Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

নিজের ইচ্ছায় পালিয়েছিল ইতালি প্রবাসী সেই কিশোরী

নিজের ইচ্ছায় পালিয়েছিল ইতালি প্রবাসী সেই কিশোরী
ফাইল ছবি

মাদারীপুর পৌরসভায় ফুফুর বাড়ির সামনের সড়ক থেকে অপহৃত সেই ইতালি প্রবাসী কিশোরীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) রাত ৯টার দিকে পৌর শহরের কলেজগেট এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এর আগে ১০ জানুয়ারি সকালে দেশীয় অস্ত্র ঠেকিয়ে কৌশলে ইতালি প্রবাসী কিশোরীকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলে অভিযোগে ওঠে।

তবে অপহৃত ইতালি প্রবাসী কিশোরী স্বেচ্ছায় পালিয়েছিল বলে জানা গেছে। সম্প্রতি ওই কিশোরীর স্বীকারোক্তিমূলক একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এদিকে অপহরণ মামলার প্রধান আসামি আফজাল হোসেন শাওনের পরিবারের দাবি, মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে।

ভিডিওতে ওই কিশোরী বলছে, ‘আব্বু-আম্মু তোমরা আমাকে খুঁইজো না। আমি নিজের ইচ্ছায় শাওনের সঙ্গে এখানে আসছি। এখানে শাওন ও তার পরিবারের কারও কোনো দোষ নেই। তাদের (শাওনের পরিবার) ওপর চাপ দেওয়া তোমরা বন্ধ করে দাও। আমি শাওনকে জোর করে এখানে নিয়ে এসেছি। আমাকে বাসা থেকে বের করতে তোমরাই বাধ্য করেছ। আমি তোমাদের অনেক বুঝিয়েছি, যার সাথে আমার বিয়ে ঠিক করেছ, তাকে আমি বিয়ে করব না। তাছাড়া আমরা এখন কোর্টের মাধ্যমে বিয়ে করে ফেলছি। আমরা ভালো আছি। তোমরা শাওনের পরিবারকে হয়রানি করা ছেড়ে দাও।’

এলাকাবাসীসহ শাওনের পরিবারের দাবি, বিষয়টি সম্পূর্ণ প্রেমঘটিত। শাওনের সঙ্গে ওই কিশোরীর অনেক দিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক। পরিবারের লোকজন অন্য আরেকটি ছেলেকে বিয়ে করতে চাপ দিলে বাধ্য হয়ে শাওনের সঙ্গে মেয়েটি পালিয়ে যায়। শাওনের পরিবারকে হয়রানি ও হেয়প্রতিপন্ন করতে মিথ্যা অপহরণ মামলা করা হয়েছে।

শাওনের পরিবার বলছে, তারা মেয়েকে অন্য আরেকটি ছেলের সঙ্গে বিয়ে দিতে চাইলে তারা পালিয়ে যায়। এ বিষয়টি স্বীকার করেছে। কিন্তু তারা এখনও আমাদের নামে মিথ্যা অপহরণ মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।

তবে ওই কিশোরীর চাচা নয়ন জানান, তার ভাতিজিকে দিয়ে জোরপূর্বক এমন বক্তব্য দিতে বাধ্য করেছে। আমাদের মেয়ে উদ্ধার হলেও আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) ছালাউদ্দীন আহমেদ বলেন, বিষয়টি এখনও তদন্তাধীন। ওই কিশোরীর দেওয়া স্টেটমেন্ট আমারা সেভাবে পাইনি। তাছাড়া অপ্রাপ্তবয়স্ক একজন কিশোরীর এমন স্টেটমেন্ট কতটুকু গ্রহণযোগ্য, তা সার্বিকভাবে আমরা তদন্ত করছি।

এসএস/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS