• ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে এসে অগ্নিদগ্ধ তরুণীর ঢামেকে মৃত্যু

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২২ এপ্রিল ২০১৯, ১২:১৮ | আপডেট : ২২ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:০৪
লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে আসা অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত শাহেনুর আক্তার, ছবি: আরটিভি অনলাইন
লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে এসে অগ্নিদগ্ধ হয়ে শাহেনুর আক্তার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। আজ সোমবার সকাল ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে তিনি মারা যান।

whirpool
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই বাচ্চু মিয়া আরটিভি অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এর আগে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রোববার (২১ এপ্রিল) রাতে তাকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। তার শরীরের ৪০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

শাহেনুর ঘটনার পর অভিযোগ করে বলেন, স্ত্রীর স্বীকৃতি না দিয়ে সালাহউদ্দিন (ভিকটিমের দাবিকৃত স্বামী) তার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে।

রোববার বিকেলে কমলনগর উপজেলার চরফলকন আয়ুবনগর গ্রামে সালাহউদ্দিনের বাড়ির পাশে এ ঘটনা ঘটে। মৃত শাহেনুর চট্টগামের রাউজান উপজেলার নতুনহাট এলাকার সোনাগাজী গ্রামের জাফর আলমের মেয়ে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শাহেনুর চট্টগ্রাম থেকে স্ত্রীর দাবি নিয়ে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার চরফলকন আয়ুবনগরের মহর আলীর ছেলে রিকশাচালক সালাহ উদ্দিনের কাছে আসেন। শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেল থেকে স্ত্রীর স্বীকৃতি চেয়ে জনে জনে ঘুরে ফেরেন শাহেনুর। তার দাবি মুঠোফোনে সম্পর্ক ও দেড় বছর আগে চট্টগ্রামে তাদের বিয়ে হয়। পরে শাহেনুর জানতে পারেন, সালাহ উদ্দিন বিবাহিত। তার স্ত্রী ও দুই সন্তান আছে। রোববার (২১ এপ্রিল) বিকেলে ওই যুবতী সালাহ উদ্দিনের বাড়ি গেলে বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে সে ওই বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। এরপর স্থানীয় ইউপি সদস্যের কাছে গেলে বিয়ের কাগজপত্র নিয়ে আসতে বলেন। এসময় বিয়ের কাগজপত্র আনতে যান শাহেনুর। বিয়ের কাগজপত্র আনতে যাওয়ার সময় সালাহ উদ্দিনের বাড়ির অদূরে অগ্নিদগ্ধ হন শাহেনুর। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে করইতলা হাসপাতালে ও পরে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসেন পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সফিউজ্জামান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রকিবুজ্জামান।

সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অগ্নিদগ্ধ শাহিনুর আক্তার সাংবাদিকদের জানান, তার স্বামী সালাহ উদ্দিনের কাছে এলে স্বীকৃতি না দিয়ে উল্টো তার শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। মুঠোফোনে সম্পর্কের জের ধরে দেড় বছর আগে সালাহ উদ্দিনের সঙ্গে তার বিয়ে হয়।

লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপার আ স ম মাহতাব উদ্দিন জানান, ঘটনার তদন্ত চলছে। যুবতীর অগ্নিদগ্ধের কারণ ও অভিযুক্ত সালাহ উদ্দিনকে খুঁজছে পুলিশ। দুইজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়