• ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০১৯, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

শহীদ রফিকের জীবন যেন সিনেমার গল্প: মাসুম শাহরীয়ার

এ এইচ মুরাদ, আরটিভি অনলাইন
|  ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪৫
ভাষা আন্দোলনের প্রথম শহীদ রফিক উদ্দিন আহমেদ। বাংলার এই সাহসী সন্তানের জীবন যেন এক সিনেমার গল্প। মায়ের ভাষায় কথা বলার অধিকারের আন্দোলনের মিছিলে অংশ নিয়ে মাত্র ২৬ বছর বয়সে জীবন দেন এই বীর বাঙালি। রফিককে নিয়ে বিস্তর কোনও তথ্য খুঁজে পাওয়া যায় না। অন্তরের টান থেকেই শহীদ রফিককে নিয়ে কিছু করার প্রয়াসে ছুটে বেড়িয়েছেন গুণী কাহিনিকার মাসুম শাহরীয়ার। সেসব তথ্যর কয়েকটি অংশ নিয়ে লিখেছেন ‘জাহানারার একটি ভাই ছিল’শিরোনামে নাটক। ২১ ফেব্রুয়ারির বিশেষ আয়োজনে নাটকটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভিতে আজ রাত ৮টায় প্রচারিত হবে। 

নাটকটি লেখার সময়ের নানা অভিজ্ঞতার কথা আরটিভি অনলাইনকে জানালেন মাসুম শাহরীয়ার।

ভাষা আন্দোলনের গল্প লেখা প্রসঙ্গে মাসুম শাহরীয়ার বলেন, ২০১৬ সালে ‘মিছিলের মুখ’ নামে ভাষা আন্দোলনের উপরে একটি নাটক লিখি। সেসময় নাটকটি আরটিভিতে প্রচারিত হয়। ওই নাটকের গল্প আরটিভি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিল। এরপর থেকে অনেকে আমার কাছে ভাষা আন্দোলনের গল্প চাইতেন। তবে ভাষা আন্দোলনের পুরো গল্পটি আমার মনে হয় টেলিভিশন মিডিয়ায় তুলে ধরা হয়নি। এর পেছনে অনেকগুলো কারণ আছে। তার মধ্যে আমার কাছে মনে হয় দুটি কারণে কাজটি করা সম্ভব হয় না। তার একটি হলো ১৯৫২ সালের ওই সময়টা বিনির্মাণ করা আমাদের ইলেকট্রনিক মিডিয়ার জন্য কঠিন। কারণ আরেকটি কারণ হলো বাজেট। ভাষা আন্দোলন বা মুক্তিযুদ্ধের নাটকের ওই সময়টা তুলে ধরার জন্য যে আয়োজন দরকার তার জন্য বাজেট গুরুত্বপূর্ণ।

‘জাহানারার একটি ভাই ছিল’নাটক নিয়ে তিনি বলেন, এই গল্পের মাধ্যমে আমি চেষ্টা করেছি তরুণ প্রজন্মের মাঝে সত্য ঘটনা তুলে ধরতে। শহীদ রফিককে নিয়ে আমি অনলাইনসহ বিভিন্ন জায়গায় তথ্য সংগ্রহ কর‍তে চেয়ে খুব বেশি কিছু পাইনি। আমি তার গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জে গিয়েছিলাম। তার পরিবারের মানুষদের সঙ্গে কথা বলেছি। শহীদ রফিকের দুরন্তপনা, শিক্ষাজীবন, ৭ বছর বয়সী ছোটবোন জাহানারাকে তিনি খুব ভালোবাসতেন এসব অনেক কিছু জেনেছি। এছাড়া স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে থেকে জানার চেষ্টা করেছি। গাছে উঠে প্রেমিকাকে দেখতেন এমন অনেক তথ্য পেয়েছি। এখনও চেষ্টা করছি যদি তাকে নিয়ে আরও তথ্য সংগ্রহ করা যায়। ‘জাহানারার একটি ভাই ছিল’নাটকটি নির্মাণ করেছেন আবু হায়াত মাহমুদ। তিনি চেষ্টা করেছেন যথাসাধ্য ভালো একটি কাজ করার। নিশো, সানজিদা প্রীতিসহ অন্যান্য যারা অভিনয় করেছেন সবার প্রচেষ্টায় দর্শক ভালো একটি নাটক দেখতে পারবেন বলে আমি আশাবাদী।

আজ নাটকটি প্রচার হবে অথচ আপনি শহীদ রফিককে নিয়ে এখনও তথ্য সংগ্রহ কেন? জবাবে মাসুম শাহরীয়ার বলেন, অনেকটা সাদা কাগজ নিয়ে এই গল্পটি লেখার কাজ শুরু করি। এখন তা পরিপূর্ণ। আমি চাই পুরো গল্পটি নিয়ে সিনেমা নির্মাণ হোক। শহীদ রফিকের জীবন যেন একটি সিনেমার গল্প। আমার উপলব্ধি থেকে এমনটা মনে হয়েছে। ভাষা আন্দোলনের প্রথম শহীদ রফিক উদ্দিন আহমেদকে নিয়ে সিনেমা নির্মাণ হবে। সেই সিনেমা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে বেঁচে থাকবে এটা আমার স্বপ্ন।  

এম/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়