Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

বেসরকারিভাবে ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যারা

বেসরকারিভাবে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা
ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন

সংঘর্ষ, হামলা ও ধাওয়া পাল্টাধাওয়ার মধ্যে দিয়ে দ্বিতীয় ধাপে দেশের ৮৩৫টি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ধাপে ২৬টি ইউপিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এবং বাকিগুলোতে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৪টায় শেষ হয়। এ ঘটনায় ছয়জনের নিহতের খবর পাওয়া গেছে। আরটিভি নিউজের পাঠানো প্রতিনিধিদের প্রতিবেদন।

মানিকগঞ্জ:

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আটজন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী, দু্ইজন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (জামির্তা ও শায়েস্তা) এবং একজন বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী (সিংগাইর সদর) জয়ী হয়েছেন।

সুনামগঞ্জ :

সুনামগঞ্জের ছাতকের ১০টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন চারজন প্রার্থী। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তিনজন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী তিনজন জয়ী হয়েছেন।

এখানে ছৈলা আফজালাবাদ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে গয়াছ আহমদ, গোবিন্দগঞ্জ সৈদেরগাওঁ ইউনিয়নে সুন্দর আলী, কালারুকা ইউনিয়নে অদুদ আলম এবং উত্তর খুরমা ইউনিয়নে বিলাল আহমদ বিজয়ী হয়েছেন।

ছাতক সদর ইউনিয়নে সাইফুল ইসলাম (আনারস) প্রতীক, দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নে আবু বকর (ঘোড়া) এবং জাউয়া বাজার ইউনিয়নে আবদুল হক (ঘোড়া) প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন। এ ছাড়া দোলারবাজার ইউনিয়নে নুরুল আলম (চশমা), চরমহল্লা ইউনিয়নে আবুল হাসনাত (মোটরসাইকেল) এবং সুফি আলম সোহেল (টেলিফোন) প্রতিক নিয়ে সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

হিলি :

দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার তিনটি ইউনিয়ন পরিষদে দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচনে দুইটিতে নৌকা এবং একটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর জয় লাভ করেছেন।

বিজয়ীরা হলেন, ১নং খট্রামাধাবপাড়া ইউনিয়নে (স্বতন্ত্র) আনারস মার্কার প্রার্থী মো. কাউছার রহমান, ২নং বোয়ালদাড় ইউনিয়নে নৌকার মো. সদরুল ইসলাম এবং ৩নং আলীহাট ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী মো. আবু সুফিয়ান জয়লাভ করেন।

ঝিনাইদহ :

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ভোটে নৌকা ৬ ও বিদ্রোহী ৬ জন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে।

বেসরকারি ফলাফলে এস বিকে ইউনিয়ন পরিষদে বিদ্রোহী প্রার্থী আরিফান হাসান চৌধুরী দ্বিতীয়বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। এ ছাড়া ফতেপুর ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী গোলাম হায়দার নান্টু, পান্তাপাড়া ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী মাজহারুল ইসলাম স্বপন, স্বরুপপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মিজানুর রহমান, শ্যামকুড় ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী জামিরুল ইসলাম, নেপা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সামসুল হক মৃধা, কাজীরবেড় ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী মো. ইয়ানবী, বাশবাড়ীয়া ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী নাজমুল হুদা জিন্টু, যাদবপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহম্মেদ, নাটিমা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবুল কাশেম মাস্টার, মান্দারবাড়ীয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আমিনুর রহমান ও আজমপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহাজান আলী নির্বাচিত হয়েছে।

বগুড়া :

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা পাঁচটিতে জয়ী হয়েছেন। তিনটিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীরা অন্য তিনটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন।

আওয়ামী লীগের নির্বাচিতরা হলেন, শিবগঞ্জ ইউনিয়নে শহিদুল ইসলাম শহিদ, কিচক ইউনিয়নে এ বি এম নাজমুল কাদির শাহজাহান চৌধুরী, বিহার ইউনিয়নে মহিদুল ইসলাম, বুড়িগঞ্জ ইউনিয়নে রেজাউল করিম চঞ্চল ও দেউলী ইউনিয়নে জাহেদুল ইসলাম।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীরা বিজয়ী হয়েছেন, পীরব ইউনিয়নে আসিফ মাহমুদ মিলটন, ময়দানহাট্টা ইউনিয়নে আবু জাফর, আটমূল ইউনিয়নে বেলাল হোসেন।

এ ছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন রায়নগর ইউনিয়নে শফিকুল ইসলাম শফি, মাঝিহট্ট ইউনিয়নে এসকেন্দার আলী শাহানা ও সৈয়দপুর ইউনিয়নে মহাতাব উদ্দিন।

পিরোজপুর : পিরোজপুর সদর উপজেলার শংকরপাশা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের মো. তোফাজ্জেল হোসেন মল্লিক স্বপন, দুর্গাপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র মো. নোমান মৃধা (আ.লীগ বিদ্রোহী) এবং শিকদারমল্লিক ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের মো. শহিদুল ইসলাম।

ইন্দুরকানী উপজেলার পত্তাশী ইউনিয়নে জাতীয় পার্টি (জেপি)'র মো. শাহীন হাওলাদার এবং পাড়েরহাট ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মো. কামরুজ্জামান শাওন।

নাজিরপুর উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র মো. আলতাফ হোসেন বেপারী (আ.লীগ বিদ্রোহী), দীর্ঘা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের আশুতোষ বেপারী এবং শাখারীকাঠী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র মো. খালিদ হোসেন সজল (আ.লীগ বিদ্রোহী) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

মাগুরা:

মাগুরা সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদের নির্বাচনে সাতটিতে আওয়ামী লীগ দুটিতে বিদ্রোহী ও একটিতে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে অন্য তিনটি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

৭টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হচ্ছেন, রাঘবদাইড় ইউনিয়নে আশরাফুল আলম বাবুল ফকির, মঘি ইউনিয়নে হাচনা হেনা, জগদল ইউনিয়নে সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, গোপালগ্রাম ইউনিয়নে অধ্যক্ষ নাসিরুল ইসলাম মিলন, চাউলিয়া ইউনিয়নে হাফিজার রহমান, কছুন্দি ইউনিয়নে আবুল কাশেম মোল্যা, আঠারোখাদা ইউনিয়নে সঞ্জীবন বিশ্বাস।

২ জন বিজয়ী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হচ্ছেন বেরইল পলিতা ইউনিয়নে এনামুল হক রাজা ও কুচিয়ামোড়া ইউনিয়নে জাহিদুর রহমান টিপু।

এছাড়া শত্রুজিৎপুর ইউনিয়নে বিজয়ী হয়েছেন ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা মার্কার প্রার্থী মুফতি মওলানা ওসমান গণি। প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় হাজরাপুর ইউনিয়নে কবির হোসেন, হাজিপুর ইউনিয়নে মোজাহারুল ইসলাম আক্রোট ও বগিয়া ইউনিয়নে মীর রওনোক হোসেন আগেই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

লক্ষ্মীপুর :

লক্ষ্মীপুরে দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে লক্ষ্মীপুরের ৪ ইউপির মধ্যে চেয়ারম্যান পদে তিনটিতে আওয়ামী লীগ ও অন্যটিতে ইসলামী আন্দোলনের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলার কমলনগর উপজেলার চর লরেন্স ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নুরুল আমিন মাস্টার (নৌকা প্রতীক), চর মার্টিন ইউপিতে আওয়ামী লীগের (নৌকা প্রতীক) ইউছুফ আলী, চর কাদিরা ইউনিয়নে ইসলামী আন্দোলনের খালেদ সাইফুল্লাহ্ (হাতপাখা) ও রামগতি উপজেলার চরগাজী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মুজাহিদুল ইসলাম সুমন (নৌকা প্রতীক) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

জয়পুরহাট :

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল ও আক্কেলপুর উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুই উপজেলার সাতটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ছয়জন আওয়ামী লীগের এবং একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

বিজয়ীরা হলেন, ক্ষেতলাল উপজেলার আলমপুর ইউপিতে আনোয়ারুজ্জামান তালুকদার (নৌকা) মামুদপুর ইউপিতে মশিউর রহমান শামীম (নৌকা) আক্কেলপুর উপজেলার সোনামুখী ইউপিতে ডিএম রাহেল ইমাম (নৌকা) রায়কালী ইউপিতে আব্দুর রশীদ মন্ডল (নৌকা), তিলকপুর ইউপিতে সেলিম মাহবুব সজল, রুকিন্দিপুর ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আহসান কবির এপ্লব (নৌকা) স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে গোপীনাথপুর ইউপিতে হাবিবুর রহমান বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জয়পুরহাট জেলা নির্বাচন অফিসার মুহাম্মদ আমিনুর রহমান মিঞা।

হবিগঞ্জ :

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে ৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে বিজয়ী প্রার্থীরা হচ্ছেন আজমিরীগঞ্জ সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আশরাফুল ইসলাম মোবারুল, শিবপাশা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) নলিউর রহমান তালুকদার, বদলপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সুশেনজিৎ চৌধুরী ও কাকাইলছেও ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মিজবাহ উদ্দিন ভূঁঁইয়া।

অপরটি জলসুখা ইউনিয়নে সংঘর্ষ হওয়ায় একটি কেন্দ্রের ভোট বাতিল করা হয়েছে।

কুষ্টিয়া:

কুষ্টিয়ার মিরপুর ও ভেড়ামারা উপজেলার মোট ১৭ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে ৯ জন, জাসদ একটিতে এবং স্বতন্ত্র ৭ জন বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ভোটগ্রহণ ও গণনা শেষে স্ব স্ব রিটার্নিং ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাগণ বেসরকারিভাবে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন।

এই উপজেলার ৬ ইউনিয়নের মধ্যে বাহাদুরপুর ইউনিয়নে সোহেল রানা পবন, বাহিরচর ইউনিয়নে রওশন আরা, মোকারিমপুর ইউনিয়নে আব্দুস সামাদ নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

চাঁদগ্রাম ইউনিয়নে জাসদ সমর্থিত আব্দুল হাফিজ তপন মশাল প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন। জুনিয়াদহ ইউনিয়নে হাসানুজ্জামান হাসান এবং ধরমপুর ইউনিয়নে শামসুল হক (আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী) স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

মেহেরপুর:

মেহেরপুরের ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত দুইজন এবং সাতটিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা জয়লাভ করেছে।

গাংনী উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে দুটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। তারা হলেন- সাহারবাটি ইউপিতে মশিউর রহমান ও বামন্দী ইউপিতে ওবাইদুর রহমান কোমল।

এ উপজেলার বাকি তিনটিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন, তারা হলেন- কাথুলী ইউপিতে মিজানুর রহমান রানা, মটমুড়া ইউপিতে সোহেল আহম্মেদ ও তেঁতুলবাড়ীয়া ইউপিতে নাজমুল হুদা।

স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দারিয়াপুর ইউপিতে মাহফুজুল আলম রবি, বাগোয়ান ইউপিতে আয়ুব হোসেন, মহাজনপুর ইউপিতে আমাম হোসেন মিলু ও মোনাখালী ইউপিতে মফিজুর রহমান জয়লাভ করেছেন।

কুমিল্লা:

লাকসামে আওয়ামী লীগের সব প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হওয়ায় সেখানে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠানের প্রয়োজন হয়নি। বৃহস্পতিবার মেঘনা উপজেলার ৮টি এবং তিতাস উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মোট ১৭টি ইউনিয়নে মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ক্ষমতাশীন দল আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের ১২জন এবং দলটির বিদ্রোহী ৫ জন প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন।

মেঘনা উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নে নির্বাচিত হয়েছেন, বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের মজিবুর রহমান, মানিকারচর নৌকার জাকির হোসেন, চালিয়াভাঙ্গায় বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের হুমায়ুন কবির, ভাওরখোলায় বিদ্রোহী ঘোড়া প্রতীকের সিরাজুল ইসলাম, লুটেরচরে নৌকার সানাউল্লাহ সিকদার, গোবিন্দপুরে নৌকার মাইনুদ্দিন মুন্সি তপন ও বড়কান্দায় বিদ্রোহী ঘোড়া প্রতীকের ফারুক হোসেন রিপন। এ উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন নৌকার প্রার্থী চন্দনপুর ইউনিয়নের আহসান উল্লা।

এদিকে তিতাসের সাতানী ইউনিয়নে বিদ্রোহী ঘোড়া প্রতীকের মিজানুর রহমান, জগৎপুরে নৌকার মজিবুর রহমান, বলরামপুরে নৌকার নুরুন্নবী, কলাকান্দিতে বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের ইব্রাহিম সরকার, ভিটিকান্দিতে নৌকার বাবুল আহমেদ, নারানদিয়ায় নৌকার আরিফুজ্জামান ভুইয়া খোকা, জিয়ারকান্দিতে নৌকার আলী আশরাফ ও মজিদপুরে নৌকার জাহাঙ্গীর আলম সরকার।

এ উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন নৌকার প্রার্থী সদর কড়িকান্দি ইউনিয়নের সাইফুল আলম মুরাদ।

টাঙ্গাইল (দক্ষিণ) :

টাঙ্গাইলের তিনটি উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পাঁচটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা হেরেছেন। আর ১০টি ইউনিয়নে বিজয়ী হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) রাতে জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা এ.এইচ.এম কামরুল হাসান এ তথ্যটি আরটিভি নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

সখীপুরে চারটি ইউনিয়নের মধ্যে দুইটিতে আওয়ামী লীগ ও অপর দুইটিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। এতে যাদবপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী একেএম আতিকুর রহমান আতোয়ার, বহেড়াতৈল ইউনিয়নে ওয়াদুদ হোসেন বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। আর বহুরিয়া ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী সরকার নূরে আলম মুক্তা (মোটরসাইকেল) ও কাকড়জান ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী দুলাল হোসেন (আনারস) প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

দেলদুয়ার:

দেলদুয়ারে সাতটি ইউনিয়নের মধ্যে পাঁচটিতে আওয়ামী লীগ ও দুইটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এতে ফাজিলহাটী ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী শওকত আলী, দেউলীতে দেওয়ান তাহমিনা হক, ডুবাইলে ইলিয়াছ মিয়া, দেলদুয়ার সদরে মাদুজ্জামান খান ও পাথরাইলে রাম প্রসাদ সরকার। আর লাউহাটী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহীন মোহাম্মদ খান ও এলাসিনে আওয়ামী বিদ্রোহী প্রার্থী মানিক রতন।

ধনবাড়ী:

ধনবাড়ীতে চারটি ইউনিয়নের মধ্যে তিনটিতে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ও একটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এতে বানিয়াজান ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী রফিকুল ইসলাম ফটিক, যদুনাথপুর ইউনিয়নে মীর ফিরোজ আহমেদ, ধোপাখালি ইউনিয়নে আকবর হোসেন। আর পাইস্কা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন জাহাঙ্গীর আলম বাবুল। এ উপজেলার মুশুদ্দি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী আবু কায়সার, বীরতারা ইউনিয়নে আহমেদ আল ফরিদ ও বলিভদ্র ইউনিয়নে রফিকুল ইসলাম তালুকদার বিনাপ্রতিদ্ব›দ্বীতায় বিজয়ী হয়েছেন।

নওগাঁ:

নওগাঁর সদর উপজেলা ও রানীনগর উপজেলার মোট ২০টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী ১১ জন, বিদ্রোহী প্রার্থী ৯ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচিতরা হলেন-বোয়ালিয়া ইউনিয়নে আফেলাতুন নেছা (নৌকা), বলিহার ইউনিয়নে মাসফিকুর রহমান মাহিন (নৌকা), চন্ডিপুর ইউনিয়নে খোরশেদ আলম রুবেল (নৌকা), তিলকপুর ইউনিয়নে রেজাউল করিম (নৌকা), শিকারপুর ইউনিয়নে কাজী রুকুনুজ্জামান টুকু (নৌকা), বর্ষাইল ইউনিয়নে শহিদুল ইসলাম (নৌকা), শৈলগাছী ইউনিয়নে মোয়াজ্জেম হোসেন (বিদ্রোহী), হাসাইগাড়ী ইউনিয়নে জসিম উদ্দিন (বিদ্রোহী), কিত্তিপুর ইউনিয়নে আব্দুল হান্নান (বিদ্রোহী), দুবলহাটি ইউনিয়নে গোলাম আজম (বিদ্রোহী), হাপানিয়া ইউনিয়নে দেওয়ান মোস্তাক আহম্মেদ রাজা (বিদ্রোহী), বক্তারপুর ইউনিয়নে সারোয়ার কামাল চঞ্চল (বিদ্রোহী)।

রানীনগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে ৫ জন ও বিদ্রোহী প্রার্থী ৬ জন নির্বাচিত হয়েছে। নির্বাচিতরা হলেন-খট্টেশর ইউনিয়নে চন্দনা শারমিন (নৌকা), গোনা ইউনিয়নে আব্দুল খালেক (নৌকা), মিরাট ইউনিয়নে জিয়া রহমান (নৌকা), একডালা ইউনিয়নে শাহ জাহান আলী (নৌকা), বরগাছা ইউনিয়নে আব্দুল মতিন (নৌকা), কাশিমপুর ইউনিয়নে মোখলেছুর রহমান বাবু (বিদ্রোহী), কালীগ্রাম ইউনিয়নে আব্দুর ওহাব চাঁন (বিদ্রোহী), পারইল ইউনিয়নে জাহিদুর রহমান জাহিদ (বিদ্রোহী)।

চুয়াডাঙ্গা:

চুয়াডাঙ্গা জেলার ৫ টি ইউনিয়ন পরিষদের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে তিনটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও দুটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। দামুড়হুদা উপজেলায় ৪ টি ও জীবননগর উপজেলায় ১ টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

দামুড়হুদা উপজেলার জুড়ানপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সোহরাব হোসেন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। দামুড়হুদা সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হযরত আলী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল করিম (আনারস) পেয়ে জয়লাভ করেছেন। কুড়ুলগাছি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী কামাল উদ্দিন (মোটর সাইকেল)বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইসাবুল ইসলাম মিল্টন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

নরসিংদী:

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার ১০ টি ও সদর উপজেলার ২ টি ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এতে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন সদর উপজেলার চরদীঘলদীতে দেলোয়ার হোসেন শাহীন (আ.লীগ), আলোকবালী ইউনিয়নে দেলোয়ার হোসেন সরকার দিপু (আ.লীগ) ও রায়পুরা উপজেলার বাঁশগাড়ীতে রাতুল হাসান জাকির (স্বতন্ত্র), শ্রীনগরে রিয়াজ মোরশেদ খান রাসেল (আ.লীগ), পাড়াতলীতে ফেরদৌস কামাল জুয়েল (আ.লীগ), চরমধুয়ায় আহসান শিকদার (স্বতন্ত্র), মির্জানগরে বশির উদ্দিন সরকার রিপন (স্বতন্ত্র), আমিরগঞ্জে ফজলুল করিম ফারুক (স্বতন্ত্র), হাইরমারায় কবির হোসেন (আ.লীগ), মির্জারচরে জাফর ইকবাল মানিক (স্বতন্ত্র), নিলক্ষ্যায় আক্তারুজ্জামান (স্বতন্ত্র), চরসুবুদ্ধিতে নাসির উদ্দিন (আ.লীগ)।

নাটোর :

নাটোরের বড়াইগ্রামে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পাঁচটি ইউনিয়নের মধ্যে তিনটিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এবং দুটিতে আওয়ামী লীগ দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) রাত পৌনে ১১টায় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার হাসিব বিন শাহাব এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

বেসরকারী ভাবে প্রাপ্ত ফলাফলে বড়াইগ্রাম সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মমিন আলী (নৌকা) ১২ হাজার ৬২৮ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান পদে তৃতীয়বারের মত বিজয়ী হয়েছেন।

জোনাইল ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ (ঘোড়া) ১১ হাজার ৪৪৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

নগর ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী মোস্তফা শামসুজ্জোহা (ঘোড়া) ১৪ হাজার ১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

চান্দাই ইউনিয়নে ৮ হাজার ১৯৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহনাজ পারভীন। গোপালপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা আবু বকর সিদ্দিক ৮ হাজার ৯৯১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন।

কুড়িগ্রাম :

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ২জন, জাতীয় পার্টির ৩জন ইসলামী আন্দোলনের ১জন ও স্বতন্ত্র ১জন বেসরকারি ভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

তারা হলেন তিলাই ইউনিয়নে কামরুজ্জামান (নৌকা), বঙ্গসোনাহাট ইউনিয়নে মাইনুল ইসলাম লিটন (নৌকা) আন্ধারিঝাড় ইউনিয়নে জাবেদ আলী মন্ডল(লাঙ্গল), বলদিয়া ইউনিয়নে মোজাম্মেল হক বেপারী (লাঙ্গল), পাইকের ছড়া ইউনিয়নে আব্দুর রাজ্জাক (লাঙ্গল), চর ভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নে মানিক উদ্দিন (হাত পাখা)। জয়মনিরহাট ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল ওয়াদুদ (মটর সাইকেল)।

রাঙ্গামাটি :

রাঙ্গামাটিতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও জেএসএস সমর্থিত স্বতন্ত্রদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে সমানে সমান। ১০ ইউনিয়নের মধ্যে ৫টিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও ৫টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয় পেয়েছে।

আওয়ামী লীগ ১০ ইউনিয়নের মধ্যে ৯ ইউপিতে প্রার্থী দিয়েছিল। অন্য ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের কার্যক্রম না থাকায় কোনো প্রার্থী দেওয়া হয়নি। তবে বিএনপি কিংবা আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে কোনো প্রার্থী না দিলেও নির্দিষ্ট প্রার্থীদের সমর্থন দিয়ে গ্রামভিত্তিক প্রচারণা চালিয়েছেন আঞ্চলিক দলগুলো।

বরকল উপজেলার চারটি ইউনিয়নের মধ্যে বরকল সদর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী প্রভাত কুমার চাকমা জয়ী হয়েছেন। অন্য তিন ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। এছাড়া বিলাইছড়ির তিন ইউনিয়নের দুইটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী জয়ী হয়। বিলাইছড়ি সদর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী সুনিল কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা জয়ী হন। এছাড়া কাপ্তাই উপজেলায় তিন ইউনিয়নের মধ্যে দুটিতে আওয়ামীলীগ ও একটিতে আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছে।

নেত্রকোনা :

নেত্রকোনায় দ্বিতীয় ধাপে তিন উপজেলার ২৪টি ইউনিয়নে বৃহস্পতিবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ১৭টিতে নৌকা আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী, দুইটিতে বিএনপির স্বতন্ত্র এবং ৫টিতে আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হন। সদর উপজেলার লক্ষীগঞ্জের দুটি কেন্দ্রে ব্যালট ছিনতাইয়ের চেষ্টার অভিযোগে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়ছে।

নাটোর :

নাটোরের বড়াইগ্রামে সহিংসতার মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় দফায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পাঁচটি ইউনিয়নের মধ্যে তিনটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী এবং দুইটিতে আওয়ামী লীগ দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার হাসিব বিন শাহাব এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে ৬টিতে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। আর বাকি ৭টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোগী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) রাতে নাসিরনগর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে করা নির্বাচনী ফলাফল সংগ্রহ ও পরিবেশন কেন্দ্রে থেকে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

লালমনিরহাট :

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন পরিষদে বৃহস্পতিবার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে আ.লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকীকে ৬ জন, আ.লীগ বিদ্রোহী ১ জন এবং ১ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

রংপুর:

রংপুরের দুই উপজেলার ১৮ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের ১১ জন, স্বতন্ত্র ছয়জন ও জাতীয় পার্টির একজন নির্বাচিত হয়েছেন।

এই নির্বাচনে পীরগঞ্জে আওয়ামী লীগের আটজন ও স্বতন্ত্র দুইজন এবং পীরগাছা উপজেলায় আওয়ামী লীগের তিনজন, জাতীয় পার্টির একজন ও বিএনপি সমর্থিত একজনসহ স্বতন্ত্র চারজন নির্বাচিত হয়েছেন।

গোপালগঞ্জ:

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে নৌকার মাঝিদের ভরাডুবি হয়েছে। এ উপজেলায় দলীয় মনোনয়নে অনুষ্ঠিত ৭টি ইউপি নির্বাচনের মধ্যে ৫ টিতে পরাজিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী। মাত্র ২টি ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগের নৌকা জয়ী হয়েছে।

এমআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS