Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮

সিরিয়ার যুদ্ধফেরত ‘আইটি বিশেষজ্ঞ জ'ঙ্গি’ রি'মান্ডে

Returned to Syria war ‘IT expert militant’ remanded
গ্রেপ্তারকৃত সাখাওয়াত হোসেন লালু

সিরিয়া ও ইন্দোনেশিয়ায় ‘জিহাদী কার্যক্রম’ চালিয়ে ফিরে আসা নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের সদস্য সাখাওয়াত হোসেন লালুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। তাকে শনিবার (১২ জুন) বিকেলে আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ডে চাওয়া হলে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম হোসেন মোহাম্মদ রেজা ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের এসআই রাছিব খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এরআগে গতকাল শুক্রবার (১১ জুন) নগরীর দক্ষিণ খুলশী আবাসিক এলাকার আহলে হাদিস জামে মসজিদ এলাকা থেকে নগরীর দামপাড়া এম এম আলী রোড এলাকার বাসিন্দা সাখাওয়াতকে (৪০) গ্রেপ্তার করা হয়।

নগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা জানান, ২০১৭ সালে বাংলাদেশ থেকে তুরস্ক হয়ে সিরিয়া যান সাখাওয়াত হোসনে। সেখানে প্রশিক্ষণ ও যুদ্ধ শেষে ইন্দোনেশিয়া গিয়ে ‘জিহাদী’ কার্যক্রম পরিচালনা করেছিলেন। ২২ মার্চ ইন্দোনেশিয়া থেকে দেশে ফিরে আসেন। সাখাওয়াৎ ইন্টারনেটে বিভিন্ন জিহাদী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আনসার আল ইসলামের ‘আইটি বিশেষজ্ঞ’ হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। আনসার আল ইসলামের পলাতক নেতা, সেনাবাহিনী থেকে বরখাস্ত সৈয়দ জিয়াউল হকের সঙ্গেও সাখাওয়াতের দেখা হয়েছিল।

২০১৭ সালে বাংলাদেশ থেকে তুরস্ক গিয়ে সেখান থেকে অবৈধভাবে সিরিয়া ঢুকেছিলেন সাখাওয়াত। সেখানে ‘হায়াত তাহরীর আরশাম’ নামে একটি সংগঠনে থেকে ভারী অস্ত্রচালনার প্রশিক্ষণ নিয়ে সিরিয়ার ইদলিব শহরে যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

সিরিয়া থেকে পুনরায় তুরস্ক ফিরতে ১০ দফা চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছিলেন সাখাওয়াত। পরে ১১ তম দফায় তিনি সফল হন। এরপর তুরস্কে কিছু দিন থেকে সাখাওয়াত ২০১৯ ইন্দোনেশিয়াতে চলে যান। সেখানে স্ত্রী, শ্বশুর, শাশুড়ি, সন্তানদের নিয়ে যান।

জঙ্গি শাখাওয়াতের বিরুদ্ধে কাউন্টার টেরোরিজমের উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাছিব খান বাদী হয়ে চট্টগ্রামের খুলশী থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা দায়ের করেছেন। সেই মামলাতেই তাকে রিমোন্ডে নেওয়া হয়েছে।

কেএফ

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS