logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭

স্ত্রীর স্বীকৃতি চাওয়ায় তিন বন্ধুকে নিয়ে পোশাককর্মীকে ধর্ষণ

  জয়পুরহাট প্রতিনিধি, আরটিভি অনলাইন

|  ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:২১ | আপডেট : ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:৪৫
ধর্ষণ শিশু অভিযোগ
ধর্ষণের অভিযোগে আটক পোশাক কর্মীর সাবেক স্বামী ও তার বন্ধু
জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বাগুয়ান এলাকার ছোট যমুনা নদীর তীরের নির্জন স্থানে এক গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ করার অভিযোগে সাবেক স্বামী মেহেরুল ইসলাম (২২) ও তার সহযোগী গোপাল চন্দ্র বর্মণকে (২০) আটক করেছে পুলিশ।

গেল শনিবার সন্ধ্যায় ধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে রাতে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেন। ধর্ষণের অভিযোগে রাতেই উপজেলার কেশবপুর এলাকা থেকে গৃহবধূর সাবেক স্বামী ও তার সহযোগীকে আটক করতে সক্ষম হলেও অপর সহযোগী পালিয়ে যায়। 

আটককৃতরা হলেন- ধর্ষিতার সাবেক স্বামী ও একই উপজেলার কেশবপুর গ্রামের সাইফুলের ছেলে মেহেরুল ইসলাম ও ভোজন চন্দ্র বর্মণের ছেলে গোপাল চন্দ্র বর্মণ।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুনসুর রহমান জানান, ফরিদুপরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার চর আজমপুর গ্রামের এক পোশাককর্মী তরুণীর সঙ্গে মেহেরুলের পরিচয় হয় ঢাকায়। পরবর্তীতে গেল এক বছর পূর্বে তাদের বিয়ে হলেও মেহেরুল মেয়েটিকে ঢাকায় ফেলে রেখে বাড়িতে পালিয়ে এসে তাকে তালাক দেয়।

---------------------------------------------------------------
আরো পড়ুন: বাড়িতে ডেকে এনে যুবতিকে ধর্ষণ
---------------------------------------------------------------

স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে ওই তরুণী চাপ দিতে থাকলে মেহেরুল তাকে একাই পাঁচবিবিতে আসতে বলেন। মেহেরুলের কথামতো মেয়েটি পাঁচবিবি এলে, পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তাকে বাড়ি নেওয়ার কথা বলে মেহেরুল নদী তীরের নির্জন স্থানে নিয়ে যান। সেখানে মেহেরুলসহ তিনজন পালাক্রমে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে। মেয়েটির চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে তিন ধর্ষক পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হপাসপাতালে ভর্তি করেন।

পুলিশ শনিবার রাতেই মেহেরুল ও গোপালকে আটক করতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে।

জেবি/পি

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ৩৬০৫৫৫ ২৭২০৭৩ ৫১৯৩
বিশ্ব ৩,৩৩,৪২,৯৬৫ ২,৪৬,৫৬,১৫৩ ১০,০২,৯৮৫
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়