spark
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭

করোনা আপডেট

  •     গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ৪১ জন, আক্রান্ত ৩৩৬০ জন, সুস্থ হয়েছেন ৩৭০৬ জন: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

শাকিবের কাছে তৌসিফকে কেন ক্ষমা চাইতে হলো?

এ এইচ মুরাদ, আরটিভি অনলাইন
|  ০৩ জুন ২০২০, ১২:৩৫ | আপডেট : ০৩ জুন ২০২০, ১২:৫০
Shakib, Tawsif,
ছবিতে শাকিব-তৌসিফ
কিছু একটা পেলে আমাদের ঝাঁপিয়ে পড়ার অভ্যাসটা গেল না। সময়-অসময় আমরা বুঝি না। করোনায় একের পর এক মৃত্যুর সংখ্যা গুণে আমাদের ঈদ শেষ হলো। বিনোদনপ্রেমী মানুষ ঘরে বসে নাটক, সিনেমা উপভোগ করেছেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সামাজিক নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে শুটিং বন্ধ হয়েছিল বেশ আগেই। ফলে ঈদে যতো নাটক নির্মাণ হয়, তার পরিমাণ এবার কম ছিল। আর সিনেমা হল বন্ধ থাকায় বিনোদনের মাধ্যম ছিল ছোট পর্দা ও বিভিন্ন অনলাইন প্ল্যাটফর্ম।  

তবে নাটক কম নির্মাণ হলেও মানের দিক দিয়ে খারাপ ছিল না মোটেও। ঈদের দিন থেকে যেসব নাটক দেখেছি কোনোটাকেই মানহীন বলা চলে না। তবে হ্যাঁ, একেক জনের পছন্দ একেক রকম।   

এবার ঈদে বিনোদনপ্রেমী মানুষের কিছু অংশ একটি নাটকের সংলাপ নিয়ে তুলকালাম ঘটালেন। কদিন যাবত বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকের মাধ্যমে তা ভালোই আঁচ করতে পারছিলাম। কি নিয়ে সেই আলোচনা? মূল বিষয় হলো ‘ওহ মাই ডার্লিং’নাটকের একটি দৃশ্যে দেখা যায়, সহশিল্পী সাফা কবির শাকিব খানের সিনেমা দেখতে চান। তিনি শাকিব খানের বড় ভক্ত। কিন্তু প্রেমিক তৌসিফ বিরক্ত হন। কারণ তিনি নিজের পছন্দের সিনেমা বাদ দিয়ে শাকিবের সিনেমা দেখতে চাওয়ায় নায়ককে ‘ক্ষ্যাত’বলে আখ্যায়িত করেন।

এখন কথা হলো শাকিব খানকে কেন ‘ক্ষ্যাত’বলা হলো। কেন একজন ছোট পর্দার অভিনেতা হয়ে তৌসিফ বড় পর্দার এই সুপারস্টারকে বাজে মন্তব্য করলেন। এই নিয়েই সুপারস্টারের ভক্তরা তৌসিফের উপরে চটেছেন। ‘ওহ মাই ডার্লিং’নাটকটি লিখেছেন মুনতাহা বৃত্তা এবং পরিচালনা করেছেন রাফাত মজুমদার রিংকু। একটি ইউটিউব চ্যানেলে ঈদে নাটকটি প্রকাশ হয়। তারপর থেকেই এই সাইবার আক্রমণের সূত্রপাত।

সহজ ভাষায় যদি বলি তৌসিফ একটি নাটকের সিচুয়েশন তুলে ধরতে স্ক্রিপ্টের ওই ডায়ালগটি বলেছেন। এখানে পরিচালক, স্ক্রিপ রাইটার বা তৌসিফের হয়তো শাকিবকে ছোট করার কোনো উদ্দেশ্যই ছিল না। কারণ যেখানে তৌসিফের প্রেমিকা সাফা কবির নিজেই শাকিব খানের অন্ধ ভক্ত। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে কথার কথা তিনি সেটি বলতেই পারেন। আর মানুষের মানসিক প্রবৃত্তির কথা যদি বলি তাহলে, প্রেমিক-প্রেমিকা বা স্বামী-স্ত্রীর পছন্দের শিল্পী যদি তিনি বিপরীত লিঙ্গের হয়ে থাকেন; বেশির ভাগ ক্ষেত্রে দুজনেরও যদি ওই তারকাকে পছন্দ থাকে তাও এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে থাকেন। মনের মধ্যে একটা খুঁতখুঁতে ব্যাপার কাজ করে যে ভালোবাসা কিছুটা ওই দিকে চলে গেল কিনা! এমনটাও কিন্তু অস্বাভাবিক না।

সমালোচকরা হয়তো এভাবে বিষয়টি ভাবেননি বা ভাবার প্রয়োজন বোধ করেননি। আর তারা যে সমালোচনা করে খুব অন্যায় করেছেন সেটিও নয়। কারণ প্রিয় তারকা সম্পর্কে ক্ষুদ্র একটি বক্তব্য তাদের মন খারাপের কারণ হওয়ার জন্য যথেষ্ট। তাই শাকিব ভক্তদের তৌসিফকে গালমন্দ করার অধিকার হয়তো রয়েছে।

এদিকে তৌসিফ নিজেই গণমাধ্যমের কাছে বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এই অভিনেতা জানিয়েছেন, তিনি নিজেও শাকিব খানের একজন বড় ভক্ত। শাকিব খান তার বড় ভাইয়ের মতো। এই ইন্ডাস্ট্রির সুপারস্টার তিনি। একজন শিল্পী হয়ে তিনি কখনও অন্য শিল্পীকে এমন কথা বলতে পারেন না। উদাহরণ টেনে তিনি বলেছেন, যদি পাকবাহিনীর চরিত্র করতে গিয়ে বাংলাদেশকে নিয়ে অপমানসূচক ডায়লগ দিতে হয়, তার মানে তো এই না যে আমি বাংলাদেশকে দেখতে পারি না!

তৌসিফের কথায় যুক্তি আছে। আর তিনি কেনই বা শাকিব খানের মতো একজন তারকাকে ছোট করতে যাবেন। শাকিবের সঙ্গে তো তার কোনও শত্রুতা নেই বা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নেই। এই বিষয়টি হয়তো অনেকে বুঝতে পারেননি।

কিন্তু প্রশ্ন হলো, এত কিছু ঘটে গেল অথচ শাকিব খান কি ব্যাপারটি নিয়ে কিছুই জানতেন না। টেলিভিশন মিডিয়ার একজন তরুণ শিল্পী তৌসিফ। মানুষ মাত্রই তো ভুল করেন। ধরেই নিলাম তৌসিফ অনেক বড় একটা ভুল করে ফেলেছেন। সুতরাং একজন সুপারস্টার হিসেবে শাকিব খান নিজেই তো তৌসিফকে ফোন দিয়ে বিতর্কের সুন্দর পরিসমাপ্তি করতে পারতেন। নিজের ফেরিফাইড পেজে জানাতে পারতেন, ‘তৌসিফ আমার ছোট ভাই। সে চরিত্রের প্রয়োজনে ওই ডায়লগটি বলেছে।’তাহলে ঘটনা সেখানেই চুকে যেত। আর তৌসিফেরও মনকষ্ট নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এই ভুলের জন্য দুঃখ প্রকাশ করতে হতো না বা বারবার ব্যাখ্যা দেওয়ার প্রয়োজন পড়তো না।

এম/পি

RTVPLUS
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ১৭৫৪৯৪ ৮৪৫৪৪ ২২৩৮
বিশ্ব ১২১৮০৮৩২ ৭০৮১৪১০ ৫৫২৩৯৪
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বিনোদন এর সর্বশেষ
  • বিনোদন এর পাঠক প্রিয়