• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, ৪ মাঘ ১৪২৫

ছুটির দিনে বাণিজ্য মেলায় মানুষের ঢল

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ১৮:৫১ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:০১
রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে শুরু হয়েছে মাসব্যাপী ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। ২৪তম এই মেলা শুরুর পর আজ শুক্রবার ছিল প্রথম ছুটির দিন। মানুষের বিপুল উপস্থিতিতে মনে হয়েছে শহরের সব পথ যেন এসে মিলেছে আগারগাঁওয়ে বাণিজ্য মেলার মাঠ প্রাঙ্গণে।

বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্রের সামনে থেকে শুরু হয়েছে মেলামুখী মানুষের ঢল। শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে সব বয়সী মানুষ আছে তাতে। বেশির ভাগ দর্শনার্থীই এসেছেন আত্মীয়স্বজন, পরিবার-পরিজন নিয়ে। মেট্রো রেলের আদলে তৈরি মেলা ফটক পার হতে ছোটদের ২০, বড়দের ৩০ টাকার টিকিট লাগছে।

ক্রেতাদের আকর্ষণের জন্য প্যাভিলিয়নগুলোকে সাজানো হয়েছে দৃষ্টিনন্দন সাজে। শিশু পণ্যের স্টল সাজানো হয়েছে শিশুদের বিনোদনের উপযোগী করে। এছাড়া ক্রেতাদের জন্য বিশেষ ছাড়ে বিভিন্ন প্যাকেজ এবং উপহার তো রয়েছেই। মেলায় সবচেয়ে বেশি ভিড় দেখা গেছে গৃহস্থালি পণ্য, ইমিটেশনের গয়না, নিত্যব্যবহার্য পণ্য ও কসমেটিকসের স্টলগুলোতে।

এদিকে দেশি-বিদেশি বহুজাতিক পণ্য প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি মেলায় রয়েছে ক্ষুদ্র প্রতিষ্ঠানের স্টলও। কেউ ঘুরে ঘুরে নতুন আসা পণ্য দেখছেন, কেউবা আবার কিনে ফেলছেন পছন্দের প্রয়োজনীয় পণ্য।

কথা হয় ফামর্গেটের রাজাবাজার থেকে আসা মুরাদ পারভেজের সঙ্গে। পরিবার নিয়ে মেলায় এসেছেন তিনি। তিনি আরটিভি অনলাইনকে বলেন, শুক্রবার দিন রাজধানীর বিভিন্ন স্থান ঘুরে থাকি। কিন্তু বাণিজ্য মেলার সময় প্রতি শুক্রবার পরিবার নিয়ে মেলায় আসি। এর মাঝে কোনো পণ্য পছন্দ হলে কিনে নিয়ে থাকি। এবার মেলার প্রধান ফটক বানানো হয়েছে মেট্রোরেলের আদলে। কিন্তু মজার বিষয় পাশেই মেট্রোরেলের কাজ চলছে। গেটটি খুবই পছন্দ হয়েছে।

পশ্চিম পাশের ফোয়ারার পাশের চত্বরে ক্লান্ত হয়ে একটু জিরিয়ে নিচ্ছিলেন সুস্মিতা চৌধুরী। তিনি আরটিভি অনলাইনকে বলেন, দুপুরের খাবারের পর সপরিবারে এসেছেন মেলায়। রান্নাঘরের সরঞ্জামই কিনেছেন বেশি। মেয়ের পরীক্ষা শেষ। বেড়ানোর বায়না করছিল। তো বেড়ানোও হলো, মেলায় কেনাকাটাও হলো। ভালই লাগছে ঘুরতে।

তিনি আরও বলেন, মেলায় শুধু বেচাকেনাই নয়, দেখার কিছু বিষয়ও আছে। বিশেষ করে শিশুদের বিনোদনের সুযোগ যেমন আছে, তেমনি শিক্ষামূলক বিষয় আছে। যেখান থেকে তারা ইতিহাসও জানতে পারবে।

মেলার দর্শকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, নির্দিষ্ট কোনো কিছু কেনার পরিকল্পনা নিয়ে তারা আসেননি। মূল উদ্দেশ্য বেড়ানো। নতুন কী জিনিসপত্র এল, দরদাম কেমন এসব যাচাই-বাছাই করা। পছন্দ হলে কিছু কেনাকাটা করা। এ রকমই জানালেন বনশ্রী থেকে আসা গৃহিনী শাপলা চাকমা। সাথে তার মেয়ে মানহা চাকমাকেও নিয়ে এসেছেন।

তিনি আরটিভি অনলাইনকে বলেন, মেলা থেকে সবজি কাটা ও মাংস কিমা করার একটি সেট কিনেছেন। বাচ্চাকে কিনে দিয়েছেন খেলনা।

এদিকে মেলায় যত লোকসমাগম হয়েছে, সেই তুলনায় দেখা গেল কেনাকাটা কম বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা। তারা আশা করছেন আগামী কয়েকদিনের মধ্যে মেলায় কেনাকাটা বৃদ্ধি পাবে।

৯ জানুয়ারি শুরু হওয়া মাসব্যাপী এ মেলা ৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হবে। মেলার গেট ও বিভিন্ন স্টল প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

আরো পড়ুন:

এমসি/এমকে 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়