পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌযান চলাচল বন্ধ

প্রকাশ | ০৪ মে ২০১৯, ১৯:২০ | আপডেট: ০৪ মে ২০১৯, ১৯:৪৯

স্টাফ রিপোর্টার, মানিকগঞ্জ
ফাইল ছবি

ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে মানিকগঞ্জে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে দুদিন ধরে ফেরিসহ সবধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে এই রুটে চলাচলকারী ২১টি জেলার যাত্রীরা।

শুক্রবার বিকেল থেকে ফেরি বন্ধ রয়েছে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১টি জেলার প্রবেশদ্বার হিসেবে খ্যাত পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথের জলযান। পাটুরিয়া ও দৌলতদিয়া উভয় ঘাটে আটকা পড়া যাত্রীদের অনেককেই বাসের মধ্যেই রাত কাটাতে হয়েছে। কেউ স্থানীয় আবাসিক হোটেলে বাড়তি অর্থ ব্যয় করে রাত কাটিয়েছেন। আবার অনেকেই গন্তব্যে যেতে না পেরে ফিরে গেছেন। 

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ফণীর প্রভাবে নদী উত্তাল হয়ে পড়ায় শুক্রবার দুপুরের পর থেকে ফেরি চালাচল ব্যাহত হয়। পরবর্তীতে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে শুক্রবার বিকেল চারটা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। যাত্রীদের ভোগান্তি বিবেচনা করে শনিবার বিকেল চারটার দিকে সীমিত আকারে আবারও ফেরি চলাচল শুরু হয়। তবে পরিস্থিতি প্রতিকূল হওয়ায় বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে ফেরি চলাচল আবার বন্ধ রাখা হয়।

পাটুরিয়া ঘাটে দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা ট্র্যাফিক পুলিশের পরিদর্শক রাসেল আরাফাত বলেন, ফেরি বন্ধ থাকায় শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ঘাট এলাকায় তিন শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান এবং ২৫টি বাস আটকা ছিল। ঘাট এলাকায় যাত্রী ও শ্রমিকদের নিরাপত্তায় ট্র্যাফিক পুলিশ এবং স্থানীয় শিবালয় থানার পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন।

উপমহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) আজমল হোসেন বলেন, এখনও নদীতে প্রচণ্ড ঢেউ অব্যাহত রয়েছে। ঢাকা থেকে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি পর্যবেক্ষণ দল পাটুরিয়া আসার কথা রয়েছে। তাদের মতামতের ভিত্তিতে ফেরি চালুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটার পর থেকে দুর্ঘটনা এড়াতে আরিচা-কাজিরহাট নৌপথে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র আরিচা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (ট্র্যাফিক ও নিরাপত্তা) ফরিদ হোসেন বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে লঞ্চ ও স্পিডবোট চালু করা হবে।

পি