Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮

বিনোদন ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ১৫ এপ্রিল ২০২১, ১৫:১৯

লকডাউনে ইফতার কিনতে বের হয়ে তামাশা দেখলেন ফারুক

লকডাউনে ইফতার কিনতে বের হয়ে তামাশা দেখলেন ফারুক

শুরু হয়েছে পবিত্র মাহে রমজান। একইদিনে সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। এমন পরিস্থিতিতে ঘরেই ছিলেন অভিনেতা ফারুক। কিন্তু ইফতারি কিনতে বাইরে বের হতেই পাড়া মহল্লায় আড্ডা, তামাশা দেখে তাজ্জব হয়ে গেলেন এই অভিনেতা।

এ প্রসঙ্গে ফারুক বলেন, ‘গতকাল ইফতার কেনার জন্য বিকালে বাসা থেকে বের হয়েছি। ধারনা ছিল লকডাউনে রাস্তা থাকবে জনশূন্য। গলির মুখে গিয়ে দেখি এলাহি কারবার। গলিতে শত শত মানুষের জটলা। উৎসব মুখর পরিবেশ। বেশিরভাগ লোকজন মাস্কবিহীন ঘুরে বেড়াচ্ছে। কোথায় মহামারী কোথায় কি? আমি অবস্হা দেখে তাজ্জব বনে গেলাম। হায় হায় একি অবস্হা? লকডাউন মানে অতি জরুরি কাজ না থাকলে ঘর থেকে বাইরে যাওয়া যাবেনা। মহামারীর প্রকোপ কমাতে এই ব্যবস্হা। লোকজনের হাবভাব দেখে মনে হচ্ছে জনগণকে কষ্ট দেওয়ার জন্য এই ব্যবস্হা নেয়া হয়েছে।‘

তিনি আরও বলেন, ‘কিছুক্ষণ পর দেখি গলির মুখে পুলিশ। পুলিশ দেখামাত্র শত শত লোক বিপরীত দিকে দৌড় শুরু করলো। কিছুক্ষণের মধ্যে গলি ফাঁকা। আমি রাস্তার একপাশে দাঁড়িয়ে রইলাম। পুলিশ আমার পাশ দিয়ে চলে গেল। মুখে বলে গেল, কেউ জরুরি কাজ ছাড়া বাইরে বের হবেন না। পুলিশ চলে যাওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে সমস্ত গলিপথ আবার পূর্বের অবস্হায় ফিরে এলো। শত শত লোকজন গলির রাস্তায় বের হয়ে এলো। কিছুলোক হয়তো জরুরি দরকারেই বের হয়েছে। বাকিরা বের হয়েছে তামাশা দেখতে আর আড্ডা দিতে।’

এই অভিনেতা বলেন, ‘আমি তাড়াতাড়ি একটা হোটেলে ঢুকে কিছু ইফতারি কিনে বাসায় চলে এলাম। করোনা পরিস্হিতি এখন ভয়াবহ। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে সকলকে আরও বেশি সচেতন হতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। লকডাউনের সময় যথাসম্ভব ঘরে থাকতে হবে।’

এদিকে ফারুক নিজে একটি স্লোগান বানিয়েছেন- সেটা তিনি নিজেই প্রচার করছেন, 'মহামারি করোনা। মাস্ক ছাড়া ঘুরোনা।'

এনএস

RTV Drama
RTVPLUS