• ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

যাদু ‍ভিশন ও ন্যাশন ওয়াইডকে ১৫ দিনের বেশি সময় দেবে না সরকার

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১০ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:০৮ | আপডেট : ১০ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৩০
যাদু ‍ভিশন ও ন্যাশন ওয়াইডকে ১৫ দিনের বেশি সময় দেবে না সরকার
ডাউন লিংক করে দেখানো বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন বন্ধে বিতরণকারী দুটি প্রতিষ্ঠানকে নোটিশ দেয়া হয়েছিল। তারা নোটিশের জবাব দিয়ে বলেছে, পুরো বিষয়টি জানাতে তাদের ১৫ দিন সময় লাগবে। সে আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছে। তবে অনির্দিষ্ট কোনও সময় দেয়া হবে না। বললেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

whirpool
আজ বুধবার সচিবালয়ে টেলিভিশন চ্যানেল মালিক সমিতির (অ্যাটকো) নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এ তথ্য জানান।

বিদেশি চ্যানেল প্রদর্শনের সময় বিজ্ঞাপন প্রচার নিষিদ্ধ রেখে ২০০৬ সালে ‘ক্যাবল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক আইন’ করে সরকার।

নিষিদ্ধ হওয়ার পরও ১৩ বছর ধরে তা মানা হচ্ছিল না। দেশের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে এ অপকর্ম করে আসছিল একটি চক্র। ফলে দেশের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হওয়ার পাশাপাশি পাচার হচ্ছিলো মোটা অংকের অর্থ।

টিভি চ্যানেলগুলোর ক্রমাগত আপত্তির মুখে অবশেষে নড়েচড়ে বসে কর্তৃপক্ষ। শুরু হয় আইনের বাস্তবায়ন।

চলতি এপ্রিলের শুরুতে তথ্য মন্ত্রণালয় দুটি পরিবেশক (ডিস্ট্রিবিউটর) সংস্থা ন্যাশনওয়াইড মিডিয়া লিমিটেড এবং জাদু ভিশন লিমিটেডকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠায়। নোটিশের জবাব দিয়েছে পরিবেশক সংস্থা দুটি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আইন অনুযায়ী ডাউন লিংক করে দেখানো বিদেশি চ্যানেলে কোনও বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে না। এ ধরনের আইন অন্যান্য দেশেও আছে। আমরা শুধু আইন বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নিয়েছি। আমরা কোনও টিভি চ্যানেল বন্ধ করিনি। তেমনটা করার উদ্দেশ্যও নেই।

তিনি বলেন, বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন বন্ধের বিষয়ে বিতরণকারী ন্যাশনওয়াইড মিডিয়া লিমিটেড এবং যাদু ভিশন লিমিটেডকে নোটিশ দেয়া হয়েছিল। তারা নোটিশের জবাব দিয়ে বলেছে, পুরো বিষয়টি জানাতে তাদের ১৫ দিন সময় লাগবে। সে আবেদন মঞ্জুর করা হয়েছে। তবে ১৫ দিনের বেশি বা অনির্দিষ্ট কোনও সময় দেয়া হবে না।

বৈঠকে বর্তমানে টেলিভিশনগুলোর অবস্থা ও নিজেদের দাবি তুলে ধরেন অ্যাটকোর নেতারা।

তারা এসময় এক বছরের সময় বেঁধে দিয়ে টিভি চ্যানেলগুলো ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনতে ব্যবস্থা নেয়ারও আহ্বান জানান।

এস/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়