DMCA.com Protection Status
  • ঢাকা রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ৮ বৈশাখ ১৪২৬

নববধূর ঘটনায় কুমিল্লার সেই কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত

কুমিল্লা প্রতিনিধি
|  ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২২:০১ | আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৩:১৪
কুমিল্লার দেবিদ্বারে স্বামীর বাড়িতে হামলা চালিয়ে নববধূকে তুলে নেওয়ার চেষ্টার ঘটনায় জড়িতদের নাম পরিচয় শনাক্ত করা গেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতরা সবাই ছাত্রলীগের নেতাকর্মী বলে জানিয়েছে পুলিশ। ঘটনার পর বুড়িচং উপজেলার নিমসার জুনাব আলী ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার বিয়ে বাড়িতে হামলার সময় ঘটনাস্থল থেকে গ্রেপ্তার ছাত্রলীগের সাত নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছে পুলিশ।

এদিকে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু তৈয়ব অপি আরটিভি অনলাইনকে বলেন, সংগঠনের শৃঙ্খলা বিনষ্ট করার কারণে জেলা ছাত্রলীগের এক জরুরি সভায় বুড়িচং উপজেলার নিমসার জুনাব আলী ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্থানীয়রা জানান, গেল এক ফেব্রুয়ারি দেবিদ্বার উপজেলার সূর্যপুর গ্রামের জাকির ফরাজীর মেয়ে ফাতেমা আক্তারের (১৯) সঙ্গে একই উপজেলার সাহারপাড় গ্রামের মো. ইউনুছের ছেলে ছিদ্দিকুর রহমানের (২৫) বিয়ে হয়। গতকাল শুক্রবার ছিল বরের বাড়িতে বৌভাতের অনুষ্ঠান। দুপুর আড়াইটার দিকে ইসমাইলের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী অনুষ্ঠানে অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। তারা অনুষ্ঠানের লোকজনকে মারধর করে নববধূকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা চালায়। এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত আমন্ত্রিত অতিথিসহ স্থানীয় লোকজন তাদের ঘিরে ফেলে। ওই সময় ছাত্রলীগ নেতা ইসমাইল ও ছাত্রলীগ নেতা সাকিব পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও স্থানীয় জনতা মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে গণপিটুনি দিয়ে জাফর হোসেন (১৮), সজিব পাল (১৮), কাউছার আহম্মেদ (২০), আলী হোসেন (২০), মেহেদী হাসান (১৮), মো. আলম (২২) ও নাইদুল ইসলামকে (১৮) পুলিশে সোপর্দ করে।

নববধূর বাবা জাকির ফরাজী বলেন, ফাতেমা আক্তার নিমসার জুনাব আলী ডিগ্রি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকে পড়া অবস্থায় ছাত্রলীগ নেতা ইসমাইল প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করত। এক ফেব্রুয়ারি ফাতেমার বিয়ের খবর পেয়ে একাধিকবার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি করেছি আমি। এরপরও দলীয় নেতাকর্মী নিয়ে বিয়ে বাড়িতে হামলা চালায় ইসমাইল।

দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহিরুল আনোয়ার বলেন, গ্রেপ্তারকৃত সাতজন ছাড়াও হামলায় নেতৃত্ব দেওয়া ছাত্রলীগ নেতা ইসমাইল ও তার সহযোগী সাকিবসহ নয়জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করে শনিবার আদালতে পাঠানো হয়। বিকেলে আদালত তাদের কারাগারে পাঠিয়েছেন। আগামীকাল রোববার তাদের রিমান্ড শুনানি হবে।

জেবি/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়