logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

পাকিস্তানকে ‘বাঁচাতে’ ৬০০ কোটি ডলার দিচ্ছে আইএমএফ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৩ মে ২০১৯, ১৫:২২ | আপডেট : ১৩ মে ২০১৯, ১৫:৩২
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান
ঋণের ভারে খাবি খাচ্ছে পাকিস্তানের অর্থনীতি৷ অর্থ সমস্যা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে সরকার৷ এ অবস্থায় দেশটিকে ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার বেল-আউট দিচ্ছে আন্তর্জাতিক অর্থ তহবিল (আইএমএফ)।

দীর্ঘ দিন আইএমএফের কাছে এই টাকার জন্য ধর্ণা দিচ্ছে ইসলামাবাদ৷ একাধিক বৈঠকের পর রোববার ইসলামাবাদের সঙ্গে আইএমএফ-এর ৬০০ কোটি মার্কিন ডলারের বেল-আউট চুক্তি হয়েছে৷

এই নিয়ে আইএমএফ-এর থেকে ২২ বার আর্থিক সাহায্য পাচ্ছে পাকিস্তান৷

ভারতের একটি মিডিয়ায় বলা হয়েছে, পাকিস্তানের অর্থনীতি এতটাই খারাপ অবস্থায় রয়েছে যে, দেশটি ঋণ পরিশোধ করতে পারছে না৷ জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে প্রতিদিন৷ মুদ্রাস্ফীতি আকাশছোঁয়া৷ এ অবস্থায় আইএমএফ-এর কাছে হাত পাতা ছাড়া অন্য উপায় নেই পাকিস্তানের৷

আইএমএফর প্রতিনিধিদলের প্রধান রেমিরেজ রিগো বলছেন, পাকিস্তানের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা ও বাণিজ্যিক ঘাটতির অর্থ পূরণ করাই এই চুক্তির মূল উদ্দেশ্য৷ পাকিস্তানে ব্যবসার পরিবেশ তৈরি করা, সরকারি কাজে স্বচ্ছতা আনা, সামাজিক খাতে ব্যয় বাড়ানোর মতো কার্যকলাপগুলোকে সুনিশ্চিত করা দরকার৷

পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী আবদুল হাফিজ শেখ জানান, আগামী ৩ বছরে পাকিস্তানকে বিভিন্ন ধাপে ৬০০ কোটি ডলার দেবে আইএমএফ৷ আইএমএফ ছাড়াও বিশ্বব্যাংক ও এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক থেকে ২০০ থেকে ৩০০ কোটি ডলার আর্থিক সহায়তা আগামী ৩ বছরে পাবে পাকিস্তান৷

তিনি বলেন, পাকিস্তানের বাণিজ্য ঘাটতি এখন ২০ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। এছাড়া বৈদেশিক রিজার্ভের পরিমাণ গত দুই বছরে প্রায় অর্ধেক কমেছে। এ কারণে আমাদের বার্ষিক পেমেন্টে ১২০০ কোটি ডলারের গ্যাপ তৈরি হয়ে গেছে। এই অর্থ পরিশোধে সক্ষমতা আমাদের নেই।

বর্তমানে পাকিস্তানের অর্থনীতি বিধ্বস্ত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে এনডিটিভির খবরে। সেখানে গত শুক্রবার পাকিস্তান সরকারের একটি ডাটা দিয়ে দেশটির অর্থনীতি নিয়ে পূর্বাভাসও দেয়া হয়েছে।

পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাকাউন্ট কমিটির পূর্বাভাস অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরে পাকিস্তানের প্রবৃদ্ধি গত ৮ বছরে সর্বনিম্নে পৌঁছাবে। এ সময়ে প্রবৃদ্ধি দাঁড়াবে ৬ দশমিক ২ শতাংশে।

এস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়