Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

গরু প্রতি ১০০ টাকা না দেয়ায় ভারতীয় বলে নিলামে বিক্রি

ফাইল ছবি

রাজশাহী কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ২২টি গরু আটকানোর পর ভারতীয় হিসেবে নিলামে তুলে বিক্রি করেছে। এ ঘটনায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের চার কৃষকের দাবি, গরুগুলো ভারতীয় নয়। স্থানীয়ভাবে পালন করেছেন তারা। বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) দুপুরে গরুগুলো ৯ লাখ ৩৫ হাজার টাকায় নিলামে বিক্রি করা হয়েছে। গরুগুলো নিলামে কিনেছেন রাজশাহী নগরীর হরগ্রাম এলাকার রুবেল ইসলাম।

চার কৃষকের দাবি, চেকপোস্টে টাকা না দেয়ায় গরুগুলো অর্ধেক মূল্যে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে। গরুগুলো ফেরত পাওয়ার জন্য রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের কাছে শুক্রবার (১৬ জুলাই) সকালে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তারা। কৃষকরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের বেগুনবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা সেলিম, মইদুল ও রহিম এবং বাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য সাদিকুল ইসলাম। এদের মধ্যে সেলিমের ৮টি, মইদুলের ৪টি, রহিমের ৫টি এবং সাদিকুলের ৫টি গরু।

সাদিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, গরুগুলো আমাদের সবার নিজ বাড়িতে লালন-পালন করা। ঈদকে কেন্দ্র করে বেশি দামের আশায় আমরা চারজন মিলে ট্রাক ভাড়া করে চট্টগ্রাম নিচ্ছিলাম। আশা ছিল ২২টি গরু কম-বেশি ২০ লাখ টাকা বিক্রি হবে। কিন্তু বুধবার দুপুর ১টার দিকে রাজাবাড়ি বিজিবি চেকপোস্ট ট্রাক আটকিয়ে গরুগুলোর কাগজপত্র দেখতে চায়। আমরা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মালিকানা ছাড়পত্র ও চেয়ারম্যানের প্রত্যায়নপত্র দেখাই।

তিনি আরও জানান, সেখানকার একজন কাগজপত্র দেখার পর গরু প্রতি ১০০ টাকা করে আমাদের কাছে দাবি করেন। তখন আমি নিজের ইউপি সদস্য পরিচয় দেই। তখন ওই ব্যক্তি গালাগাল শুরু করেন এবং এক পর্যায়ে গরুসহ ট্রাক নিয়ে রাজশাহী শহরে পাঠিয়ে দেয়। পরে তা কাস্টমস অফিসে পাঠায়।

বাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাদেরুল ইসলাম জানিয়েছেন, গরুগুলো ওরা যার যার বাড়িতে লালন-পালন করেছেন। দেশি জাতের গরু এসব। গরু আটকের খবর পেয়ে আমি রাজশাহী গিয়ে বিজিবি ও কাস্টমস কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে তাদের জানিয়েছি বিষয়টি। তারা আমার কোনো কথা বিশ্বাস করেনি।

বিজিবি-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাব্বির আহমেদ গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, গরুগুলোর কাগজপত্র তাৎক্ষণিকভাবে দেখাতে না পারায় কাস্টমসে দেয়া হয়। তবে দেশি না ভারতীয় গরু তা যাচাই-বাছাই বা নিলামের দায়িত্ব কাস্টমসের।

কাস্টমস পরিদর্শক শাহরিয়ার হাসান সজীব জানিয়েছেন, গুদামে গরু দেয়ার সময় বিজিবি ও কাস্টমস সদস্যরা বলেছিলেন গরুর কোনো মালিক পাওয়া যায়নি। ট্রাক থামানোর পর ভারতীয় গরু বলে সবাই পালিয়ে যায় ঘটনাস্থল থেকে।

এসআর/পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS