logo
  • ঢাকা সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭

পানির ট্যাংকে শিশুর পচা মরদেহ, ঝুনঝুনি দেখে পরিচয় মিললো

পানির ট্যাংকে শিশুর পচা মরদেহ, ঝুনঝুনি দেখে পরিচয় মিললো

গাজীপুর থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি শিশু নিহাদ ইসলাম (৩) নিখোঁজ হয়। শিশুটি নিখোঁজ হওয়ার চার দিন পর খোঁজ মিললেও তাকে আর জীবিত পাওয়া যায়নি। গত মঙ্গলবার শ্যামপুরের একটি তিনতলা বাসার ছাদের পানির ট্যাংক থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

আজ বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) নিহাদের কোমরে বাঁধা চাবি ও ঝুনঝুনি দেখে পরিচয় শনাক্ত করলো তার বাবা হানিফ আলী।

শ্যামপুর থানার উপপরিদর্শক মাহবুবুর রহমান বলেন, গাজীপুরে শিশু নিহাদ তার বাবা-মার সঙ্গে থাকত। গত ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে শিশুটি নিখোঁজ হওয়ায় তার বাবা-মা অপহরণ মামলা করেন। তবে অপহরণ মামলায় সন্দেহভাজন কারও নাম উল্লেখ করা হয়নি। বাবা হানিফ আলীসহ অন্যরা শ্যামপুর থানায় আসেন। শিশুটির মরদেহ পচে যাওয়ায় তার চেহারা চেনা যাচ্ছিল না। অভিভাবকেরা তার কোমরে দড়ি দিয়ে বাঁধা চাবি ও ঝুনঝুনি দেখে নিশ্চিত হন মরদেহটি নিহাদের।

নিহাদের বাবা হানিফ আলী বলেন, নিহাদের মা নার্গিস বেগম তার কর্মস্থল সততা মিনি সুয়েটার ফ্যাক্টরিতে গত ২০ ফেব্রুয়ারি নিয়ে যান। খেলতে খেলতে নিহাদ ফটকের বাইরে চলে গেলে মুখোশ পরা এক ব্যক্তি তাকে ধরে নিয়ে যায়। প্রতিষ্ঠানটির সিসি ক্যামেরায় এমন একটি ফুটেজ পেয়েছেন তারা।

নিহাদের মরদেহ ঢাকা মেডিকেলের মর্গে আছে। পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার বেংহাড়ী হানিফ আলীর গ্রামের বাড়ি।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS