Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

একাধিক পুরস্কারে ভূষিত রায়হান শশীর ‘ডেজা ভু’

একাধিক পুরস্কারে ভূষিত রায়হান শশীর ‘ডেজা ভু’

এক ফোঁটা পানি থেকেই জীব সৃষ্টি, সুতরাং জীবন একটা সমুদ্র। আর এই জীবন সমুদ্র তীরে বসে যদি কেউ নিজের অতীতের সমস্ত হিসাব টানে তবে ভবিষ্যতের অঙ্ক মিলে যাবে। কিন্তু সমুদ্র হয়ে যাচ্ছে আক্রান্ত। কেউ কেউ সমুদ্রকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে। কারণ, তিন ভাগ জল আর এক ভাগ স্থলের এই পৃথিবীতে যদি সমুদ্র প্রতিশোধ নেয় আমরা কোথায় যাব। এরকমই একটা বিষয় ও প্রেক্ষাপট নিয়েই নির্মিত হয়েছে ‘ডেজা ভু’। এটা একটা মুক্ত দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, অসাধারণ ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক চলচ্চিত্রটিকে দিয়েছে প্রাণ।

এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ৭টি চলচ্চিত্র উৎসবের চিহ্ন লেগেছে ‘ডেজা ভু’ পোস্টারে। চলচ্চিত্র নির্মাতাদের কাছে ইন্ডিয়ার দাদা সাহেব ফালকে অ্যাওয়ার্ড একটা সম্মানজনক ব্যাপার, ডেজা ভু ১২তম দাদা সাহেব ফালকে ২০২২ চলচ্চিত্র উৎসব থেকে পেয়েছে অনারেবল জুড়ি মেনশন্ড অ্যাওয়ার্ড, ফ্রান্সের বিশ্ব কান চলচ্চিত্র উৎসবে ‘ডেজা ভু’ জিতেছে বেষ্ট ফিলোসফিক্যাল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড, এ ছাড়া জাপান-ইন্ডিয়া আয়োজিত হোয়াইট ইউনিকর্ন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে স্পেশাল জুরি অ্যাওয়ার্ড, একইভাবে স্পেশাল জুরি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে স্পেনের এলগ্রিত দি লস সিন ভয চলচ্চিত্র উৎসব থেকে। অফিশিয়াল সিলেকশান পেয়েছে লিফট অব গ্লোবাল নেটওয়ার্ক ফিল্ম ফেস্টিভাল, ফার্স্ট টাইম ফিল্ম মেকার সিজন, ফোর্থ স্ক্রিন অনলাইন ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড চলচ্চিত্র উৎসবগুলো থেকে।

ডেজা ভু প্রযোজনা করেছেন ফারাহ নাজ আলম। এর গল্প, সংলাপ, চিত্রনাট্য, পরিচালনা ও সম্পাদনা করেছেন রায়হান শশী। চিত্র গ্রাহক ছিলেন সাঈদ মুস্তাকিম অনিক, প্রোডাকশন ডিজাইন করেছেন হাসান অয়ন এবং সহযোগী পরিচালক ছিলেন তন্ময় সুর্য্য। ডেজা ভু নির্মাণ করেছে উড়ুপ ট্রপ প্রোডাকশন।

পরিচালকের মতে ডেজা ভু চলচ্চিত্রের প্রধান প্রতিপাদ্য বিষয়গুলোর অন্যতম বিষয় হলো ‘নারী ভোগ দখল করার জন্য নয়। নারী, পুরুষের চেয়েও বেশি একজন মানুষ। ‘অপর বিষয়টি হচ্ছে তিন ভাগ জল এবং একভাগ স্থলের এই পৃথিবী, মানুষ যেভাবে সমুদ্রকে দূষিত করছে, যদি কোনো দিন সমুদ্র পৃথিবীর মানুষের ওপর প্রতিশোধ নেয় তাহলে মানুষ কোথায় যাবে।’

এই চলচ্চিত্রে বিবেকের ভূমিকায় অভিনয় করছেন ইমরান হোসেন, আর জীবনের ভূমিকায় তামিম তপু (নাটোর), মুক্তার চরিত্রে অভিনয় করেছে সুমাইয়া মেহজাবিন মুন (নাটোর)। অজানা দ্বীপে থিতু হওয়া জীবনে ইমরানকে দেখা যাবে বিবেকের কথন হয়ে আবির্ভাব হতে। চমৎকার গলায় বিবেকের জীবনমুখী গান আর জীবনের মূল্যবোধ নিয়ে জীবনের সঙ্গে কথোপকথন দর্শককে বিমোহিত করবে। পরিচালক আশাবাদী ইমরান সেরা যন্ত্রসংগীত এরচেয়েও বেশি সেরা অভিনেতার পুরস্কার পাওয়ার যোগ্যতা রাখে।

ডেজা ভু চলচ্চিত্রে আরও এক জন দুর্দান্ত শিল্পী সুমাইয়া মেহজাবিন মুক্তা চরিত্রে দেখা যাবে অসাধারণ অভিনয় দক্ষতা আর শুভ্র সৌন্দর্য্যের প্রতীক হিসেবে। স্বনামধন্য পরিচালক, গল্পকার, গীতিকার, অভিনেতা, চলচ্চিত্র শিক্ষক, বিজ্ঞাপন নির্মাতা মরহুম কায়েস চৌধুরী ছিলেন ডেজা ভু চলচ্চিত্র টিমের প্রধান অভিভাবক। নিজ হাতে সমস্ত কিছু গুছিয়ে এনে দিয়ে ছিলেন সন্তানতুল্য ডেজা ভু পরিচালক রায়হান শশীকে। তার হঠাৎ চলে যাওয়ায় ডেজা ভু টিম কিছুদিনের জন্য স্তব্ধ হয়ে গেলেও পরবর্তীতে তার শিক্ষাকে সন্মান প্রদানের জন্য পূর্ণ উদ্যমে কাজ করে। যার ফলাফল আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ডেজা ভু চলচ্চিত্রটির সম্মানজনক স্বীকৃতি।

অর্থনৈতিক সমস্যা থাকলেও কোথাও থেকে কোনো স্পনসরশিপ না নিয়েই উড়ুপ ট্রপ প্রোডাকশন প্রধানত নিজেরা তৈরি হয়েছিলেন চলচ্চিত্রটি নির্মানের লক্ষ্যে। এর আগে অন্য দুই একটি চলচ্চিত্রে গুরুত্ব পূর্ণ অংশে কাজ করলেও এটি রায়হান শশীর নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র।

রাজশাহী বিভাগের নাটোর জেলায় জন্ম নেওয়া রায়হান শশী কিন্ডার গার্টেন শেষ করেন নাটোর ইসলামি একাডেমি থেকে এরপর মাধ্যমিক শেষ করেন স্বনামধন্য সরকারি বালক উচ্চবিদ্যালয় এবং উচ্চমাধ্যমিক শেষ করেন নবাব সিরাজ উদ দৌলা নাটোর থেকে, এরপর পারি দেন রাজধানীতে। এরপর থেকেই তার এই চলচ্চিত্র নির্মাণের পেছনের যাত্রা শুরু হয়।

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS