Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

আরটিভি নিউজ

  ১৩ এপ্রিল ২০২১, ১৬:৪৪
আপডেট : ১৩ এপ্রিল ২০২১, ১৮:৫৭

লকডাউন কাল, আজ ঢাকায় যানজট

লকডাউন কাল, আজ ঢাকায় যানজট

করোনা মহামারি ভয়াবহ রূপ নেওয়ায় আগামীকাল থেকে সারাদেশে শুরু হতে যাচ্ছে কঠোর লকডাউন। ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত আট দিনের জন্য নতুন করে বিধিনিষেধ (লকডাউন) ঘোষণা করেছে সরকার। এজন্য আজ মঙ্গলবার রাজধানীজুড়ে মানুষ ঘর থেকে কেনাকাটায় বের হয়েছে। অনেকে রাজধানী ছেড়ে বিভিন্ন বাহনে গ্রামে যাচ্ছেন। সেজন্য সকাল থেকেই রাজধানীজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

সকাল থেকে বিকাল অবধি সড়কের তীব্র যানজট দেখে বোঝারই উপায় নেই প্রতিদিন করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে।

গত কয়েকদিনে কিছুটা স্বস্তি নিয়ে চলাচল করা গেলেও আজ ব্যস্ততম এলাকার সবগুলো পয়েন্টেই বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানজট বাড়তে থাকে। বিকেলের দিকে এর মাত্রা আরো বাড়ে। ট্রাফিক সিগন্যালে কোথাও কোথাও দীর্ঘক্ষণ যানজট লেগে থাকার দৃশ্যও দেখা গেছে। কেউবা কাজের উদ্দেশ্যে ছুটছেন কর্মস্থলে, কেউবা কেনাকাটা আবার অনেকে কোন কাজ ছাড়াই রাস্তায় বেরিয়েছেন।

রাজধানীর গুলিস্তান, পল্টন, কাকরাইল, শাহবাগ, মৌচাক, মালিবাগ, মগবাজার, কারওয়ান বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে যানজটের চিত্র এমনই লক্ষ্য করা গেছে।

পথচারীরা বলছেন, নতুন করে লকডাউন দেয়ার ঘোষণায় তারা কেনাকাটা সেরে নিচ্ছেন। কারণ এক সপ্তাহের কথা বলা হলেও আসলে কতদিন লকডাউন চলবে তা নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছেন না। অন্যদিকে দোকানপাট ও শপিংমল বিকাল ৫টায় বন্ধ হয়ে যাবে তাই অনেকে কড়া রোদের মধ্যেও ভরদুপুরে মার্কেটে ছুটেছেন।

রাজধানীর কাকরাইল মোড়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন শিহাব। তিনি বলেন, ধানমন্ডি জিগাতলা যাওয়ার জন্য আধ ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়ে আছি। বাস আছে কিন্তু সিট না থাকায় উঠতে পারছি না। তিনি আরও বলেন, গত কয়েকদিন বাস চলাচল করলেও এতো বাস ছিল না। আজ এখন পর্যন্ত অনেক বাস চলে গেছে কিন্তু সিট ফাঁকা না থাকায় উঠতে পারছি না।

মৎস্য ভবন এলাকায় বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন লুৎফুর রহমান। তিনি বলেন, রাস্তার অবস্থা দেখে যেন মনে হচ্ছে ঈদের ছুটি লাগছে। সব রাস্তায় জ্যাম। অনেকে বাস না পেয়ে হেটে যেতে দেখা গেছে।

রাজধানীর মার্কেটগুলো ছিল খোলা, সেখানে নারী পুরুষ এমনকি শিশুদের ভিড়ও ছিল চোখে পড়ার মতো। বিভিন্ন মার্কেট মালিকদের দাবি তারা পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করেই মার্কেট খুলেছেন, তবে তা সঠিকভাবে পালন করতে দেখা যায়নি দোকানি কিংবা ক্রেতাদের। এই সুযোগে মানুষ গ্রামের বাড়িতে ফিরতে শুরু করেছে।

আটকে থাকা এক রিকশা যাত্রী জানান, আগামীকাল থেকে আট দিন কঠোর লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আর এর মধ্যে রোজাও শুরু হয়ে যাচ্ছে। সেজন্য কেনাকাটা করতে সন্তানকে নিয়ে বের হয়েছিলাম। এখন মার্কেটে যাওয়ার পথে জ্যামে আটকা পড়েছি। আজ প্রচুর মানুষ বের হয়েছে বাড়ি থেকে, তাই হয়তো যানজট।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শর্তে পল্টন এলাকায় ট্রাফিকের দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্য বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েছে, এরমধ্যে সরকার সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষাণা করেছে। কিন্তু সাধারণ মানুষের মধ্যে এসব নির্দেশনার খুব বেশি প্রভাব ফেলেনি। বরংচো আগামী আট দিনের বাজার একদিনে করায় বিভিন্ন নিত্যপণ্যের দাম বাড়ছে।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS