‘আমরা ভালো বাজার করেছি, রেঁধেছি’

প্রকাশ | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:১৮ | আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২৩:১৩

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
জাহিদ হাসান

বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত এ বছরের সবচেয়ে আলোচিত সিনেমা ‘সাপলুডু’ মুক্তি পাচ্ছে ২৭ সেপ্টেম্বর। সুদর্শন নায়ক আরিফিন শুভ ও বিদ্যা সিনহা মিম অভিনীত ছবিটি নিয়ে হৈচৈ চলছে। ‘সাপলুডু’ নিয়ে আশাবাদী ছবির পরিচালক থেকে শুরু করে শিল্পী কলাকুশলী সবাই। এই ছবিতে গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেতা জাহিদ হাসান। আরটিভির এক সাক্ষাৎকারে ছবিটি নিয়ে দর্শকদের আশার বাণী শুনালেন তিনি।

আরটিভি অনলাইন:  কেমন আছেন?

জাহিদ হাসান: ভালোই আছি।

আরটিভি অনলাইন: ২৭ তারিখ সাপলুডু মুক্তি পাচ্ছে, অনুভূতি কেমন?

জাহিদ হাসান: নতুন বেবি আসার আগে মায়েদের যেমন আশা-আকাঙ্ক্ষা থাকে। আমাদের আশা-আকাঙ্ক্ষা তেমন। প্রত্যেকটা ডিরেক্টর ও শিল্পীর জন্য একই অনুভূতির।

আরটিভি অনলাইন: ছবিটা নিয়ে আপনার প্রত্যাশা কেমন?

জাহিদ হাসান: আমার বিশ্বাস ছবিটা ভালো হবে। পরিচালক গোলাম সোহরাব দোদুল যখন আমাকে ছবির গল্প শুনিয়েছে আমি বলেছি ভালো হবে। আমরা যেটা বলি ছবিটা হিট করবে। আমি এটাই বলেছিলাম। আশা করছি তাই হবে।

আরটিভি অনলাইন: সাপলুডু ছবিটা কী ধরণের উত্থান-পতনের গল্পে নির্মিত?

জাহিদ হাসান: আমাদের সবার জীবনে অনেক উত্থান-পতন থাকে। মানুষের অনেক স্বপ্ন থাকে। আমার কাছে মনে হয়েছে প্রত্যেকের জীবনটা সাপলুডুর মতো। এই ভেবে পরিচালক এরকম নাম দিয়েছেন। এখানে চেষ্টা আছে, আনন্দ বেদনা আছে, আশা-আকাঙ্ক্ষা আছে। এটা পরিবারের গল্প।

আরটিভি অনলাইন: পরিচালক গোলাম সোহরাব দোদুলের সঙ্গে কাজ করে কেমন লেগেছে?

জাহিদ হাসান: পরিচালক আমাদের পরিবারের ছেলে। ওর সবচেয়ে ভালো গুণ হলো ও একজন ভালো পরিচালক আর সবাইকে সম্মান করে। ও রাগ-অভিমান সবগুলো নিতে পারে। আশা করছি  ভালো করবে, নতুন ছবি নিয়ে অনেক চেষ্টা করছে।

আরটিভি অনলাইন: এই সিনেমার টিমটা কেমন ছিল?

জাহিদ হাসান: সবাই আন্তরিক। সবাই কাজকে গুরুত্ব দিয়েছে। এই টিমের ডিরেক্টর ফটোগ্রাফিতে যে ছিল তার নাম রাজু রাজ। কাজের সময় ওর পরিবারের একটা সমস্যা চলছিল। তারপরেও কাজ করেছে। আমরা সবাই মিলে তার সঙ্গে বসেছি। সান্ত্বনা দিয়েছি। একে অপরের সহযোগিতা করেছি।

আরটিভি অনলাইন: দর্শকরা সিনেমাটি কতটুকু নিতে পারবেন?

জাহিদ হাসান: ধরুন, রাঁধুনি ভালো রান্না করলেন। হঠাৎ করে মনে হলো লবণ দেইনি, আরেকটু ভালোভাবে আঁচ দিলে ভালো হতো। আমরা ভালো বাজার করেছি, রেঁধেছি। তারপরেও যদি একটু সমস্যা থাকে ভুলত্রুটি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখে আমাদের যদি এগিয়ে নেন দেশের জন্য ভালো হবে, চলচ্চিত্রের জন্য মঙ্গল হবে।

আরটিভি অনলাইন:  আমাদের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিকে কেমন দেখছেন?

জাহিদ হাসান: আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে পরিচালক, প্রযোজক, সিনেমা হল সবকিছু একটার সঙ্গে আরেকটা পেঁচিয়ে আছে। একজন আরেকজনকে সহযোগিতা না করলে হয় না। ছোট বেলায় বিয়ের গেট ধরে যে টাকা পেতাম তা নিয়ে দলবেঁধে ঈদের সিনেমা দেখতে যেতাম। আমাদের মধ্যে একটা উৎসবের আমেজ ছিল। এখন তো সেই উৎসবের মনোভাব নেই।  এটা হয় অনেক কারণে, হয়তো ভালো ছবি আসছে না, দলবেঁধে যে ছবি দেখব, আলোচনা করব এরকম ছবি হচ্ছে না। একটার সঙ্গে একটা মিল রেখে করলে সব ঠিক হয়ে যাবে। এজন্য কাউকে না কাউকে এগিয়ে আসতে হবে। আমি কাউকে একক দোষ দিতে চাচ্ছি না, পারস্পারিক দোষ দিচ্ছি। আমাদের দেশের অনেকেই দেশের বাইরে গিয়ে ছবি করছেন। আমরা চাইলে ভালো কিছু করতে পারব।

আরটিভি অনলাইন: ছবিটি নিয়ে দর্শকদের উদ্দেশে কী বলবেন?

জাহিদ হাসান: আমি দর্শকদের বলতে চাই উপরে আল্লাহ আর নিচে আপনারা এজন্য আমি আজকের এই অবস্থানে। আমার অনুরোধ যাই করি সব আপনাদের জন্যে। ভুল মানুষের হয়, শয়তানের ভুল কম হয়। আমরা নিজেদের মানুষ মনে করি। আপনাদের জন্যে ছবিটা করেছি। সবাই দেখবেন। আমরা খুশি হব।

জিএ