পুরস্কার জিতেছে ‘বাতিক বাবু’

প্রকাশ | ০৫ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৫২

বিনোদন ডেস্ক
পুরস্কার পেয়েছে জিয়াউল হক রাজু নির্মিত ‘বাতিক বাবু’

গ্লোবাল ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল বাংলাদেশ ২০২০, ন্যাশনাল ক্যাটাগরিতে হীরালাল সেন শ্রেষ্ঠ বাংলাদেশি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগে পুরস্কার পেয়েছে জিয়াউল হক রাজু নির্মিত ‘বাতিক বাবু’। এই গল্পটি সত্যজিৎ রায়-এর ছোট গল্প থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মিত করা হয়েছে।

২৬ থেকে ২৮ ডিসেম্বরে বান্দরবানে অনুষ্ঠিত গ্লোবাল ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শিত হয় ‘জিয়াউল হক রাজু'র নির্মিত ‘বাতিক বাবু’ এবং শ্রেষ্ঠ বাংলাদেশি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগে পুরস্কিত হয়।  এছাড়া সিনেম্যাকিং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে স্পেশাল মেনশন পুরস্কার অর্জন করে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বাতিকবাবু।

এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি তার পরিচালিত ৪র্থ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। ফিল্মের প্রযোজক বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইনস্টিটিউট (বিসিটিআই)।

এই চলচ্চিত্রে বাতিকবাবু চরিত্রে অভিনয় করেছেন তৌফিকুল ইমন।  আরো যারা অভিনয় করেছেন হাসনাত রিপন, দিপু বড়ুয়া, জোহান, বিভাইয়ুন।

ছোট্ট একটি বোতাম খোঁজার প্রথম সাক্ষাতের ক্ষণটিই আদনানকে বাতিকবাবুর প্রতি আগ্রহী করে তোলে। সবার কাছে যেটা রাস্তায় পাওয়া জিনিস তার কাছে সেটা বহুমূল্য। বাতিকবাবু তার আলমারি ভর্তি খুঁজে পাওয়া তুচ্ছ জিনিসপাতি যেমন চশমার কাচ, হাতের দস্তানা ইত্যাদির ঘটনা সমেত বর্ণনা করেন। কুড়িয়ে পাওয়া প্রত্যেকটি জিনিসের পেছনে কিছু গল্প, ঘটনা রয়েছে এবং অদ্ভুত ভাবে সেগুলো কোনো না কোনো অস্বাভাবিক এবং আকস্মিক মৃত্যুর সত্য ঘটনা, যার দৃশ্য বাতিকবাবু ওই জিনিসগুলো দেখা মাত্রই চোখের সামনে দেখতে পান।

নির্মাতা জিয়াউল হক রাজু বলেন, আমি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইনস্টিটিউট (বিসিটিআই) থেকে চলচ্চিত্র নির্মাণ বিষয়ে ২ বছর ব্যাপ্তি স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা করেছি। এই বাতিকবাবু চলচ্চিত্রটি আমার চূড়ান্ত ডিপ্লোমা চলচ্চিত্র। 

এই চলচ্চিত্রটি নির্মাণের পেছনে অনেক গল্প রয়েছে যা কিনা আমাকে প্রতি মুহূর্তে আমাকে খুব অনুপ্রেরণা দেয়।  এই গল্পটি আমি সর্বপ্রথম ৪ বছর আগে আমার এক বন্ধুর মুখে শুনি।  অতঃপর আমি সেই সময় থেকেই এই গল্পটিকে নিয়ে চলচ্চিত্র বানানোর কথা ভাবা শুরু করি। সেই সময় আমি আমার ক্যামেরা বিক্রি করে এই গল্পকে সঙ্গে করে নিয়ে গল্পের আসল লোকেশন দার্জেলিং এ চলে যাই এবং সত্যজিৎ রায় স্যার এর লেখা গল্পের লোকেশন গুলো দাঁড়িয়ে গল্পটিকে অনুভব করার চেষ্টা করি। সেই সময় বিভিন্ন কারণে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করতে পারিনি।  এরপর ৪ বছর পর আমার চূড়ান্ত পরীক্ষায় এই চলচ্চিত্রটি বানানোর চিন্তা আবার মাথায় চেপে বসে। আমার মেন্টর হায়দার রিজভি স্যার এবং অভিজিৎ দাসগুপ্ত স্যার এর সহযোগিতায় সন্দীপ রায় স্যার -এর সঙ্গে যোগাযোগ করে গল্পের অনুমতি নিয়ে চলচ্চিত্রটির নির্মাণ কাজ শুরু করি রাঙামাটিতে। আমার এই চলচ্চিত্রটির নির্মাণ কাজের সঙ্গে সঙ্গে আরো যারা জড়িত তারা হলেন, সম্পাদক মোস্তফা প্রকাশ, সিনেমাটোগ্রাফার খালেক সাদমান, প্রোডাকশন ডিজাইনার জুবায়ের হোসাইন, শিল্প নির্দেশক সাগর ও প্রদীপ, লোকেশন সাউন্ড রুদ্র কাউসার, লাইন প্রোডিউসার সাজজাদ  মাহমুদ চৌধুরী, সাউন্ড ডিজাইন অনিক আহমেদ, মিউজিক মেহেদী হাসান তামজীদ, সহকারী পরিচালক বিভাইয়ুন চাকমা এবং লোকেশন সহযোগিতায় দিপু বড়ুয়া, জোহান জন, বিভাইয়ুন চাকমা।  এই টীম মেম্বারদের সহযোগিতায় চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করা সম্ভব হয়েছে। এই চলচ্চিত্রের সঙ্গে জড়িত সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।  

 

এছাড়াও জিয়াউল হক রাজু কাগজের ঘুড্ডি নামক ৫ মিনিটের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। যা কিনা দেশি বিদেশি অনেক জায়গায় পুরস্কৃত হয়েছে। 

AUW Film Festival 2018   - (First Runner Up Award)

Human Rights Film Festival (United Nation) 2018 - (Official Selection)

PLURAL+ Video Festival, UNAOC and IOM, 2019  - (Media Education Award)

Toulouse Indian Film Festival, France 2020 -  (Audience and Jury Awad)

NSU International Short Film Festival 2020 -  (Honorary Award )

TFP Film Festival 2019   - (Official Selection)

2nd South Asian Film Festival Kolkata 2019 - (Official Selection)

12th International Children Film Festival 2019    - (Official Selection)

11th International Inter University Short Film Festival, 2019  - (Official Selection)

Swadeshi Film Festival, 2019  -(Best Child Actor)

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা জিয়াউল হক রাজু পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের স্বপ্ন দেখেন। ফিচার সিনেমার জন্য একটি চিত্রনাট্য নিয়ে কাজও চলছে। তার পাশাপাশি আরো কিছু স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য স্ক্রিপ্ট প্রস্তুত করছেন।  সামনেই স্বপ্নের প্রকল্পে নেমে পড়বেন তিনি।

এম