logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

এখনও বন্ধ বান্দরবানের সঙ্গে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ

বান্দরবান প্রতিনিধি
|  ১২ জুলাই ২০১৯, ১১:২৫ | আপডেট : ১২ জুলাই ২০১৯, ১২:৫৭
পানি, সড়ক, যোগাযোগ
পানির নিচে বান্দরবান শহর
বান্দরবানে গেল এক সপ্তাহ ধরে চলতে থাকা ভারি বর্ষণ এখনও অব্যাহত রয়েছে। টানা এই বর্ষণের ফলে পাহাড়ি অঞ্চলের মানুষের জনজীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে।

বান্দরবান-চট্টগ্রাম সড়কের সাতকানিয়া বাজালিয়া এলাকার প্রায় আধা কিলোমিটার সড়ক তলিয়ে যাওয়ায় বান্দরবানের সঙ্গে সারাদেশের সড়ক যোগাযোগ এখনও বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

সড়কে যানবাহন আটকা পড়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে যাত্রীরা। নৌকায় করে বান্দরবান ও চট্টগ্রামগামী লোকজন চলাচল করছেন। অনেকে চলছেন ভ্যানে করে। এখনও বান্দরবানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে।

বান্দরবান-রাঙামাটি সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায়-রাঙামাটির সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

এদিকে টানা বর্ষণ ও সাঙ্গু নদীতে উজানের পানি বৃদ্ধি পেয়ে জেলা শহরের আর্মিপাড়া, ইসলামপুর, উজানীপাড়া, শেরে বাংলা নগর, কাশেম পাড়া, বাসস্টেশন এলাকা, হাফেজ ঘোনাসহ বিভিন্ন এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে।

মাতামুহুরী নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে লামা উপজেলার বেশকিছু এলাকা পানির নিছে তলিয়ে গেছে। আলীকদম সড়কের বিভিন্ন জায়গা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসে এবং পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় জেলা সদরের সঙ্গে রুমা, রোয়াংছড়ি, থানচি উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

 বান্দরবান জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম জানান, বন্যা ও দুর্যোগে যেকোনো ঝুঁকি মোকাবিলার জন্য জেলা ও উপজেলা প্রশাসন সার্বক্ষণিক কাজ করছে।

এছাড়াও পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে মাইকিং অব্যাহত রয়েছে। আশ্রয় নেওয়া মানুষের মধ্যে ত্রাণ তৎপরতা চালানো হচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় জেলা প্রশাসন নিয়ন্ত্রণকক্ষ খুলেছে। পুরো জেলায় আশ্রয়কেন্দ্র খুলেছে ১২৬টি। আশ্রয় নেওয়া মানুষদের জন্য শুকনো খাবার বিতরণ করছে প্রশাসনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়