Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৯ অক্টোবর ২০২১, ১৪ কার্তিক ১৪২৮

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১২ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৩
আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৯

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে স্বামীর পলায়ন 

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে স্বামীর পলায়ন 
নিহতের স্বজনরা হাসপাতালে অপেক্ষা করছেন

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার আওয়াল মল গ্রামে দুই সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার পর পর হাসপাতালে মরদেহ রেখে পালিয়ে গেছেন স্বামী আল আমিন। সুমনা ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন বলে জানিয়েছেন তার পরিবারের লোকজন।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) সকালে খবর পেয়ে সুমনার পরিবারের লোকজন হাসপাতালে ছুটে আসেন। এর আগে সোমবার (১১ অক্টোবর) রাতে আল আমিন তাকে মৃত অবস্থায় নিয়ে আসে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে। পরে তিনি মরদেহ ফেলে রেখে কৌশলে পালিয়ে যান।

নিহত সুমনা বেগম (২৩) নবীগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের আব্দুস সহিদের মেয়ে এবং বানিয়াচং উপজেলার আওয়াল মহল গ্রামের আল আমিনের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ৫ বছর আগে নবীগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের আব্দুস সহিদের মেয়ে সুমনাকে বিয়ে দেয়া হয় বানিয়াচং উপজেলার আওয়াল মহল গ্রামের মধু মিয়া মেম্বারের ছেলে আল আমিনের সঙ্গে। সম্প্রতি স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়া-বিবাধ হয়। পরে সোমবার (১১ অক্টোবর) রাতে আল আমিন স্ত্রী সুমনা বেগমকে মারধর করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এরপর চিকিৎসক সুমনাকে মৃত ঘোষণা করেন। এটি শোনার পর আল আমীন স্ত্রীর মরদেহ রেখে পালিয়ে যান।

এদিকে মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) সকালে সুমনার বাড়ির লোকজন হাসপাতালে এসে দেখেন, তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ সংবাদ পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে পৌঁছে মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে।

সুমনার পরিবারের দাবি, আল আমিনের ঝগড়া বিবাদ চলছিল সুমনার। আল আমিন তাদের মেয়েকে হত্যা করেছে। পরিবারের সদস্যরা বলেন, 'যদি হত্যা না করা হত, তবে আল আমিন মরদেহ রেখে পালিয়ে যেত না।'

বানিয়াচং থানার ওসি এমরান হোসেন জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জিএম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS