logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭

রাজশাহী প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৫১
আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৫৬

সৌদি আম বাংলাদেশে নিবন্ধন পেল

Saudi, mango, registered, Bangladesh
সৌদি আম বাংলাদেশে নিবন্ধন পেল

সৌদি থেকে আনা রঙিন আমের চারা বাংলাদেশে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে। রঙিন আমের জাতটি জাতীয় বীজ বোর্ড থেকে নিবন্ধন পেয়েছে। অবশ্য এর আগেও কয়েকটি রঙিন জাতের আম জাতীয় বীজ বোর্ড নিবন্ধন দেওয়া হয়েছে।

রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্র রঙিন আম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করেছিল। এরপর দীর্ঘদিন গবেষণা করা হয়। গবেষণা শেষে জাতীয় বীজ বোর্ড নিবন্ধিত করলো। রঙিন আমটির নাম হয়েছে ‘বারি আম-১৪’।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ফল গবেষণা কেন্দ্রের সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা গোলাম মর্তুজা সৌদি আরব যান। সেখানে আমবাগান নিয়ে গবেষণার কাজ করতেন। ২০১০ সালে তিনি ‘টমিএটকিনস’জাতের আমগাছের ডাল সংগ্রহ করে দেশে এনে রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রে দেন। এরপর ১০টি গাছে ওই ডালের কলম করা হয়।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আলীম উদ্দীন বলেন, ১০টি গাছে কলম করা হলেও নয়টি গাছই মরে যায়। যত্নে মাত্র একটি গাছকে বাঁচিয়ে রাখা যায়। সেখান থেকে এখন চারটি মাতৃগাছ তৈরি করা হয়েছে। গত ১০ বছর ধরে গবেষণা করা হয়েছে। তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা হয়েছে। প্রায় প্রতিবছরই গাছে রঙিন আম পাওয়া গেছে।

তিনি আরও বলেন, আমটি জুলাই মাসের শেষে পাকে। আম পাকার আগেই মেরুন রঙ ধারণ করে। আমের গড় ওজন প্রায় ৫৫০ গ্রাম। এর ভক্ষণযোগ্য অংশ ৭৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ। গড় মিষ্টতা (টিএসএস) ২২ দশমিক ৮৩ শতাংশ। আমটি লম্বায় ১০ দশমিক ৮৩ সেন্টিমিটার ও প্রস্থ ৮ দশমিক ৪৯ সেন্টিমিটার। খোসা পাতলা ও মাংসল। নিবন্ধন পাওয়া জাতটির ধরণ ‘ইনব্রিড’।

ড. আলীম উদ্দীন বলেন, আম নিবন্ধন পাওয়ায় তারা এখন যত বেশি সম্ভব চারা উৎপাদন করবেন। তারপর সরকারি নার্সারিগুলোতে দেবেন। রঙিন আমের চারা এখন চাষি পর্যায়ে খুব বেশি দেয়া সম্ভব না হলেও আগ্রহীদের অন্তত একটি করে তারা দিতে চান। এছাড়া ব্যক্তিমালিকানাধীন বিভিন্ন নার্সারিতেও দু-একটি করে দেয়া হবে, যেন জাতটি ছড়িয়ে পড়ে। ধীরে ধীরে এটি সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS