logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিষয় সাঈদীপুত্র : ব্যাখ্যা দিলো উপজেলা আওয়ামী লীগ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০:২৭ | আপডেট : ২০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩:৫৬
মানবতাবিরোধী অপরাধে আমৃত্যু কারাদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদীর হাত থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের পুরস্কার নেয়ার কারণ জানিয়েছে পিরোজপুরের জিয়ানগর উপজেলা আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পিরোজপুর প্রেসক্লাবে এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জিয়ানগর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান। বক্তব্যে তিনি জানান, মহান বিজয় দিবসে জিয়ানগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ইন্দুরকানী থানার ওসি, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও জিয়ানগর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার উদ্বোধনী ভাষণ দেন। পতাকা উত্তোলন শেষে পায়রা ওড়ানোর সময় পেছন থেকে হঠাৎ করে মাসুদ সাঈদী মঞ্চে ওঠেন। পরবর্তীতে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে পুরস্কার বিতরণের সময় পুরস্কার দিতে চেষ্টা করেন। মাসুদ সাঈদী পূর্বপরিকল্পিতভাবে, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও ইচ্ছাকৃতভাবে এ অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সৃষ্টি করেন। পরে কিছু ছবি সংগ্রহ করে ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য সেদিনের কিছু ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন। তার এ অপকর্মের তীব্র প্রতিবাদ জানায় উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

সংবাদ সম্মেলনে পিরোজপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার সমীর কুমার দাস বাচ্চু বলেন, যুদ্ধাপরাধী সাজাপ্রাপ্ত আসামি সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদীর কাছ থেকে মুক্তিযোদ্ধারা যে সম্মাননা নিয়েছেন সে জন্য তিনি জাতির কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।

গেলো ১৬ ডিসেম্বর সকালে জিয়ানগর উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিজয় দিবসের শোভাযাত্রা, কুচকাওয়াজ, আলোচনা সভা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দেয়া হয়। এ আয়োজনে দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান মাসুদ সাঈদী প্রধান অতিথি ছিলেনে। পরে প্যারেড শেষে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে তার হাত থেকেই সম্মাননা নেন মুক্তিযোদ্ধারা। আর এসব ছবি তুলে মাসুদ সাঈদী নিজের ফেসবুক আইডিতে শেয়ার করেন। এরপরই নিন্দার ঝড় বইতে থাকে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এসএস/ এসজেড   

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়