দেশের অর্থনীতি এখন খারাপ অবস্থায়: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশ | ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৮:১৭ | আপডেট: ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৮:২৫

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল

দেশের অর্থনীতি এখন খারাপ অবস্থায় রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তবে বছর শেষে এই অবস্থা থেকে উত্তরণ সম্ভব হবে বলে মনে করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড (বিডিবিএল) এর ম্যানেজারদের বার্ষিক কনফারেন্স অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, শুধু বাংলাদেশে নয়, এই মুহূর্তে সারা বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দার মধ্যে দিয়ে চলছে। কোনো দেশেই আমদানি-রপ্তানি সঠিকভাবে হচ্ছে না। আমদানি-রপ্তানি কমে যাচ্ছে। বাংলাদেশের কিছু সেক্টরে এর প্রভাব পড়েছে। তবে আশা করি বছর শেষে এই সেক্টরগুলোর আর পিছিয়ে থাকবে না। আমদানি-রপ্তানির অবস্থা ভালো হয়ে যাবে।

ব্যাংক খাতের অবস্থাও খুব ভালো নয় ইঙ্গিত করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যাংকগুলো যদি ভালো চলতো, তাহলে ব্যাংকগুলোকে মার্জ করতে হতো না।

মুস্তফা কামাল বলেন, ১৯৯৭ সালে বিশ্বব্যাপী অর্থনীতির অবস্থা খারাপ ছিল। এরপর ২০০৯ সালে দ্বিতীয় দফায় খারাপ অবস্থার সৃষ্টি হয়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দূরদর্শিতার কারণে এখন সেই অবস্থা থেকে উত্তোরণ হয়েছে। দেশের অর্থনীতির ভিত গড়ে উঠেছে। এ কারণেই গত ১০ বছরে বাংলাদেশের অর্থনীতি সারাবিশ্বে রোল মডেল হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি একজন ব্যবসায়ী। কিন্তু আমি ঋণ খেলাপি নই। আপনাদের (কর্মকর্তা) বিতরণকৃত ঋণ খেলাপি হয়ে যাওয়ার কারণে সংসদে আমাকে গালি শুনতে হয়। আপনারা বলেন, এটা কি আমার জন্য হয়েছে? আপনাদের জন্য না? কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রশ্ন রাখেন অর্থমন্ত্রী।

বিডিবিএলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, আপনাদের মধ্যে সবাই খারাপ রয়েছেন তা বলবো না। কিছু সংখ্যক লোক রয়েছে যারা খারাপ। বাংলাদেশ ব্যাংক, কিংবা অর্থ মন্ত্রণালয় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আগে, নিজেরা নিজেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। শাস্তি দিন। কারণ খারাপ কর্মকর্তাদের জন্য যখন ঋণ ক্ষতিগ্রস্ত হয় তখন পুরো ব্যাংককেই এর ভুক্তভোগী হতে হয়। আর আপনাদের কারণে সংসদে আমাকে গালি শুনতে হয়।

বিডিবিএল ব্যাংকের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে মুস্তফা কামাল বলেন, শিল্পখাতে অবদান রাখার জন্য এই ব্যাংকের সৃষ্টি। শিল্পের মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরি করার জন্য আপনারা জাতির কাছে দায়বদ্ধ। ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা, মালিকানা ও দেখাশোনাসহ সব কিছুর দায়িত্ব আপনাদের।

এসজে