logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

অবৈধ ইহুদি বসতি পরিদর্শনে যাচ্ছেন পম্পেও, ফিলিস্তিনের প্রতিবাদ

Palestinians call Pompeo's plan to visit occupied West Bank as dangerous precedent
সংগৃহীত
আগামী সপ্তাহে ইসরায়েল সফরে যাচ্ছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ওই সফরে অধিকৃত পশ্চিম তীরের একটি ইসরায়েলি বসতি এবং গোলান মালভূমি পরিদর্শনের পরিকল্পনা রয়েছে তার। এমন খবর প্রকাশ্যে আসার পর এই পরিকল্পনার ঘোর বিরোধিতা করেছে ফিলিস্তিন।

ফিলিস্তিন স্বশাসন কর্তৃপক্ষের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মাদ শাতাইয়্যাহ বলেছেন, পম্পেওর পরিকল্পিত সফর অনুষ্ঠিত হলে অবৈধ ইহুদি বসতিগুলোকে বৈধতা দেয়া হবে এবং আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনের একটি ভয়ঙ্কর উদাহরণ তৈরি হবে।

মাইক পম্পেও আগামী সপ্তাহে জর্দান নদীর পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড জবরদখল করে নির্মিত ইহুদি বসতি ‘স্যাগোট’ পরিদর্শন করবেন। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে তা হবে কোনও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রথমবারের মতো কোনও অবৈধ ইহুদি বসতি পরিদর্শন।

পম্পেও’র সফরসূচি এখনও নিশ্চিত করেনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সপ্তাহের শুরুতে এক বিবৃতিতে তারা জানিয়েছিল, পম্পেও ইসরায়েল সফর এবং দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী জো বাইডেনের শপথ গ্রহণের আর মাত্র দুই মাস বাকি। তার আগেই ইসরায়েল সফর করছেন পম্পেও। বাইডেন ইসরায়েলি বসতির একজন সমালোচক হিসেবে পরিচিত।

১৯৬৭ সাল থেকে পশ্চিম তীর ও গোলান মালভুমিকে দখলকৃত অঞ্চল হিসেবে বিবেচনা করে মার্কিন প্রশাসন। পরবর্তীতে ১৯৮১ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে তোয়াক্কা না করে গোলান মালভূমি দখল করে নেয় ইসরায়েল। তবে গত বছর ট্রাম্প বলেছেন, তার প্রশাসন আর পশ্চিম তীরে ইহুদি বসতি নির্মাণকে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন বলে মনে করে না।

RTVPLUS