logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০, ১১ মাঘ ১৪২৭

কুড়িগ্রামে বানভাসি মানুষের দুর্ভোগ চরমে (ভিডিও)

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
|  ১৯ জুলাই ২০১৯, ১০:৪১ | আপডেট : ১৯ জুলাই ২০১৯, ২২:১৬
কুড়িগ্রামে ব্রহ্মপুত্র ও ধরলার পানি কমতে শুরু করলেও টানা আটদিন ধরে পানিবন্দী মানুষ রয়েছে চরম দুর্ভোগে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণ দেওয়া হলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম। বেশিরভাগ বানভাসির কাছে সেই ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছায়নি। মিলছে না শুকনো খাবার ও নিরাপদ পানি। বাড়ি-ঘর ছেড়ে নৌকা কিংবা উঁচুস্থানে আশ্রয় নেয়া মানুষগুলো পার করছে মানবেতর জীবন।

এদিকে পানি কমতে শুরু করলেও ব্রহ্মপুত্র ও ধরলা নদীর পানি এখনও বিপদসীমার অনেক ওপর  দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে বন্যায় পানিতে ডুবে আরও এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে গেল আট দিনে জেলায় ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এখন পর্যন্ত বন্যায় ৫৬টি ইউনিয়নের ৫৭৮টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে সাড়ে সাত লাখ মানুষ পানিবন্দী হয়ে পরেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এক লাখ ৮৮ হাজার ৫৪৯ ঘর-বাড়ি। বন্যায় ৩২ কিলোমিটার বাঁধ, ৭২ কিলোমিটার কাঁচা ও ১৬ কিলোমিটার পাকা রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যার ফলে ফসলের ক্ষতি হয়েছে ১৫ হাজার ১৬০ হেক্টর।

ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির কারণে এখন পর্যন্ত ৭৫৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে এক  লাখ ৩৫ হাজার শিশুর পাঠদান বন্ধ হয়ে গেছে।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত পাঁচ মেট্রিকটন জিআর চাল, ১৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা, তিন হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার ও ঈদুল আজহা উপলক্ষে ছয় হাজার ৪২৮ মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান আরটিভি অনলাইনকে জানান, ত্রাণ বিতরণ চলছে। সব পরিবার ত্রাণ পাবে। কেউ বঞ্চিত হবে না।

জেবি/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়