logo
  • ঢাকা শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

ফেরদৌস ব্ল্যাকলিস্টে, থেমে আছে টালিউড সিনেমার কাজ

বিনোদন ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৩৮ | আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৫৯

বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা ফেরদৌস দেশের পাশাপাশি ভারতেও বেশ জনপ্রিয়। তার অভিনয়ে মুগ্ধ হয়েছেন ওপার বাংলার মানুষ। ছবির শুটিংয়ের কাজে নিয়মিত ঢাকা-কলকাতা যাতায়াত করেন তিনি। তবে সম্প্রতি ভারতের লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে অংশ নিয়ে বেশ বেগ পোহাতে হয়েছে অভিনেতাকে। 

গত মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) চিত্রনায়ক ফেরদৌসের ভিসা বাতিল করে দেশে ফেরত পাঠানো হয়। এজন্য থেমে গেছে তার একটি ছবির শুটিং। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর সঙ্গে ‘দত্তা’ ছবির শুটিং করতে কলকাতায় গিয়েছিলেন ফেরদৌস। বোলপুরে ছবির ২০ শতাংশ শুটিং হয়েছে। এখনও নাকি ইনডোর শুটিং বাকি। এমতাবস্থায় বেশ অসুবিধায় পড়েছেন পরিচালক।

ছবির পরিচালক নির্মল চক্রবর্তী ভারতের গণমাধ্যমকে বলেন, আমার ছবির প্রায় ৮০ শতাংশ ইনডোরের কাজ বাকি। জুনে আবার শুটিং শুরু করার প্ল্যান আছে। আশা করছি ততদিনে সবটা মিটে যাবে। প্রায় ২০ বছর ধরে ফেরদৌস কলকাতায় আসছে, কাজ করছে। একটা নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়েছেন, তার জন্য ক্ষমাও প্রার্থনা করেছেন। মনে হচ্ছে ঠিক হয়ে যাবে।

‘দত্তা’ ছবিতে বিলাস বিহারীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন ফেরদৌস। ভারতে ঋতুপর্ণার সঙ্গেই প্রায় ১৫টি ছবি করেছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে কালো তালিকাভুক্ত হয়েছেন ফেরদৌস। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ভিসার শর্ত ভঙ্গ করে গত রোববার উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ আসনের তৃণমূল প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন। চলচ্চিত্রের শুটিং ও  বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান ছাড়া অন্যকিছুতে তিনি অংশ নিতে পারবেন না বলে তার শর্ত ছিল। তিনি সে শর্ত ভঙ্গ করেছেন। যদিও তার ভিসার মেয়াদ ছিল ২০২২ সাল পর্যন্ত। এছাড়া ফেরদৌস আহমেদের বিরুদ্ধে জামায়াতের মতো সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ তুলেছে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি।

তবে দেশে ফিরে (১৭ এপ্রিল) বুধবার সন্ধ্যায় সংবাদমাধ্যমে বিবৃতি পাঠিয়ে অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য ক্ষমাপ্রার্থনা করেন এই অভিনেতা।

সূত্র- ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

 

জিএ/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়