logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ভিটে বাড়ি ছাড়লো ঝিনাইদহে নিখোঁজ হিন্দু পরিবার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
|  ১১ মে ২০১৮, ১৫:২০ | আপডেট : ১১ মে ২০১৮, ১৬:৫৯
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের ৪ সদ্যসের একটি পরিবার ঘর ছাড়া হয়েছে। তাদের পরিকল্পিতভাবে তুলে নিয়ে গেছে, না নিজে থেকে বাড়ি ছেড়ে চলে গেছে তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। বাড়িতে গোয়ালে পড়ে আছে গরু, হাসমুরগী সবই আছে। ঘটনাটি জেলার কালীগঞ্জ উপজেলাধীন ২নং জামাল ইউনিয়নের পার-খালকূলা গ্রামের। বিষয়টি নিয়ে পুরো এলাকায় ক্ষোভ বিরাজ করছে।

স্থানীয়রা জানান, চলতি বছরের ৪ মে  সন্ধ্যার পর থেকে কাউকে কিছু না বলে বাড়ি ছেড়েছেন পরিবারটি। নিখোঁজ হওয়া এ পরিবার প্রধানের নাম সুকুমার বিশ্বাস। যিনি রাজবংশী সম্প্রদায়ের সদস্য। অন্য সদস্যরা হলেন সুকুমার বিশ্বাসের স্ত্রী রেনু রানী, পুত্রবধু রিপা রানী ও নাতি সনদ বিশ্বাস।  গেল ৩ মাস আগে সুকুমারের একমাত্র ছেলে স্বপন কুমার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : ময়মনসিংহে বাস সিএনজি অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৫
--------------------------------------------------------

সুকুমারের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, বাড়ি-ঘরে তালা দেয়া। গোয়ালে একটি গাভী অনাহারে দাঁড়িয়ে আছে। আমিরুল জোয়ার্দার নামে এক প্রতিবেশী বাড়ির উঠানে গরুর ঘাস কাটছেন।

প্রতিবেশী আমিরুল জোয়ার্দার জানান, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ এসেছিলেন, তারা আমাকে বাড়ি ও সুকুমারের রেখে যাওয়া গরু এবং হাঁস মুরগী দেখে রাখার দায়িত্ব দিয়েছেন।

তিনি জানান, কয়েকদিন আগে সুকুমার শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে চলে যায়। এর কয়েকদিন পর সন্ধ্যায় সুকুমারের স্ত্রী, পুত্রবধু ও পোতা ছেলে প্রতিবেশীর বাড়িতে দাওয়াত খেতে গিয়েছিল। এরপর থেকে তাদের আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

নিখোঁজ সুকুমারের জামাই অলোক কুমার জানান, আমি যতটুকু জানি আমার শ্বশুর সুকুমার যশোর এক বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। এরপর থেকে আর বাড়িতে ফিরে যাননি। এরপর বাড়ির অন্য সদস্যরা চলে যায়। তবে বাড়ির থেকে চলে যাওয়ার দুদিন পর আমার সাথে একবার মোবাইলে যোগাযোগ হয়েছিল। তখন আমাকে জানিয়েছিল আমরা দেশে আছি। তবে নিরাপত্তার জন্য বাড়ির বাইরে আছি।

এদিকে এ ঘটনার পর হিন্দুদের কয়েকটি সংগঠন নিখোঁজ পরিবারকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বা হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়া হয়েছে দাবি করেন।

নিখোঁজের একদিন পর স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোদাচ্ছের হোসেন, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ ও বাংলাদেশ ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের নেতারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

৯ মে বুধবার বিকালে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কমিটি কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার পক্ষ থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সুকুমার বিশ্বাসের পানের বরজসহ ৮ বিঘা সম্পত্তি নাম মাত্র মূল্যে ক্রয়ের জন্য তাকে মানসিক চাপ দিয়ে আসছিলেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা। পরে ফলে তাদের নিখোঁজের পেছনে স্থানীয় এসব ভূমিদস্যুদের যোগসূত্র থাকতে পারে। তারা নিখোঁজ পরিবারকে উদ্ধার করে নিরাপদে নিজ বাড়িতে শান্তিতে বসবাসের ব্যবস্থা করার দাবি জানান।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুনীল ঘোষ জানান, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানতে পেরেছি স্থানীয় প্রভাবশালী ভূমিদস্যদের ভয়ে তিনি বাড়ি ছেড়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক এমপি আব্দুল মান্নান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল হোসেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল খাসহ অনেকে তার বাড়ি ঘর দেখে এসেছেন। এ বিষয়ে খোঁজ নিচ্ছেন।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, আমি ঘটনা জানার পর বিষয়টি গভীর পর্যবেক্ষণে রেখেছি। পুলিশের বিশেষ একটি টিম সেখানে কাজ করছে। তাদের স্থানীয় কোনো ব্যক্তি বা গ্রুপ যদি নির্যাতন করে তা হলে পুলিশকে অবহিত করতে পারতো কিন্তু তা না করেনি। তবে কেউ যদি নিশ্চিত করে অভিযোগ জানায় তাহলে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পারবো।

আরও পড়ুন :

এমসি/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়