logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬

টেকনাফে সাড়ে ৮শ’ মানুষ আশ্রয় কেন্দ্রে, দেয়াল ধসে শিশুর মৃত্যু

টেকনাফ প্রতিনিধি
|  ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:১৮
টেকনাফে সাড়ে ৮শ’ মানুষ আশ্রয় কেন্দ্রে
টেকনাফে সাড়ে ৮শ’ মানুষ আশ্রয় কেন্দ্রে, দেয়াল ধসে শিশুর মৃত্যু ।। ফাইল ছবি
কক্সবাজারের টেকনাফে পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত হওয়ার বাড়ির ঘরের লোকজন আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান করছে। গতকাল মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) থেকে ২শ’ পরিবারের সাড়ে ৮শ’ মানুষ টেকনাফের মায়মুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অবস্থান করছেন। 

মঙ্গলবার ভোর থেকে ভারী বর্ষনের সঙ্গে সঙ্গে টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন ঝুঁকি প্রবণ এলাকায় ঝুঁকিতে থাকা লোকজনকে উদ্ধারে নামে। এর আগে পাহাড় ধসের ঘটনায় দুই শিশুর মৃত্যু হয়। সেই সঙ্গে ১০ থেকে ১২ জন আহত হন। 

উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছে, বারবার সতর্ক করে নিরাপদ স্থানে যেতে  বলা হলেও কর্নপাত না করায় এ হতাহাতে ঘটনা ঘটে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হাসান বলেন, আশ্রিতদের কম্বল ও শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

এদিকে মহেশখালীতে কাঁচা বাড়ির মাটির দেয়াল চাপা পড়ে এক শিশু নিহত হয়েছে। নিহত শিশুর নাম সোমাইয়া আক্তার (১১)। এ ঘটনায় তার মা ও এক ভাইও আহত হয়েছে। আজ বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৭টায় উপজেলার কালারমার ছড়া ইউনিয়নের আঁধার ঘোনা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত সোমাইয়া আঁধার ঘোনা গ্রামের আবদুল গফুরের মেয়ে।

কালারমার ছড়া ইউপি চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফ জানান, প্রবল বর্ষণের কারণে আঁধার ঘোনা পাহাড়ি এলাকার আব্দুল গফুরের মাটির ঘরের চারদিক পানিবন্দি হয়ে পড়ে। ফলে কাঁচা মাটির দেয়াল ধসে শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নিহত সোমাইয়ার ছোট ভাই রিয়াদ (১০) ও মা পারভীন আক্তার আহত হয়েছে।

আহতদের চকরিয়া জমজম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার খবর পেয়ে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জামিরুল ইসলাম ও কালারমার ছড়া ইউপি চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরিফ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়