Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ৯ বৈশাখ ১৪২৮

এ আর রহমানের বাড়িটিই যেন একটি পিয়ানো!

এ আর রহমানের বাড়িটিই যেন একটি পিয়ানো!
সংগৃহীত

মাত্র চার বছর বয়সে কিবোর্ড বাজানো শিখেছিলেন সঙ্গীতের জাদুকর এ আর রহমান। তখন থেকেই সুরের জগতের প্রতি আকৃষ্ট হন তিনি। নয় বছর বয়সে বাবার মৃত্যুর পর তার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। সেই বয়সেই পরিবারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন অস্কারজয়ী এই সংগীতশিল্পী।

পরবর্তীকালে ‘রুটস’ নামে একটি গানের ব্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত হন এ আর রহমান। সেখানে কিবোর্ড বাজিয়ে যা উপার্জন করতেন তা দিয়েই সংসার চালাতেন। দীর্ঘ কঠোর পরিশ্রমে নিজের স্বপ্নপূরণ করেছেন। ২০০৮ সালে ‘স্লামডগ মিলিয়নিয়র’ এর সৌজন্যে অস্কার প্রাপ্তির পর ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছে যান তিনি।

চেন্নাই এবং মুম্বইয়ে একটি করে বাড়ি রয়েছে তার। তবে গানের জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশ, বিভিন্ন শহরে ছুটে বেড়ান তিনি। সবচেয়ে বেশি যাতায়াত করেন লস অ্যাঞ্জেলসে। তাই সেখানেও নিজের একটি বাড়ি কিনেছেন এই গায়ক।

কোনও গানে সুর দেওয়ার আগে প্রচণ্ড মনোযোগের প্রয়োজন হয়। এদিক থেকে চেন্নাইয়ের বাড়ির অন্দরমহল তার জন্য উপযুক্ত। এই বাড়ির মধ্যে মিউজিক স্টুডিও গড়ে তুলেছেন তিনি। এ আর রহমানের চেন্নাইয়ের বাড়িটিই যেন একটি পিয়ানো। যার সামনে আবার বসার ব্যবস্থাও রয়েছে। এছাড়া তার লস অ্যাঞ্জেলসের বাড়িতেও রয়েছে একটি স্টুডিও। সূত্র- আনন্দবাজার

এনএস

RTV Drama
RTVPLUS