logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি
|  ০৪ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:৫৭
দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট লঞ্চ চলাচল
পদ্মা নদীর তীব্র স্রোতের কারণে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন।

শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাট পরিদর্শন শেষে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম ঘাট সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে লঞ্চ চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত দেয় ঘাট কর্তৃপক্ষকে। অপরদিকে লঞ্চে পার হওয়া যাত্রীদের ফেরিতে পারাপার হতে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার দুপুর ১১টার দিকে দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটের কাছে নদীতে ঘূর্ণায়মান স্রোতের টানে একটি লঞ্চ ভাঙন কবলিত পারে ধাক্কা খেলে ওই লঞ্চের ২ যুবক আতঙ্কিত হয়ে নদীতে ঝাঁপ দেয়। পরে লঞ্চ শ্রমিকরা অন্য লঞ্চ ও স্পিডবোট দিয়ে নদী থেকে তাদের উদ্ধার করে।

প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধিতে দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরি ঘাট এলাকায় তীব্র স্রোত বইছে। ফলে স্রোতের সাথে পাল্লা দিয়ে লঞ্চ ও ফেরি চলাচলে ব্যাঘাত ঘটছে। স্রোতের সাথে পাল্লা দিয়ে চলতে গেলে যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। যে আশঙ্কায় রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক লঞ্চ চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত দিয়েছেন।

দৌলতদিয়া লঞ্চঘাট সুপার ভাইজার মো. মোফাজ্জেল হোসেন জানান, তীব্র স্রোতে সমস্যা হওয়ায় শুক্রবার দুপুর থেকে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে লঞ্চ পারাপার যাত্রীদের ফেরিতে পারাপার হতে বলা হচ্ছে।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, তীব্র স্রোতে দৌলতদিয়ায় লঞ্চ চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় লঞ্চ চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। স্রোত কমলে ও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পুনরায় লঞ্চ চলাচল শুরু করা হবে।

এদিকে তীব্র স্রোতে ফেরি চলাচলও ব্যাহত হচ্ছে। স্রোতের বিপরীতে নদী পার হতে ফেরিগুলোর সময় লাগছে আগের তুলনায় দ্বিগুণ এবং ফেরি চলছে ১৬টির স্থানে ১২টি। মাঝে মাঝে আরও কম ফেরি চলছে। এছাড়া ঘাট এলাকায় ব্যাপক নদী ভাঙন চলছে, যার কারণে গত ৬দিন ধরে বন্ধ রয়েছে দৌলতদিয়ার দুটি ফেরি ঘাট। বাকি চারটি ঘাটের তিনটি সম্পূর্ণ ও একটি আংশিক চালু রয়েছে। তবে ঘাট রক্ষায় গত ৬দিন ধরে শুক্রবার পর্যন্ত ২০ হাজার বালুর বস্তা ফেলার কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। কিন্তু তাতেও ওই ১ ও ২নং ঘাট দুটির পদ্মার ভাঙন থেকে শেষ রক্ষা হবার সম্ভাবনা কম বলে মন্তব্য করছেন স্থানীয়রা। পর্যাপ্ত সংখ্যক ফেরি চলাচল না করাতে দৌলতদিয়া প্রান্তে নদী পারের অপেক্ষায় আটকা পড়েছে কয়েকশ পণ্যবাহী ট্রাক ও অল্প কিছু যাত্রীবাহী বাস। এতে করে দুর্ভোগে পড়েছে যাত্রীরা। এছাড়া স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। ফলে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় নদী পার হতে দ্বিগুণ সময় লাগছে ফেরিগুলোর। এ কারণে দৌলতদিয়া প্রান্তে সিরিয়াল তৈরি হচ্ছে। এদিকে ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে ফেরিঘাট। ফলে ১ ও ২ নং ফেরি ঘাটে বন্ধ রেখে বালুর বস্তা ফেলার কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া সহকারী ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মাহবুব হোসেন জানান, পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি ও তীব্র স্রোতে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। স্রোতের কারণে ভাঙন ঝুঁকিতে থাকায় দুটি ঘাট বন্ধ রেখে ডাম্পিংয়ের কাজ করা হচ্ছে। ফলে নদী পারের অপেক্ষায় কিছু যানবাহন সিরিয়ালে রয়েছে। বর্তমানে এ রুটে ১২টি ফেরি চলাচল করছে।

পি

 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়