Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১১ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩৫
আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২১, ২১:১০

স্কুলছাত্রীকে ফিল্মি কায়দায় অপহরণ, ভিডিও ভাইরাল

স্কুলছাত্রীকে ফিল্মি কায়দায় অপহরণ, ভিডিও ভাইরাল
স্কুলছাত্রীকে ফিল্মি কায়দায় অপহরণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে এক তরুণীকে ফিল্মি কায়দায় প্রাইভেটকারে উঠিয়ে অপহরণের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। অপহরণ হওয়া ওই তরুণীকে ইতোমধ্যে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া অপহরণের সঙ্গে জড়িত থাকায় কাউসার মিয়া (৩২) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় সোমবার (১১ অক্টোবর) ওই তরুণী বাদি হয়ে সদর মডেল থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন।

সদর মডেল থানা ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, অপহরণ হওয়া ওই তরুণীর গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের মৈন্দ গ্রামে। সে ওই গ্রামের একটি স্কুলের ১০ম শ্রেণিতে পড়াশোনা করেন। ওই তরুণীর পরিবার জেলা শহরের মধ্যপাড়ায় বসবাস করেন। স্কুলে যাওয়া আসার সময় দীর্ঘদিন যাবত ওই তরুণীকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল মৈন্দ গ্রামের ধন মিয়ার ছেলে জসিম উদ্দিন (২৫)। কিন্তু এতে ওই তরুণী রাজি হয়নি। এরমধ্যে করোনার মহামারিতে স্কুল দীর্ঘদিন বন্ধ থাকে।

সম্প্রতি স্কুল পুনরায় খোলা হলে আবারও জসিম ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে থাকেন। গত ৯ অক্টোবর দুপুর ২টার দিকে ওই তরুণী জেলা শহরের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর একটি যুবক তার পিছু নেয়। কিছুদূর যাওয়ার পর সামনে একটি প্রাইভেটকার তাকে গতিরোধ করলে পেছনে ধাক্কা দিয়ে ওই তরুণীকে প্রাইভেটকারে উঠিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ঘটনাটি সিসিটিভি ক্যামেরায় ধারণ হয়।

একই দিন রাতে ওই তরুণী তার বাসায় নিজেই ফিরে আসে। এসময় সে তার পরিবারকে জানিয়েছেন, প্রাইভেটকারে করে অপহরণের পর সদর উপজেলার সুহিলপুরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সেদিন রাতেই ওই তরুণীর মা সদর মডেল থানায় এসে ঘটনাটি জানিয়ে একটি অভিযোগ করেন। এই ঘটনায় অভিযুক্ত জসিম উদ্দিনকে আটক করতে অভিযান চালায় সদর মডেল থানা পুলিশ।

গতকাল রোববার (১০ অক্টোবর) রাতে অপহরণে জড়িত থাকায় জসিমের বড় ভাই কাউসার মিয়াকে আটক করে পুলিশ। সোমবার (১১ অক্টোবর) সকালে এই ঘটনায় ওই তরুণীর মায়ের করা একটি মামলা রুজু করে পুলিশ।

এই বিষয়ে সদর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক সোহরাব আল হোসাইন আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, এই ঘটনায় ওই তরুণীর মা বাদি হয়ে ৫ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এরমধ্যে একজন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার কাছ থেকে তথ্য উদ্ধার করতে রিমান্ড আবেদন করা হবে। বাকী আসামিদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এমআই/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS