logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬

৬০ নম্বর স্ত্রীর মামলায় শেষ ‘চিটার বক্কর’র বিয়ের ক্যারিয়ার!

জামালপুর প্রতিনিধি, আরটিভি অনলাইন
|  ০৪ নভেম্বর ২০১৯, ১৩:৪৪ | আপডেট : ০৪ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:০১
বিয়ে ৬০ চাকরি
আটক আবু বক্কর
তার বয়স বর্তমানে ৪৫। ২০ বছর বয়সে প্রথম বিয়ে করেন। এরপর গেল ২৫ বছরে আরও ৫৯টি বিয়ে করেছেন। কিন্তু এবার বিধিবাম। ৬০ নম্বর স্ত্রীর মামলায় গেল শনিবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এই ব্যক্তির বাড়ি জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায়। তার নাম আবু বক্কর (৪৫)। তিনি উপজেলার গোয়ালেরচর ইউনিয়নের সভারচর গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে।  

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বক্কর এলাকায় ‘চিটার বক্কর’ নামে পরিচিত। ২০ বছর বয়সে তিনি প্রথম বিয়ে করেন। দেশের বিভিন্ন জেলায় ধর্ম-আত্মীয় পাতিয়ে ব্যবসা, চাকরি, অবিবাহিত, স্ত্রী মারা গেছে এসব কথা বলে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে ৬০ বার বিয়ে করেছেন। এ সময় ওই নারীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন মোটা অংকের টাকা। 

সব শেষ নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার ৬০ নম্বর স্ত্রী রোজি খানমের করা মামলায় ধরা পড়েন বক্কর।

পূর্বধলা থানায় করা ওই মামলা সূত্রে জানা গেছে, রোজি খানমের আত্মীয়ের সঙ্গে পূর্ব পরিচিত হওয়ায় ওই এলাকায় যাতায়াত করতেন বক্কর। তিনি নিজেকে একটি ওষুধ কোম্পানির জেলা এরিয়া ম্যানেজার পরিচয় দিতেন। পরে অবিবাহিত পরিচয়ে গেল আগস্ট মাসে ভুয়া নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে রোজিকে বিয়ে করেন। সেই থেকে রোজির বাড়িতেই বসবাস করতেন বক্কর। এক সময় রোজির পরিবারের কাছে দুই লাখ টাকা দাবি করেন বক্কর। এতে রোজির পরিবার অপারগতা প্রকাশ করে। পরে বক্কর কৌশলে তার শ্যালককে ওষুধ কোম্পানির চাকরি দেওয়ার কথা বলে শ্বশুরের কাছ থেকে ৮০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যান এবং যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। একটা সময় রোজির পরিবার খোঁজ নিয়ে জানতে পারে বিয়ের নামে প্রতারণা করেছেন বক্বর। 

এ বিষয়ে বক্কর জানান, ৬০ বার বিয়ে করলেও তিনি সাত সন্তানের জনক। শুধু টাকার লোভে বিয়ে করেছেন। টাকা পেলেই ফেলে এসেছেন স্ত্রীদের। নিজ উপজেলা ইসলামপুরের ঠিকানা তিনি কখনোই ব্যবহার করতেন না। বর্তমানে নিজ বাড়িতে প্রথম স্ত্রী সাজেদা বেগমসহ দুই স্ত্রী ও সাত সন্তান রয়েছে।

ইসলামপুর থানা পরিদর্শক (তদন্ত) আনছার আলী জানান, প্রতারণা করে বক্কর ৬০ বার বিয়ে করেছেন। যা তিনি নিজেই স্বীকার করেছেন। তাকে আটক করে থানায় পাঠানো হয়েছে।

জেবি/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়