logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬

শ্যামলীতে গার্মেন্ট শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২১ আগস্ট ২০১৯, ১২:২২ | আপডেট : ২১ আগস্ট ২০১৯, ১২:২৭
সড়ক অবরোধ
ঈদের ছুটিতে গিয়েছিলেন শ্রমিকরা। ছুটি শেষে এসে দেখেন গার্মেন্ট বন্ধ। নোটিশ ছাড়া গার্মেন্টটি বন্ধ করায় সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে বকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলনে নামেন শ্রমিকরা। আর তাতেই সৃষ্টি হয় যানজটের।

রাজধানীর শ্যামলীর মিরপুর রোড অবরোধ করে বুধবার সকালে বকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলনে নামেন আলিফ অ্যাপারেলস নামে একটি গার্মেন্টের কর্মীরা। তারা জানান, নোটিশ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তাই তারা সড়কে অবরোধ করেছেন।

বুধবার সকাল ১০টা থেকে অবরোধ শুরু হলে শ্যামলী থেকে কল্যাণপুর হয়ে টেকনিক্যাল এবং শ্যামলী থেকে কলেজগেট হয়ে আসাদগেট পর্যন্ত যানজটের সৃষ্টি হয়। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশের অনুরোধ ও চেষ্টায় অবরোধকারীরা রাস্তা থেকে সরে গেলে যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

---------------------------------------------------
আরো পড়ুন: শীতলক্ষ্যা তীরের ৩০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
---------------------------------------------------

গার্মেন্টকর্মীরা জানান, গত ১১ আগস্ট তারা ঈদের ছুটিতে যান। ঈদের ছুটি শেষে আজ গার্মেন্ট খোলার কথা ছিল। সকালে এসে তারা গার্মেন্টের গেটে তালাবদ্ধ অবস্থায় পুলিশি পাহাড়া দেখতে পান। আজ থেকে গার্মেন্ট বন্ধ এমন একটি নোটিশ গেটে টানিয়ে দেয়া হয়। এটা দেখে ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করেন। শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ।

ভুক্তভোগী শ্রমিক আলেয়া বেগম জানান, বিজিএমইএ’র আইন অনুযায়ী একটি গার্মেন্ট কারখানা বন্ধের তিন মাস আগে শ্রমিকদের অবহিত করে তাদের পাওনা পরিশোধ করতে হয়। আমাদের কিছুই জানানো হয়নি। আমাদের না জানিয়ে বেতন-বোনাস না দিয়ে হঠাৎ বন্ধ করে দিয়েছি। আমাদের পাওনা টাকা না পেলে আমরা রাস্তা থেকে সরবো না।

মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বুলবুল জানান, আমরা শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে তাদের সরিয়ে দিয়েছি। ঘটনাস্থলে মোহাম্মদপুর থানার ওসি জিজি বিশ্বাসসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়