Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

দরজায় র'ক্ত দেখে পুলিশকে ফোন, ছেলে জানলো বাবা খু'ন ও মা গুরুতর আহত

ঘটনাস্থলে পুলিশ

চাঁদপুরে দুর্বৃত্তের হাতে খুন হয়েছে স্বামী মো. নুরুল আমিন (৬৫) আর অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন স্ত্রী কামরুন নাহার (৫৫)। বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) দুপুর দুইটার দিকে পুলিশ নুরুল আমিনের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং কামরুন নাহারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। মৃত নুরুল আমিন অবসরপ্রাপ্ত সমাজসেবা কর্মকর্তা।

শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের নাওড়া গ্রামে বাড়ি তৈরি করে নুরুল আমিন ১৯৯৭ সাল থেকে বসবাস করে আসছেন। এই বাড়িতে তিনি ও তার স্ত্রী বসবাস করতেন। স্ত্রী কামরুন নাহার পার্শ্ববর্তী কুমিল্লা জেলার বরুড়া উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে কর্মরত।

কামরুন্নাহারের বড় বোন শিরিন বেগম বলেন, তার বোনের দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। পিতা-মাতার খোঁজ না পেয়ে দুপুরে তার ছেলে জাকারিয়া বাবু পার্শ্ববর্তী লোকদের ফোন করে। স্থানীয় লোকজন তাদের ঘরের দরজা বন্ধ দেখে তাকে জানায় ঘরের দরজায় রক্ত লেগে আছে। তাৎক্ষণিক বাবু বিষয়টি শাহরাস্তি থানা পুলিশকে জানায়।

শাহারাস্তি থানার অফিসার ইনর্চাজ আব্দুল মান্নান বলেন, সংবাদ পেয়ে চাঁদপুর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুদীপ্ত রায়, পিবিআই, সিআইডি, গোয়েন্দা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশের ৪টি ইউনিট ঘটনাটি তদন্ত করছে।

তিনি আরও বলেন, পুলিশ এসে নুরুল আমিনের মরদেহ একতলা বাড়ির ছাদ থেকে উদ্ধার করে এবং তার স্ত্রীকে ঘরের মধ্যে আহত অবস্থায় পাওয়া যায়। তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। তাদের ঘরে সমস্ত জিনিসপত্র সঠিকভাবে আছে। কোনো কিছু এলোমেলো নেই, ডাকাতি হয়েছে বলেও মনে হয় না। ঘটনাটি খুবই রহস্যজনক।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুদীপ্ত রায় বলেন, নুরুল আমিনের মাথায় ও মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাত এবং গলায় দাগ রয়েছে। ক্ষত জায়গায় পচন ধরেছে। মনে হচ্ছে ঘটনাটি দু-তিন দিন আগের।

এসআর/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS