করোনায় বিশ্বে একদিনে সর্বাধিক তিন লাখ সংক্রমণের রেকর্ড

প্রকাশ | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৪৪ | আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩:০১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি নিউজ
করোনাভাইরাস পরীক্ষা

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অনেক নিয়ন্ত্রণে এলেও কমছে না আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, গতকাল রোববার বিশ্বে একদিনে রেকর্ড সর্বোচ্চ ৩ লাখ ৭ হাজার ৯৩০ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এই অবস্থার মধ্যেও বেশিরভাগ দেশ বিধিনিষেধ তুলে নিয়ে সব স্বাভাবিক করে দিয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও)তথ্য অনুযায়ী, রোববার রেকর্ড সর্বোচ্চ সংক্রমণের দিনে সবচেয়ে বেশি মানুষ কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন ভারত, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলে। এছাড়া গতকাল বিশ্বজুড়ে আরও ৫ হাজার ৫৩৭ জন মারা গেছেন। ভাইরাসটিতে মোট মৃতের সংখ্যা ৯ লাখ ১৭ হাজার ৪১৭ জন।

রোববার ভারতে সর্বোচ্চ কোভিড-১৯ আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৯৪ হাজার ৩৭২ জন। এরপর সর্বোচ্চ রোগী শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলে যথাক্রমে ৪৫ হাজার ৫২৩ জন ও ৪৩ হাজার ৭১৮ জন। এদিকে গতকাল বাংলাদেশে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩১ জন, নতুন শনাক্ত হয়েছেন ১৪৭৬ জন। দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা তিন লাখ ৩৭ হাজার ৫২০ জন। নতুন করে সুস্থ হয়েছেন ২৩৭২ জন। মোট সুস্থ ২ লাখ ৪০ হাজার ৬৪৩ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় মোট মৃত ৪৭৩৩ জন।

রোববার ভারতে মারা গেছে ৩৯৪৫ জন ও আক্রান্ত হয়েছে ২৩ হাজার ৬২৪ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ২ হাজার ৭০৮ জন। তবে এই সময়ে ব্রাজিলে মৃত্যু হয়েছে ৮৭৪ জনের। বিশ্বে এর আগে দৈনিক রোগী শনাক্তের রেকর্ড ছিল গত ৬ সেপ্টেম্বর; ৩ লাখ ৬ হাজার ৮৫৭ জন। এ ছাড়া ১৭ এপ্রিল একদিনে সর্বোচ্চ ১২ হাজার ৪৩০ জনের মৃত্যু হয়।

ব্রাজিলে করোনা সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা এখন চল্লিশ লাখের বেশি; যা যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের পর তৃতীয় সর্বোচ্চ। এ ছাড়া লাতিন আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে করোনায় সর্বাধিক মৃত্যু হয়েছে ব্রাজিলে; ১ লাখ ৩১ হাজারের বেশি। এ ছাড়া মোট করোনা আক্রান্তের এক-চতুর্থাংশই যুক্তরাষ্ট্রে। করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশটিতে আক্রান্ত ৬৫ লাখের বেশি মানুষের মধ্যে ১ লাখ ৯৪ হাজারের বেশি মারা গেছে। 

গত এক মাস ধরে বিশ্বে দৈনিক সর্বোচ্চ সংক্রমণ শনাক্ত হচ্ছে প্রতিবেশী ভারতে। গত সপ্তাহে একদিনে ৯৭ হাজার ৫৭০ রোগী নিয়ে সংক্রমণের বিশ্বরেকর্ড হয় দেশটিতে। প্রাদুর্ভাব শুরুর পর এর আগে কোনো দেশে একদিনে এতজন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়নি। 
পি