• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬

স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর হত্যায় বন্ধুর মৃত্যুদণ্ড

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
|  ২৯ মে ২০১৯, ১৭:৩৮
নারায়ণগঞ্জ শহরের আমলাপাড়ায় আলোচিত স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষ হত্যা মামলায় তার বন্ধু মামলার প্রধান আসামি পিন্টু দেবনাথকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া মামলায় একজনকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও একজনকে খালাস দেয়া হয়েছে।

whirpool
বুধবার (২৯ মে) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আনিসুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতে আসামিরা উপস্থিত ছিলেন।  

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট ওয়াজেদ আলী খোকন জানান, ২০১৮ সালের ১৮ জুন সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ শহরের আমলাপাড়া থেকে স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষ নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি জিডি এন্ট্রি করে। পরে প্রবীরকে উদ্ধারের জন্য স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের আন্দোলনে পুলিশ বিশেষ তৎপর হয়ে উঠে। পুলিশ নিহত প্রবীরের বন্ধু পিন্টু দেবনাথকে আটক করে। নিখোঁজের ২১ দিন পর ৯ জুলাই জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে পিন্টুর স্বীকারোক্তি ও দেখানো মতে আমলাপাড়ার বাড়ির সেফটি ট্যাংক থেকে প্রবীরের খণ্ড মরদেহ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় নিহতের প্রবীরের বড় ভাই বিপ্লব চন্দ্র ঘোষ বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় পিন্টু দেবনাথকে প্রধান আসামি করে ৩ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ৪ সেপ্টেম্বর ৩ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আদালত ৩০ জন সাক্ষীর মধ্যে ২৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা শেষে এ রায় ঘোষণা করেন। 

আদালত মামলা প্রধান আসামি পিন্টু দেবনাথের মৃত্যুদণ্ড, অপর আসামি বাতেন ভৌমিককে ৭ বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। সাক্ষ্য প্রমাণে দোষী না হওয়ায় মামলার অপর আসামি আব্দুল্লাহ আল মামুনকে খালাস দেয়া হয়েছে।

এদিকে আদালতের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে এ রায় দ্রুত কার্যকর করার দাবী জানান মামলার বাদী বিপ্লব চন্দ্র ঘোষ। তিনি খালাস পাওয়া আসামি আব্দুল্লাহ আল মামুনেরও শাস্তি প্রত্যাশা করেছিলেন।

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়