Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮

জয়পুরহাট প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২২ জুন ২০২১, ২২:৩৮
আপডেট : ২২ জুন ২০২১, ২২:৫৯

প্রাথমিকের ছাত্রীকে দপ্তরীর ধ'র্ষণ, ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা ২ নেতার

গ্রেপ্তারকৃত দুইজন

পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে দপ্তরী কাম নৈশপ্রহরী এবং ধর্ষণের ঘটনা চাপা দেয়ার জন্য ইউপি মেম্বারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বীরনগর এলাকায়। অভিযুক্তরা হচ্ছেন দপ্তরী কাম নৈশপ্রহরী মেহেদী হাসান (২৫) ও বালিঘাটা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম মামুন (৩৫)। উপজেলা কৃষক লীগের যুগ্ম-আহবায়ক আলীমুজ্জামান বাবুল (৪৫) পলাতক রয়েছে।

আরও পড়ুন...অনলাইনে পড়ার নামে পর্ন ভিডিও দেখে শারীরিক সম্পর্ক, গর্ভবতী ১৫ বছরের কিশোরী

মঙ্গলবার (২২ জুন) দুপুরে গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলা ও থানা সূত্রে জানা যায়, বুধবার (১৬ জুন) সন্ধ্যায় বীরনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশপ্রহরী মেহেদী হাসানের বাড়ি পরীক্ষার প্রশ্ন পত্র নিতে আসে এক স্কুলছাত্রী। এ সময় মেহেদীর বাড়ি কেউ থাকায় ওই ছাত্রীকে পাশের একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে সে। বাড়ি ফিরে ছাত্রী তার মা-বাবাকে জানালে তারা স্থানীয় ইউপি সদস্য ও গণ্যমান্য ব্যক্তিকে বিষয়টি জানায়। ধর্ষণের ঘটনাটি অর্থের বিনিময়ে আপোষ করে ধামাচাপা দেয়াসহ মেয়ের পরিবারকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম মামুন ও উপজেলা কৃষক লীগের যুগ্ম-আহবায়ক আলীমুজ্জামান বাবুল। পরে এ ঘটনায় সোমবার (২১ জুন) রাতে ভুক্তভোগীর মা বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণের মামলা করেন।

আরও পড়ুন...১ কেজি আম পৌনে ৩ লাখ টাকা, গাছ পাহারায় সশস্ত্র রক্ষী!

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব বলেন, ভুক্তভোগীর মা বাদী হয়ে ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহযোগিতার মামলা করলে রাতেই নৈশ প্রহরী ও ইউপি সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল-হাজতে পাঠানো হয়। বাকী আসামিকে গ্রেপ্তার করতে চেষ্টা চলছে। এছাড়া ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এসআর/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS