logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

চলচ্চিত্র নির্মাতাকে কেন কাঁদতে হবে?

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৭ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:০০ | আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০১৮, ২০:১৪
অবাধে সাফটা চুক্তির দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে বিদেশি চলচ্চিত্র। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ঢাকাই ছবির প্রযোজক-পরিচালক-শিল্পী এবং সংশ্লিষ্টরা। লোকসানের ফলে প্রযোজকরা নতুন কোনও ছবি নির্মাণ করতে চাচ্ছেন না। এ কারণে ছবিশূন্য হয়ে পড়েছেন শিল্পী ও কলাকুশলীরা। নতুন ছবির অভাবে সিনেমা হলও বন্ধের পথে।

bestelectronics
সাফটার মাধ্যমে মূলত কলকাতার বাণিজ্যিক ছবি এদেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে। যদিও এখন পর্যন্ত মুক্তি পাওয়া ছবির বেশির ভাগই ব্যবসা করতে পারছে না। তবুও কোনও এক অজানা কারণে দিনের পর দিন বছরের পর বছর নতুন ছবি আসতেই থাকছে। অন্যদিকে ধুঁকছে ঢাকাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি।

বিগত কয়েক বছরে দেশীয় অনেক ভালো চলচ্চিত্র সাফটার ছবি আসার কারণে ভালো হল পায়নি এমন নজির আছে অহরহ। এছাড়া সাফটা বা বিনময় চুক্তির যে বিষয়টি রয়েছে সেখানেও শুভঙ্করের ফাঁকি লক্ষ্য করা যায়। কলকাতার ছবি বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে ব্যবসা করে টাকা নিয়ে যাচ্ছে ঠিকই। কিন্তু বাংলাদেশ থেকে পাঠানো হচ্ছে পুরনো এমন সব ছবি যা দেশেই ব্যবসা করেনি। কিন্তু ঢাকাই হিট ছবিগুলো হয়তো সেখানকার প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হলে কলকাতায় এদেশের শিল্পী ও কলাকুশলীদের পরিচিতি বাড়তো।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : ‘সাপলুডু’ সিনেমার শুটিং শুরু
-------------------------------------------------------

গতকাল শুক্রবার পরিচালক হাবিবুল ইসলাম হাবিবের ‘রাত্রির যাত্রী’ ছবির সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ছবিটি ১৪ ডিসেম্বর মুক্তির ঘোষণা দেয়া হয়। ‘মিট দ্য প্রেস’-এ কথা বলতে গিয়ে এক পর্যায়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন পরিচালক হাবিবুল ইসলাম হাবিব।

শোনা যাচ্ছে, ‘রাত্রির যাত্রী’র সঙ্গে সাফটার মাধ্যমে ভারতীয় সিনেমা মুক্তি দেয়া হবে। ফলে বিচলিত হয়েছেন পরিচালক। এতো বছরের স্বপ্ন এক নিমিষেই ভেঙে যাবার অবস্থা। যা কারোই কাম্য নয়।  

সংবাদ সম্মেলনে মৌসুমী বলেন, এই সিনেমার জন্য  হাবিব ভাই যে কত কষ্ট করেছেন তা আমি নিজের চোখে দেখেছি। একজন মানুষ তার স্বপ্নপূরণের জন্য এতো কষ্ট করতে পারেন তা আমার জানা ছিল না। হাবিব ভাই আজ কেঁদেছেন, তার এই কান্না আমাকেও কষ্ট দিয়েছে। আমি বিশ্বাস করি ‘রাত্রির যাত্রী’ হাবিব ভাইয়ের স্বপ্নপূরণ করবে, দর্শকের কাছে অনুরোধ থাকবে আপনারা হলে গিয়ে সিনেমাটি উপভোগ করবেন।

ছবিতে মৌসুমী ছাড়া আরও অভিনয় করেছেন অরুনা বিশ্বাস, আনিসুর রহমান মিলন, সম্রাট, শহীদুল আলম সাচ্চু, মারজুক রাসেল, নায়লা নাঈমসহ অনেকে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নায়ক ফারুক, চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেন, রাত্রির যাত্রীর অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান, নির্মাতা কাজী হায়াত, আবু মুসা দেবু, জাজের কর্ণধার আবদুল আজিজ, নাদের চৌধুরী, ডিএ তায়েব, নির্মাতা অনিমেষ আইচ।

উল্লেখ্য, দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক মুক্তবাণিজ্য চুক্তি (সাফটা)। এই চুক্তির ভিত্তিতেই অবাধে বিদেশি অর্থাৎ ভারতীয় বাংলা সিনেমা বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে।


আরও পড়ুন :

এম/এসআর

bestelectronics bestelectronics
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়