• ঢাকা সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩ পৌষ ১৪২৬

আজ দেশে আসছে বিমানের দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০১ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:২৭
ফাইল ছবি
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ২য় বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ দেশে আসছে। যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে এভারেট ডেলিভারি সেন্টারে উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান  বোয়িং  বিমানের কাছে চাবি দিয়ে মালিকানা হস্তান্তর করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ২৯ নভেম্বর সকালে  মালিকানা হস্তান্তর অনুষ্ঠান হয়। বিমানের দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার হংসবলাকার আজ বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৪টায় ঢাকা পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

western মালিকানা হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বোয়িং পরিচালক (ডেলিভারি কন্ট্রাক)  জন বর্বার,  উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক  (মধ্য প্রাচ্য, সাউথ এশিয়া)  এহসেন রাজপুত উপস্থিত ছিলেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পরিচালক (ফ্লাইট অপারেশন) ক্যাপ্টেন ফারহাত হাসান জামিল মালিকানা বুঝে নেন।

বিমানটি বুঝে নিতে বিমান পরিচালনা পর্ষদ, নির্বাহী পরিচালক ও কর্মকর্তাসহ ৩২ জন গিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। এরমধ্যে বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রনালয়, আইন মন্ত্রনালয়, সংসদ সচিবালয়, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ ও অর্থায়নকারী ব্যাংকের প্রতিনিধিরা রয়েছেন।

রাতে এক নৈশ ভোজের আয়োজন করে বোয়িং। সেখানে বোয়িং এর প্রতিনিধি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জিয়া উদ্দিন, বিমান পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ও  জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের  চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসনে ভুঁইয়া, ব্যারিস্টার তানজিব উল আলম, পরিচালক (ফ্লাইট অপারেশন)ক্যাপ্টেন ফারহাত হাসান জামিল, পরিচালক (প্রকৌশল) খন্দকার সাজ্জাদুর রহিম, মহাব্যবস্থাপক  (জনসংযোগ)শাকিল মেরাজ, এইচএসবিসি ব্যাংকের উপ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা  মাহবুবুর রহমান, আইএফআইসি ব্যাংকের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনসুর মোস্তফা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

অনুষ্ঠানে  বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জিয়া উদ্দিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের মধ্যে সুদৃঢ় বাণিজ্য সম্পর্ক রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে বিমানের সরাসরি ফ্লাইট চালু হলে এ সম্পর্ক আরও বৃদ্ধি পাবে। এ ক্ষেত্রে বোয়িং এর সহায়তা কামনা করেন তিনি। 

অনুষ্ঠানে বোয়িং এর জেষ্ঠ্য ব্যবস্থাপনা পরিচালক (মার্কেট অ্যানালাইসিস) ডারেন হুলস্ট বলেন, বিমান ও বোয়িং এর সম্পর্ক দুটি প্রতিষ্ঠানকে ব্যবসায়ীকভাবে সফল করতে সহায়ক। ফার্নবোরো এয়ারশোতে বিমানের জন্য তৈরি করা ড্রিমলাইনারটি সবার নজরে ছিলো। বিমানের সহায়তার জন্য আমরা ধন্যবাদ জানাই।

যুক্তরাষ্ট্রে স্থানীয় সময় ৩০ নভেম্বর সকালে ফিতা কেটে ড্রিমলাইনার হংস বলাকার  যাত্রা শুরু হয়। যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল পেনফিন্ড থেকে বিজি ২১১২ ফ্লাইটি ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে সকাল ১১টায়।

বাংলাদেশে সময় ১ ডিসেম্বর বিকেল সাড়ে ৪টায় ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করার কথা রয়েছে।  এরমধ্যে দিয়ে বিমানবহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়াবে ১৫টি।

বিরতিহীনভাবে ১৫ ঘন্টা বিমানটি চালিয়ে নিয়ে আসবেন বিমানের ৪ জন পাইলট। পাইলটরা হলেন, ক্যাপ্টেন স্মলস্কি, ক্যাপ্টেন মো. আমিনুল, ক্যাপ্টেন শোয়েব চৌধুরী ও ফার্স্ট অফিসার আনিতা রহমান। ফ্লাইট পার্সার শবনম কাদিরসহ ৫ জন কেবিন ক্রু দায়িত্ব পালন করবেন। 

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ২০০৮ সালে মার্কিন বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য ২ দশমিক ১ বিলিয়ন ইউএস ডলারের চুক্তি করে। ইতোমধ্যে বহরে যুক্ত হয়েছে ছয়টি বিমান। বাকি চারটি বিমান হলো বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার। এর প্রথমটি ১৯ আগস্ট দেশে আসে। চারটি ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজের নাম পছন্দ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ড্রিমলাইনারে আসন সংখ্যা ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ২৪টি আর ২৪৭টি ইকোনমি ক্লাস। বিজনেস ক্লাসে ২৪টি আসন ১৮০ডিগ্রি পর্যন্ত সম্পূর্ণ ফ্ল্যাটবেড হওয়ায় যাত্রীরা আরমদায়কভাবে বিশ্রাম নিতে পারবেন। ড্রিমলাইনারে ৪৩ হাজার ফিট উচ্চতায় যাত্রীরা ওয়াই-ফাই সুবিধা পাবেন।

এসআর

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়