logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

দেশের শেয়ারবাজারে কেন দরপতন হচ্ছে?

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৩১ | আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৫৪
আজ ডিএসই ও সিএসইর চিত্র
দেশের শেয়ারবাজারে আবারও বড় দরপতন হয়েছে। প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবকটি সূচকের বড় পতন হয়েছে। সেইসঙ্গে ডিএসইর লেনদেন কমে আবারও ৩০০ কোটি টাকার নিচে নেমেছে।

শেয়ারবাজারে টানা দরপতনের মধ্যে সংবাদ আসে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল।

এই সংবাদের ভিত্তিতে গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার ও চলতি সপ্তাহের রোববার শেয়ারবাজারে কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী ছিল।

কিন্তু অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যের পরদিন বাজারে নেতিবাচক প্রভাব দেখা গেলো।

অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ওই রকম কোনও এজেন্ডা নিয়ে বৈঠক করিনি। সামনে জাতীয় বাজেট আছে। পুঁজিবাজারের দিকে আমাদের খেয়াল আছে। অর্থনীতির সঙ্গে পুঁজিবাজারের একটা সম্পর্ক রয়েছে। পুঁজিবাজার ভালো হওয়া দরকার। এ সময় পুঁজিবাজার স্বাভাবিক আছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আজ মঙ্গলবার দেশের পুঁজিবাজার পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৬২ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ২৬০ পয়েন্টে নেমে গেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২১৫ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ২০ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৮৭২ পয়েন্টে নেমে গেছে।

ডিএসইতে টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ২৯৮ কোটি ৬২ লাখ টাকার। যা আগের কার্যদিবস থেকে ৫৩ কোটি ২২ লাখ টাকা কম। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৩৫১ কোটি ৮৪ লাখ টাকার।

এদিন ডিএসইতে ৩৪২টি প্রতিষ্ঠান লেনদেনে অংশ নেয়। এর মধ্যে ৩৪টির শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২৬৭টির এবং দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টির।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএসসিএক্স ৯১ পয়েন্ট কমে ৯ হাজার ৭৫৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১২ কোটি ৭১ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেয়া ২৪১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩৬টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৮৭টির।

এদিকে বাজারে পতনের মধ্যেই এক অনুষ্ঠানে সিপিডি বলছে, বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির যে ধরনের জোরালো ভূমিকা নেয়ার কথা, অধিকাংশ ক্ষেত্রে তা দেখা যায় না। কিছু কিছু ক্ষেত্রে বিএসইসি পদক্ষেপ নেয় বটে, তবে বাজারের কারসাজি বন্ধে দুষ্টচক্র থামানোর যে উদ্যোগ নেয়ার কথা, সেক্ষেত্রে বড় কোনও উদ্যোগ দেখা যায় না।

এস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়