logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

‘আমি কিছুতেই তাদের থামাতে পারিনি’(ভিডিও)

বরগুনা প্রতিনিধি
|  ২৭ জুন ২০১৯, ১৭:৪৭ | আপডেট : ২৭ জুন ২০১৯, ১৮:১০
‘চোখের সামনেই সন্ত্রাসীরা আমার স্বামীকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। আমি তাদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু কিছুতেই তাদের থামাতে পারিনি। কান্নাজড়িত কণ্ঠে এসব কথা বলেন বরগুনায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি। বৃহস্পতিবার সকালে বরগুনা পুলিশ লাইনের কাছে বাবার বাড়িতে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এসব কথা বলেন। 

এ সময় তিনি আরও বলেন, নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী ও রিশান ফরাজী আমার স্বামী রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

সকাল নয়টার দিকে স্বামী রিফাত শরীফের সঙ্গে বরগুনা কলেজে আসি আমি। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কলেজ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য রওনা দেই আমরা। বরগুনার কলেজ সড়কের ক্যালিক্স কিন্ডার গার্টেনের সামনে পৌঁছালে বেশ কয়েকজন যুবক আমাদের গতিরোধ করে। সেইসঙ্গে রিফাত শরীফকে মারধর শুরু করে তারা। এর মধ্যেই চাপাতি নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয় নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজী। মিন্নি বলেন, নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজী চাপাতি নিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে রিফাত শরীফকে জাপটে ধরে রিফাত ফরাজীর ছোট ভাই রিশান ফরাজী। এরপরই রিফাত শরীফকে নির্মমভাবে চাপাতি দিয়ে কোপাতে থাকে নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজী।

রিফাত হত্যা মামলায় চন্দন নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন হত্যা মামলা দায়ের ও মামলার  চার নম্বর আসামি চন্দনকে গ্রেপ্তারের কথা নিশ্চিত করেছেন।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন জানিয়েছেন, ১২ জনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা করা হয়েছে। তিনি গ্রেপ্তারের স্বার্থে আসামিদের নাম বলতে রাজি হননি।

বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন-পিপিএম জানিয়েছেন, চন্দন নামে একজনকে তারা গ্রেপ্তার করেছেন। বাকি আসামিদেরও তারা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে শনাক্ত করেছেন।

বরিশালের ডিআইজি মো. সফিকুল ইসলাম আজ বেলা সাড়ে ১১টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

তিনি বলেছেন, কোনও আসামিকে ছাড় দেওয়া হবে না। সকল আসামি ধরা পরবে এবং বিচার হবে।

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়
---SELECT id,hl1,hl2,hl3,rpt,short_hl2,cat_id,parent_cat_id,prefix_keyword,sum,dtl,hl_color,tmp_photo,video_dis,alt_tag,IFNULL(hierarchy, 99) AS hierarchy,entry_time FROM news AS news LEFT JOIN mn_hierarchy AS mnh ON mnh.news_id = news.id AND mnh.mid = 9 WHERE cat_id LIKE "%#9#%" AND publish = 1 GROUP BY id ORDER BY hierarchy ASC, entry_time DESC LIMIT 2
---SELECT id,hl1,hl2,hl3,rpt,short_hl2,cat_id,parent_cat_id,prefix_keyword,sum,dtl,hl_color,tmp_photo,video_dis,alt_tag,IFNULL(hierarchy, 99) AS hierarchy,entry_time FROM news AS news LEFT JOIN mn_hierarchy AS mnh ON mnh.news_id = news.id AND mnh.mid = 8 WHERE cat_id LIKE "%#8#%" AND publish = 1 GROUP BY id ORDER BY hierarchy ASC, entry_time DESC LIMIT 2
---SELECT id,hl1,hl2,hl3,rpt,short_hl2,cat_id,parent_cat_id,prefix_keyword,sum,dtl,hl_color,tmp_photo,video_dis,alt_tag,IFNULL(hierarchy, 99) AS hierarchy,entry_time FROM news AS news LEFT JOIN mn_hierarchy AS mnh ON mnh.news_id = news.id AND mnh.mid = 4 WHERE cat_id LIKE "%#4#%" AND publish = 1 GROUP BY id ORDER BY hierarchy ASC, entry_time DESC LIMIT 2