DMCA.com Protection Status
  • ঢাকা বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬

সরু চ্যানেলটিতে ঘটতে পারে বড় দুর্ঘটনা

এম,মনিরুজ্জামান, রাজবাড়ী
|  ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:৩৩ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৮
ছবি: সংগৃহীত
দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে নাব্য সংকট কাটাতে খনন কাজ হলেও ওয়ানওয়ে সরু চ্যানেলের কারণে পাশাপাশি দুটি ফেরি অতিক্রম করতে সমস্যায় পড়ছে। কুয়াশা পড়লে এই সমস্যা আরও তীব্র হয়। এতে করে যেকোনো সময় দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন ফেরি চালকরা। সংশ্লিষ্টরা চ্যানেলের প্রশস্ততা আরও বাড়ানোর দাবি করেছেন।

জানা যায়, গেল ছয় জানুয়ারি দৌলতদিয়া ঘাটের অদূরে পাশাপাশি দুটি ফেরি অতিক্রমের সময় ঘর্ষণের ঘটনা ঘটে। এতে দুটি ফেরিই কেঁপে উঠলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এর আগে ২৬ ডিসেম্বর পাটুরিয়ার তিন নম্বর ফেরি ঘাট থেকে যানবাহন নিয়ে দৌলতদিয়ার উদ্দেশে ছেড়ে যায় ইউটিলিটি (ছোট) ফেরি বনলতা। ফেরিটি সরু চ্যানেল অতিক্রম করার সময় পেছনে ছোট-বড় আরও তিনটি ফেরি অপেক্ষা করছিল। এসময় বিপরীত দিক দৌলতদিয়া থেকে আসা আরও চারটি ফেরি ওই চ্যানেলে প্রবেশের অপেক্ষায় ছিল।

অপেক্ষাকৃত মাঝারি আকৃতির ফেরিটি চ্যানেলে প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গেই চালকের আসনে থাকা (হুইল সুকানি) মোকারম হোসেন বিব্রত অবস্থায় পড়ে যান। একদিকে পেছনে তিনটি ফেরি। সামনে আরও তিন থেকে চারটি ফেরি। অন্যদিকে চ্যানেলের পূর্ব দিকে মাটি খনন করার ড্রেজিং যন্ত্র এবং পশ্চিমে রয়েছে বালুর চর। চরের সীমানা ঘেঁষে মার্কিং পয়েন্ট দেয়া থাকলেও মাস্টার মোকারম উপায় না পেয়ে মার্কিং পয়েন্ট ভেদ করে বালুর চরে ঢুকে পড়েন। প্রায় পনের মিনিট এভাবে চলার পর কোনোরকমে চ্যানেলটি অতিক্রম করতে সক্ষম হয় ফেরিটি।

বনলতা ফেরির চালক মোকারম হোসেন প্রশ্ন রেখে বলেন, এভাবে কী ফেরি চালানো যায়? তিনি বলেন, বড় ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে জরুরি ভিত্তিতে চ্যানেলটির প্রশস্ততা বাড়ানো প্রয়োজন।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক খোরশেদ আলম আরটিভি অনলাইনকে বলেন, চ্যানেলটির খনন কাজ করছে বিআইডব্লিউটিএ এর খনন বিভাগ। কাজের ধীরগতির কারণে এ রুটের নৌ-চ্যানেলের গভীরতা ও প্রসস্ততা বাড়ানো সম্ভব হচ্ছে না। ফলে এ অবস্থার মধ্যেই ফেরি চলাচল করছে। কিন্তু দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাটের কাছে চ্যানেলের প্রশস্ততা তুলনামূলক আরও কম থাকায় ফেরি চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। চ্যানেলটির প্রশস্ততা আরও চারশ’ ফুট বাড়ানো দরকার।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএ এর খনন বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মাসুদ হোসেন আরটিভি অনলাইনকে বলেন, আগে ২৪০ ফুট প্রশস্ত করে চ্যানেল তৈরি করা হতো। বর্তমানে বাড়িয়ে ৩৬০ ফুট করা হয়েছে। সমস্যা হলো খনন যন্ত্র ও তার যন্ত্রাংশ চ্যানেলের মধ্যেই থাকার কারণে প্রশস্ততা কমে গেছে। ফলে দুটি ফেরি চলাচলে কিছুটা বিঘ্নতার সৃষ্টি হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই এই সমস্যার সমাধান হবে।

আরো পড়ুন:

জেবি/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়