Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

পঞ্চগড়ে ঘণ্টায় ঘণ্টায় লোডশেডিং, দুর্ভোগ চরমে

নেসকো

পঞ্চগড়ে গত দুদিন ধরে ঘণ্টায় ঘণ্টায় লোডশেডিং চলছে। মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) দুপুরের পর ২০ থেকে ২৫ বার টানা লোডশেডিং হয়। এতে আবাসিক এলাকার বিদ্যুৎ গ্রাহকরা পড়েন বিপাকে। একদিকে প্রচণ্ড গরম আবহাওয়া অপরদিকে বিদ্যুৎ বিভ্রাটে মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে চরমে।

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) রাতে পৌরসভা এলাকার বিভিন্ন এলাকায় মানুষ বাসা-বাড়ি ছেড়ে রাস্তায় বসে বিদ্যুতের জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। বর্তমানে এই অবস্থায় জনগণের সমস্যা নিয়ে কেউ এগিয়ে আসছে না বলে অভিযোগ তাদের।

কঠোর লকডাউনে অফিস-আদালত, কল-কারখানা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ সেবা না পেয়ে ব্যবহারকারীরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। লো ভোল্টেজসহ খন্ডকালীন বিদ্যুৎ সরবরাহে আবাসিক বিদ্যুৎ গ্রাহকরা সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছেন। ফলে পানি সরবরাহ এবং রান্নায় দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে যারা ইলেকট্রিক চুলায় রান্নার কাজ করেন তারা বেশি সমস্যায় পড়েছেন।

জেলা শহরের কামাতাপাড়া এলাকার সাহিদা খাতুন আরটিভি নিউজকে জানান, পানি, রান্না-বান্না সকল কাজে বিদ্যুতের ব্যবহার করতে হয়। গত দুদিন ধরে ঠিকমত রান্না-বান্না করতে পারছি না। দিন-রাতে ১৫ থেকে ২০ বার লোডশেডিং হচ্ছে।

পঞ্চগড় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম আরটিভি নিউজকে জানান, জনগণ আমাকে বারবার ফোন করে তাদের দুর্ভোগের কথা জানাচ্ছেন। ১০ মিনিট বিদ্যুৎ থাকলে তার দুই ঘণ্টা থাকে না। বিদ্যুৎ নিয়ে ভেলকিবাজি চলছে। বিদ্যুৎ বিভাগ কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে সক্ষম নয়।

নেসকো নির্বাহী প্রকৌশলী আতিফুর রহমান আরটিভি নিউজকে জানান, পঞ্চগড়ে ২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করার সক্ষমতা রয়েছে নেসকোর। বর্তমানে ৩৩ হাজার কেভি দুটি পাওয়ার ট্রান্সফরমার দিয়ে পঞ্চগড় জেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। কিন্তু মঙ্গলবার দুপুরে একটি ট্রান্সফরমারের এইচটি বুস হঠাৎ করে জ্বলে যায়। সে জন্য পঞ্চগড়ে বিদ্যুৎ বিভ্রাট চলছে এবং একটি ট্রান্সফরমার হতে বিদ্যুৎ সাপ্লাই দিতে হচ্ছে। তবে এই ঘটনার পর থেকেই রংপুর থেকে তিন সদস্যের একটি টিম পঞ্চগড়ে সাব স্টেশনে পুরাতন বুস দিয়ে ট্রান্সফরমার সচল করার কাজ করছে।

এসআর/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS