Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

স্ত্রীর সহায়তায় কিশোরীকে ধর্ষণ, ভিডিও ভাইরালের হুমকি

তিন নম্বর স্ত্রীর সহায়তায় কিশোরী ধর্ষণ, ভিডিও ভাইরালের হুমকি
প্রতীকী ছবি

ময়মনসিংহে স্ত্রীর সহায়তায় এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক রাজনৈতিক নেতার বিরুদ্ধে। ধর্ষণের ভিডিও ভাইরালের দেয়ার ভয় দেখিয়ে টানা কয়েক মাস ধর্ষণ করা হয় ওই কিশোরীকে (১৩)।

অভিযুক্ত ব্যক্তি ময়মনসিংহ নগরীর কৃষ্টপুর এলাকার বাসিন্দা হোসেন আলী (৫০) । তিনি জাতীয় পার্টির সহযোগী সংগঠন জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির ময়মনসিংহ জেলা সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তামান্না হোসেনের তৃতীয় স্ত্রী।

বিষয়টি র‌্যাব-১৪ কার্যালয়ে জানানো হলে রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাতে অভিযুক্ত হোসেন আলীকে (৫০) গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হলে মামলা শেষে সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

জানা গেছে, হোসেন আলীর বাসার পাশেই ভাড়াটে বাসায় পরিবারের সঙ্গে বসবাস করতেন ওই কিশোরী। একই এলাকায় বাসা হওয়ায় হোসেন আলীর পরিবারের সঙ্গে কিশোরীর পরিবারের সখ্য গড়ে ওঠে। চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি কিশোরীকে বাসায় ডেকে নেন হোসেনের স্ত্রী তামান্না আক্তার। বাসায় নেওয়ার পর শরবতের সঙ্গে চেতনানাশক মিশিয়ে দেন। এতে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে কিশোরীকে ধর্ষণ ও তা ভিডিও ধারণ করেন হোসেন।

এরপর ধারণ করা ভিডিও দেখিয়ে জিম্মি করা হয় কিশোরীকে। হোসেনের কথামতো কাজ না করলে ওই ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়া হয়।

এরপর টানা কয়েক মাস মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন হোসেন। আর সব সময় সহায়তা করেন স্ত্রী তামান্না। এক পর্যায়ে বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে পরিবারটি বাসা পরিবর্তন করে নগরীর অন্য একটি এলাকায় চলে যান। সেখানেও লোকজন নিয়ে মেয়েটিকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেন হোসেন। পরে র‌্যাবকে জানানো হলে রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাতে হোসেনকে গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালি থানায় হস্তান্তর করে র‍্যাব-১৪।

ধর্ষণের ঘটনায় তার বাবা বাদী হয়ে ওই দিন রাতেই থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এতে হোসেন ও তার তৃতীয় স্ত্রীকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ হোসেনকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে। অন্যদিকে কিশোরীর মেডিকেল পরীক্ষা ও আদালতে জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ কামাল আকন্দ আরটিভি নিউজকে বলেন, কিশোরীকে ধর্ষণে হোসেনের স্ত্রীর সম্পৃক্ততা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই নারী পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এসজে/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS