Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

দৌলতদিয়া ঘাটে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন, ভোগান্তি চরমে

দৌলতদিয়া ঘাট

করোনা রোধে বিধিনিষেধের ৫ম দিন মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুর থেকে দৌলতদিয়ায় ফেরিতে কোনো যাত্রী ও অপ্রয়োজনীয় ব্যক্তিগত গাড়ি পার হতে পারছে না।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) বেলা ১২টার দিকে দৌলতদিয়া ৫নং ফেরিঘাটে গিয়ে দেখা যায়, গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রফিকুল ইসলাম সেনাবাহিনী, পুলিশ, আনসার বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে ফেরি থেকে ব্যক্তিগত মাইক্রোবাস, মোটর সাইকেল ও যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছেন। ফলে এদিন বৃষ্টির মধ্যে দৌলতদিয়া ঘাটে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত যাত্রীরা ঘাটে অবস্থান করে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। তবুও তারা আশায় অপেক্ষা করছেন যদি প্রশাসন দয়া করে ঘাটে আসা যাত্রীদের পার হতে দেয়।

কয়েকজন যাত্রী জানান, প্রয়োজনের তাগিদে ও বেসরকারি চাকরি বাঁচাতে ভোগান্তি আর নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বাড়তি ভাড়ায় ঘাটে এসে ফেরিতে উঠে শেষ পর্যন্ত নদী পার হতে পারলেন না। এখন তাদের কাছে বাড়ি ফিরে যাওয়ার ভাড়াও নেই।

গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ঘাটে যাত্রীদের নিয়ন্ত্রণের জন্য চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। তাছাড়া আজ ফেরি থেকে যাত্রী ও বিনা প্রয়োজনে ব্যক্তিগত যানবাহনগুলো নামিয়ে দেয়া হয়েছে। যৌক্তিক কারণ ছাড়া কাউকে ঘাটে কিংবা ঢাকার অভিমুখে যেতে দেয়া হচ্ছে না। প্রশাসন জানায়, কঠোর লকডাউন থাকা পর্যন্ত দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে কোনো যাত্রী বা অপ্রয়োজনীয় গাড়ি পার হতে দেয়া হবে না।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডাব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. জামাল হোসেন বলেন, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে বর্তমানে ৮টি ফেরি সচল রয়েছে। জরুরি ও লকডাউনের আওতার বাইরের যানবাহন পারাপারে এসব ফেরি সচল রাখা হয়েছে। ঘাটে অপেক্ষায় কোনো গাড়ি নেই।

এসআর/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS