Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

আরিয়ানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রমাণ মেলেনি

আরিয়ানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রমাণ মেলেনি

শাহরুখ খানের বড় ছেলে আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে ভারতীয় কেন্দ্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থার (এনসিবি) বেশ কিছু অভিযোগকে আমলে নিলেন না দেশটির হাইকোর্ট। পাশাপাশি এনসিবি যে জবানবন্দি জমা দিয়েছিল, তার আইনি ভিত্তি নেই বলে উল্লেখ করা হয়েছে। মুম্বাই হাইকোর্ট থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এটা কেবল তদন্তের প্রয়োজনে ব্যবহার হতে পারে।

গত ২৮ অক্টোবর মাদক মামলায় জামিন পান আরিয়ান। আজ শনিবার (২০ নভেম্বর) সেই মামলার বিস্তারিত রায় প্রকাশ করেছে মুম্বাই হাইকোর্ট। ১৪ পৃষ্ঠার রায়ে বিচারপতি নীতিন সামব্রে জানিয়েছেন, মাদক মামলায় আরিয়ানদের গভীর উদ্দেশ্য ছিল বলে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) পক্ষ থেকে যে দাবি করা হয়েছে, তা খারিজ করে দেওয়া হচ্ছে। অভিযুক্তরা সেই জাহাজে যাচ্ছিলেন- শুধু সেই ভিত্তিতে তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনের ২৯ নম্বর ধারা প্রয়োগ করা যাবে না।

বিচারপতি জানিয়েছেন, অভিযোগের ভিত্তি হিসেবে আবেদনকারীদের কাছে কোনো মাদক ছিল কি না, তা আদালতকে খতিয়ে দেখতে হবে। সেখানে আরিয়ানের থেকে কোনো মাদক উদ্ধার হয়নি। আরবাজ এবং মুনমুনের থেকে যে মাদক উদ্ধার করা হয়েছে, তা মাদক আইন অনুযায়ী ‘কম’। সেই পরিস্থিতিতে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের ধারা প্রয়োগ করতে ‘ইতিবাচক প্রমাণ’ লাগবে। যা থেকে বোঝা যাবে যে, বেআইনি কাজ করতে কোনো রকম চুক্তি হয়েছিল আরিয়ানদের কিংবা পূর্বনির্ধারিত কোনো বিষয় ছিল। কিন্তু প্রাথমিকভাবে তেমন কোনো বিষয় মেলেনি। আপাতত যা তদন্ত হয়েছে, তা থেকে উঠে এসেছে যে মুনমুনের সঙ্গে যাননি আরিয়ান এবং আরবাজ।

পাশাপাশি আরিয়ানের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটেও কোনো ষড়যন্ত্রের প্রমাণ মেলেনি বলে জামিনের রায়ে জানিয়েছেন হাইকোর্ট। রায়ে জানানো হয়েছে, শাহরুখ খানের পুত্রের ফোন থেকে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট পাওয়া গিয়েছে, তা খুঁটিয়ে দেখার পর এমন কোনো প্রমাণ মেলেনি, যা থেকে ইঙ্গিত পাওয়া যায় যে আরিয়ান এবং আরবাজ বা আরিয়ান, আরবাজ এবং মুনমুন বা অন্য অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে কোনো ষড়যন্ত্র তৈরি করা হয়েছিল। যেহেতু ষড়যন্ত্রের কোনো প্রমাণ মেলেনি, তাই ৩৭ ধারায় জামিনের কঠোর নিয়ম কার্যকর হবে না।

এনএস

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS