণিক গল্প অনুযায়ী, পাখিদের রাজা সিমর্গকে খুঁজতে বেরিয়ে পড়ে এক ঝাঁক পাখি। দীর্ঘ এবং কঠোর যাত্রা শেষে ৩০টি পাখি লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম হয়। কিন্তু গন্তব্যে পৌঁছে তারা দেখতে পায় রাজার কোনও অস্তিত্ব নেই এবং শেষপর্যন্ত তারাই রাজা হয়ে যায়।

কোচ বলেন, ইরানি শিল্প ও সংগীত নিয়ে কাজ করতে চায় ৩০এম রেকর্ডস কারণ এগুলো খুব সমৃদ্ধ। ৩০এম রেকর্ডস প্রতিষ্ঠাতার আগে বহু বছর জার্মান ও ইউরোপিয়ান প্রতিষ্ঠানে এবং মিউজিক ম্যানেজার হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে কোচের। তিনি বলেন, ইরান থেকে আরও বিভিন্ন ধরনের সংগীত প্রকাশের পরিকল্পনা রয়েছে তার।

প্রতিষ্ঠানটি ‘দিস ইজ তেহরান?’ শিরোনামে ২০২১ সালের জানুয়ারিতে বিভিন্ন ইরানি শিল্পী গান নিয়ে একটি কম্পাইল অ্যালবাম প্রকাশের পরিকল্পনা করছে। এই অ্যালবামে ইলেকট্রনিক মিউজিশিয়ান আতা এবতেকার এবং সুরকার পেদরেম বাবায়েইয়ের গানও থাকবে।

একই বছরের শেষদিকে আরেকটি অ্যালবাম প্রকাশ করবে ৩০এম রেকর্ডস। ইলেকট্রনিক মিউজিশিয়ান সাবা আলিজাদে’র সুরে ওই অ্যালবামের নাম ‘কামাঞ্চে মিটস ইলেকট্রনিক মিউজিক’। সুরের বেদনাদায়ক সৌন্দর্য এবং বিট আন্তর্জাতিক দর্শকদের জন্য পারফেক্ট এবং এর পেছনের গল্পগুলোও সংগীতকে আরও শক্তিশালী করে তুলেছে বলেন কোচ।

RTVPLUS