Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯

রংপুর প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২১:০১
আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২১:০৬

পারিবারিক কলহ, স্বামীর সঙ্গে ভয়ংকর কাণ্ড ঘটিয়ে লাপাত্তা স্ত্রী

পারিবারিক কলহ : স্বামীর সঙ্গে ভয়ংকর কাণ্ড ঘটিয়ে লাপাত্তা স্ত্রী
ভুক্তভোগী স্বামী

রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার দমদমা বাজারের শিমুলপাড়া গ্রামে পরকীয়া সন্দেহ ও পারিবারিক কলহের জের ধরে এক যুবকের গোপনাঙ্গ কেটে নিয়ে পালিয়েছে স্ত্রী। পরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে সোমবার (২৪ জানুয়ারি) গভীর রাতে ওই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ব্যক্তি ওই গ্রামের ফুলবাবু ওরফে ফুলু মিয়ার ছেলে সোলাইমান মিয়া (২৪)। তিনি ট্রাক-চালকের সহকারী হিসেবে দেশের বিভিন্ন এলাকায় হেলপারের কাজ করতেন।

জানা গেছে, বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াতের সুবাদে মাগুরা জেলার এক নারীর সঙ্গে মোবাইল ফোন সম্পর্ক গড়ে উঠে সোলাইমানের। বয়সে বড় হওয়ার পরও প্রেমের টানে প্রায় দুই বছর আগে ওই নারীকে বিয়ে করেন সোলাইমান। ৬ থেকে ৭ মাস আগে সোলাইমান স্ত্রীকে গ্রামের বাড়ি মিঠাপুকুরের দমদমায় নিয়ে এসে সংসার শুরু করেন। এক সময় দুজনের মধ্যে সন্দেহ তৈরি হয়। স্ত্রীর অভিযোগ তার স্বামী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছেন। আর সোলাইমানের অভিযোগ স্ত্রীর বয়স বেশি হলেও তাকে জোরপূর্বক বিয়ে করতে বাধ্য করা হয়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই কলহ লেগে থাকতো।

এদিকে সোমবার (২৪ জানুয়ারি) রাতে খাওয়া শেষে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। এ সময় রাত আড়াইটার দিকে স্ত্রী সোলাইমানের বিশেষ অঙ্গ কেটে নিয়ে পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেলে ভর্তি করেন। বর্তমানে সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য রাজু আহম্মেদ বলেন, পলাতক ওই নারী একটি চিঠি লিখে গেছে। সেখানে তার আগের সংসার নষ্টের জন্য বর্তমান স্বামী সোলাইমানকে দায়ী করেছেন। সোলাইমানের মোবাইলে একাধিক মেয়ের সঙ্গে কথা বলার বিষয়টিও তিনি উল্লেখ করেন।

মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান বলেন, পরকীয়া সন্দেহে ও পারিবারিক কলহের জেরে এমনটা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা যায়। সোলাইমান চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার স্ত্রীকে আটকে আমরা তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি। তবে কেটে ফেলা বিশেষ অঙ্গের অবশিষ্ট অংশটি পাওয়া যায়নি।

জিএম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS