• ঢাকা শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

কিশোরগঞ্জে বজ্রাঘাতে শিশুসহ নিহত চার

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি
|  ০৩ মে ২০১৯, ১৭:২৯ | আপডেট : ০৩ মে ২০১৯, ১৮:৩৪
ফাইল ছবি
কিশোরগঞ্জ জেলার তিন উপজেলায় বজ্রাঘাতে এক শিশুসহ ৪ জন নিহত হয়েছে। জেলার মিঠামইন, ইটনা ও পাকুন্দিয়ায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

whirpool
মিঠামইনে হাওর থেকে গরুর বাছুর আনতে গিয়ে বজ্রাঘাতে সুমন মিয়া নামে সাত বছরের এক শিশু মারা গেছে। এসময় শিশুটির আনতে যাওয়া বাছুরটিও বজ্রাঘাতে মারা যায়। এছাড়া হাওরে বোরো ধান কাটতে গিয়ে বজ্রাঘাতে মহিউদ্দিন (২২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কেওয়ারজোড় ইউনিয়নের কুড়ারকান্দি গ্রামের হাওরে বজ্রাঘাতে শিশু সুমন ও বাছুরটি মারা যায়। অন্যদিকে উপজেলার বৈরাটি ইউনিয়নের বিরামচর গ্রাম সংলগ্ন হাওরে বজ্রপাতে মহিউদ্দিনের মৃত্যু হয়।

নিহত সুমন মিয়া উপজেলার কেওয়ারজোড় ইউনিয়নের কুড়ারকান্দি গ্রামের এবাদ মিয়ার ছেলে এবং নিহত মহিউদ্দিন উপজেলার বৈরাটি ইউনিয়নের বিরামচর গ্রামের মো. গোলাপ মিয়ার ছেলে।

অপরদিকে ইটনায় কৃষি কাজ শেষে হাওর থেকে বাড়ি ফেরার পথে বজ্রাঘাতে রুবেল দাস (২৬) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের কাঠুইর গ্রাম সংলগ্ন হাওরে বজ্রপাতে এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। নিহত রুবেল দাস উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের কাঠুইর গ্রামের রাকেশ দাসের ছেলে।

ইটনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মুর্শেদ জামান বিপিএম আরটিভি অনলাইনকে জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বৃষ্টির সময় বজ্রপাতে এই প্রাণহানির ঘটনাটি ঘটে।

পাকুন্দিয়ায় গরুর জন্য ঘাস কাটতে গিয়ে বজ্রাঘাতে আসাদ মিয়া (৪৫) নামে এক কৃষক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়নের কোষাকান্দা গ্রামে বজ্রাঘাতে এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। নিহত আসাদ মিয়া উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়নের কোষাকান্দা গ্রামের মৃত আয়েছ আলীর ছেলে

বজ্রাঘাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইলিয়াস আরটিভি অনলাইনকে জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বৃষ্টির সময়ে বজ্রপাতে এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়